অ্যান্টিভাইরাস ম্যাকএ্যাফির প্রতিষ্ঠাতা গ্রেফতার

|

অ্যান্টি-ভাইরাস সফটওয়্যার কোম্পানির প্রতিষ্ঠাতা জন ম্যাকএ্যাফিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম বিবিসি জানায় সোমবার স্পেনে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বিবিসি আরও জানায় তিনি কর ফাঁকির এক মামলায় অভিযুক্ত হয়েছেন এবং তাকে বিচারের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের হাতে তুলে দেওয়া হতে পারে।

জানা গেছে ম্যাকএ্যাফি চার বছর ধরে ট্যাক্স রিটার্ন জমা দেননি। এর মধ্যে তিনি পরামর্শদাতা হিসেবে কাজ করে, বক্তৃতা দিয়ে, ক্রিপটোকারেন্সির ব্যবসা করে এবং তার জীবনী প্রকাশের কপিরাইট বিক্রি করে লাখ লাখ ডলার আয় করেছেন। এসব আয়ের সঙ্গে অবশ্য তার নিজের নামে তৈরি ম্যাকএ্যাফি অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যার প্রতিষ্ঠানের কোনো সম্পর্ক নেই।

যুক্তরাষ্ট্রের বিচার বিভাগ এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ম্যাকএ্যাফি তার নিজের আয় তার মনোনীত অন্য লোকজনের নানা অ্যাকাউন্টে জমা দিয়েছিলেন। ২০১৪ থেকে ২০১৮ পর্যন্ত তিনি কর দেওয়ার দলিল জমা দেননি। এ ছাড়া তার বিরুদ্ধে বেনামে থাকা প্রমোদতরি ও বাড়ি-জমির মতো সম্পদ গোপন করার অভিযোগ আছে। অভিযোগ প্রমাণিত হলে তার ৩০ বছর পর্যন্ত কারাদণ্ড হতে পারে।

ম্যাকএ্যাফির জন্ম যুক্তরাজ্যে। তার মা ইংরেজ এবং বাবা ছিলেন দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় ব্রিটেনে থাকা একজন আমেরিকান সেনা। তার বাবা পরে অ্যালকোহল-আসক্ত এবং অত্যাচারী হয়ে পড়েন এবং নিজের গুলিতে আত্মহত্যা করেন।

ম্যাকএ্যাফির বয়স তখন ১৫। তিনি নিজেও বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সময় অ্যালকোহল এবং মাদকে আসক্ত হন। পড়াশোনায় ভালো ছিলেন, তবে অন্য একজন ছাত্রীর সঙ্গে অনৈতিক যৌন সম্পর্কের জেরে তার পিএইচডি বাতিল করা হয়।

পরে তিনি বেশ কিছু বড় বড় প্রযুক্তি কোম্পানিতে চাকরি করেন। সঙ্গে চলছিল নেশা করা। তিনি বলেন, কিছু প্রতিষ্ঠানের বসরাও মাদক নিতেন। কিছু কোম্পানিতে দুপুরের খাবার সময় খোলাখুলি মাদক গ্রহণ করা হতো।

পরে লকহিড মার্টিন কোম্পানিতে কাজ করার সময় তিনি প্রথম কম্পিউটার ভাইরাসের সঙ্গে পরিচিত হন। বের করেন কম্পিউটারগুলোকে ভাইরাসমুক্ত করার এক পদ্ধতি। তিনি নিজের নামে কোম্পানি চালু করে এর ব্যবসা শুরু করেন। পরে তিনি এই কোম্পানি ইনটেলের কাছে বিক্রি করে দেন ৭৬০ কোটি ডলারে। তার কোম্পানি এ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যার বিক্রি করলেও ম্যাকএ্যাফি বলেন, তিনি নিজে কখনও তার পণ্য ব্যবহার করেননি।








Leave a reply