জিও’র সঙ্গে টক্কর দিতে কলকাতায় ‘ভি’, দাবী সেরা নেটওয়ার্কের স্পিডের

|

জিও নিয়ে এতদিন মেতে থেকেছে শহরবাসী। শুধু কলকাতা নয় সারা দেশে জিওর ধাক্কায় ভাটা পড়েছে বহু নামি দামী সংস্থার। কোনও কোনও সংস্থার ব্যাবসা পুরোপুরি বন্ধ হয়েছে। জিওকে টেক্কা দেবে কি না এখনও জানা নেই তবে টক্কর দিতে চেষ্টা করছে ভোডাফোন ও আইডিয়া একজোট হয়ে আসা মোবাইল নেটওয়ার্ক সংস্থা ‘ভিআই’ বা ‘ভি’। তাঁরা দাবী করছে এইই মুহূর্তে কলকাতায় দ্রুততম ৪জি ডাউনলোড-আপলোড স্পিড পাওয়া যাবে তাঁদের নেটওয়ার্ক ব্যাবহার করলে।

প্রমান স্বরূপ সংস্থা সামনে রেখেছে সেপ্টেম্বর ২০২০-র ওপেনসিগনাল নেটওয়ার্ক এক্সপিরিয়েন্স রিপোর্টকে। সংস্থার দাবী , ‘জাতীয় স্তরে ভি সবচেয়ে ভাল ৪জি পরিষেবা দেয়, যেখানে গেমিং, ভিডিও দেখা এবং কণ্ঠস্বরের গুণমানের দিক থেকে ডাউনলোড-আপলোডের গতি সর্বোচ্চ। ওপেনসিগনাল নেটওয়ার্ক এক্সপিরিয়েন্স রিপোর্ট, সেপ্টেম্বর ২০২০ বলছে কলকাতায় দ্রুততম ৪জি ডাউনলোড-আপলোড স্পিড এবং ভিডিও দেখার সেরা গতি মিলবে এই ভি নেটওয়ার্কে। এই রিপোর্ট অনুযায়ী ভোডাফোন আর আইডিয়ার মার্জ হয়ে টেলিকম ব্র্যান্ড ‘ভি’ ডাউনলোড ও আপলোড স্পিড, গেমিং এর অভিজ্ঞতা, কণ্ঠস্বরের গুণমান এবং ভিডিও দেখার অভিজ্ঞতায় ভারতেরও সেরা ৪জি নেটওয়ার্ক।’

সংস্থার দাবী, ‘সেপ্টেম্বর ২০২০’র ওপেনসিগনাল রিপোর্ট হল মে থেকে জুলাই ২০২০ পর্যন্ত ভারতের প্রায় ৫০টি শহরের গ্রাহকদের নেটওয়ার্ক পরিষেবা সম্বন্ধে অভিজ্ঞতা নিয়ে সমীক্ষার ফলাফল। কলকাতায় এই নিয়ে টানা দুই কোয়ার্টারে ‘ভি’ গ্রাহকদের দ্রুততম ডাউনলোড (১১.৯ এমবিপিএস) / আপলোড (৩.৭ এমবিপিএস) স্পিড আর ভিডিও দেখার সেরা অভিজ্ঞতা (৫৬.৮ পয়েন্ট) দিয়েছে। জাতীয় স্তরে ‘ভি’ ভারতের সেরা ৪জি নেটওয়ার্ক হিসাবে তার স্থান ধরে রেখেছে। শুধু তা-ই নয়, ৪জি ডাউনলোড স্পিডের দিক থেকে উন্নতিও করেছে। মার্চ ২০২০র নেটওয়ার্ক রিপোর্টে ভি এর স্কোর ছিল ১০.৮ এম বি পি এস, যা বর্তমান রিপোর্টে হয়েছে ১১.৩ এমবিপিএস। এই রিপোর্ট ভারতে ৩জি নেটওয়ার্ক পরিষেবা প্রদানকারী হিসাবেও সমস্ত মানদণ্ডের ভিত্তিতে ভি কেই এক নম্বর বলেছে।’

টেলিকম ব্র্যান্ড ‘ভি’-র জানাচ্ছে, ‘এখন এমন একটা সময় যখন চব্বিশ ঘন্টা যোগাযোগের মধ্যে থাকা জরুরী প্রয়োজন হয়ে দাঁড়িয়েছে। ফলে ছাত্রছাত্রী, বিভিন্ন পেশার মানুষজন, ব্যবসা বাণিজ্য আর বয়স্ক মানুষদের সব কাজ মসৃণভাবে চালানোর জন্য মোবাইল নেটওয়ার্ক পরিষেবা হয়ে উঠেছে প্রধান হয়ে উঠেছে। নেটওয়ার্ক এক্সপিরিয়েন্স রিপোর্ট বিশ্বমানের স্বাধীন মোবাইল অ্যানালিটিক্স কোম্পানি ওপেনসিগনালের তৈরি। প্রতি কোয়ার্টারে সারা ভারতের সমস্ত মোবাইল নেটওয়ার্কের পরিষেবার অভিজ্ঞতা বিশ্লেষণ করে এই রিপোর্ট তৈরি করা হয়। ফলে এই রিপোর্ট থেকে ভারতের সমস্ত টেলিকম সার্কেলের মোবাইল ব্যবহারকারীরা কেমন পরিষেবা পান, সে সম্পর্কে একটা বিশ্বাসযোগ্য, পক্ষপাতহীন সামগ্রিক চিত্র পাওয়া যায়।’








Leave a reply