ভাঙা কাঁচ দুর্ভাগ্য ডেকে আনে, কেন রয়েছে এমন বিশ্বাস

|

ভাঙা আয়নাও আপ নার জীবনে বিপদ ডেকে আনতে পারে৷ আজ কেই এক বিংশ শতাব্দী তে এই বিষয় টি সত্যিই খুব অ বিশ্বাস্য৷ কিন্তু কেন ভাঙা আয়না দু র্ভাগ্যের কারণ তা বলা রয়েছে শাস্ত্রে৷

বাস্তু শাস্ত্র অনু যায়ী ভাঙা কাঁচও বাড়ির জন্য খুবই ক্ষতি কর হতে পারে৷ এই ভাঙা আয়না নেগে টিভ এনার্জি ডেকে আনতে পারে জীবনে৷ তাই এখনই ঘরের মধ্যে যদি কোনও ভাঙা কাঁচ থাকে তাহলে বাড়ি থেকে সেগুলো ইতিমধ্যেই সরিয়ে দিন৷ কারণ এই ভাঙা কাঁচ আপনার দুর্ভাগ্যের কারণ হয়ে উঠতে পারে৷ কিন্তু কেন এই নিয়ম?

শাস্ত্রে উল্লেখ আছে, শোয়ার ঘরে কিংবা প্রবেশ দ্বারের সামনে কখনও আয়না রাখবেন না৷ শোয়ার ঘরে আয়না রাখা একে বারে নৈব নৈব চ৷ তবে, যদি রাখতেই হয় আয়না আপনার বেডরুমে তাহলে সেটি ব্যবহারের পর কাপড় দিয়ে ঢেকে রাখুন৷ রাতের বেলা ঘুমচোখে উঠে কোনওদিনই দেখবেন না আয়না৷ তাহলে তাতে ভয়ঙ্কর ঘটনা ঘটতে পারে৷

হিন্দু শাস্ত্র মতে, আয়না মানুষের আত্মার অংশকে তার ভিতরে ধরে রাথে৷ আবার যখন দেবতা বা অপ দেবতারা কোনও মানুষের সঙ্গে যোগাযোগ করতে চান তখন সেই আয়নার মধ্য দিয়েই নাকি যোগাযোগ করে৷ আয়না ভাঙলে লক্ষ্মীদেবী রুষ্ট হন৷ তাই আর্থিক কষ্টেও আপনি ভুগতে পারেন৷ এমনকি ভাঙা আয়নার যদি আপনি স্বপ্ন দেখেন তাহলে আপনার কাছের কোনও ব্যক্তির মৃত্যু আসন্ন৷

তবে, একবিংশ শতাব্দীতে দাঁড়িয়ে এই ধরণের সংস্কারকে নেহাতই কুসংস্কারই বলা যায়৷ অতীতে এই ধরণের একটি মিথ্যে রটনা করা হয়েছিল৷ কারণ সেই সময় কাঁচ ছিল বহুমূল্য৷ সেই কারণে চট করে যাতে কেউ না ভেঙে ফেলে সেই কারণে এই ধরণের মন্তব্য করা হত৷ পাশাপাশি ভাঙা কাঁচের অংশে হাত কেটে সেপ্টিক হয়ে যাওয়ারও সম্ভাবনা থাকে৷ সেই কারণেই এই ধরণের মিথ্যে রটানো হত৷








Leave a reply