দলের কোয়ালিটি কাজ সহজ করে দিচ্ছে, শীর্ষে পৌঁছে জানালেন রোহিত

|

প্রথম তিন ম্যাচে একটিতে জয়। শুরুর দিকে কিছুটা অবিন্যস্ত দেখালেও টানা তিন ম্যাচ জিতে ফের চ্যাম্পিয়নের মতোই দেখাচ্ছে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সকে। মঙ্গলবার রাজস্থান রয়্যালসকে ৫৭ রানে হারিয়ে দিল্লি ক্যাপিটালসকে টপকে লিগ টেবিলে শীর্ষে পৌঁছে গেল মুম্বই ইন্ডিয়ান্স।

দলের দুরন্ত এই পারফরম্যান্সের নেপথ্য কারণ কী? উত্তরে ম্যাচ শেষে মুম্বই ইন্ডিয়াস অধিনায়ক রোহিত শর্মা জানালেন দলের কোয়ালিটি আমাদের কাজ অনেক সহজ করে দিচ্ছে। ব্যাট, বল কিংবা ফিল্ডিং। প্রত্যেক বিভাগেই এদিন রাজস্থান রয়্যালসকে টেক্কা দিয়েছে মুম্বই ইন্ডিয়াস।

ব্যাট হাতে শুরুটা কুইন্টন ডি’কক এবং রোহিত শর্মা ভালো শুরু করার পর সূর্যকুমার যাদবের ৪৭ বলে অপরাজিত ৭৯ রানের ইনিংসে ভর করে ২০ ওভারে ৪ উইকেটে ১৯৩ রান তোলে মুম্বই ইন্ডিয়ান্স। শেষদিকে নেমে ১৯ বলে ৩০ রান করেন হার্দিক পান্ডিয়া। এরপর বল হাতে ভয়ংকর হয়ে ওঠেন বুমরাহ।

৪ ওভারে ২০ রানে বুমরাহর ৪ উইকেটে ম্যাচ জয় আরও সহজ হয়ে যায় ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নদের। সঙ্গে ফিল্ডিংয়েও ছিল চমক। রাজস্থানের হয়ে ব্যাট হাতে ক্রমশ ভয়ংকর হয়ে ওঠা বাটলারকে লং-অনে দাঁড়িয়ে বিশ্বস্ত ক্যাচে প্যাভিলিয়নে ফেরান কায়রন পোলার্ড।

এই সবকিছু নিয়ে বলতে গিয়ে পুরস্কার বিতরণীতে রোহিত বলেন, ‘আমরা শক্তি প্রয়োগ করে ম্যাচ খেলার চেষ্টা করছি যেহেতু আমাদের দলের কোয়ালিটি দুর্দান্ত। আমরা জানি দলের ক্রিকেটাররা প্রত্যেকেই প্রতিভাবান।

সে কারণে আমরা ওদের প্রতিনিয়ত আত্মবিশ্বাস জুগিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করি। বোলারদের জন্য আবু ধাবির কন্ডিশন কিছুটা সহায়ক হয়েছে।’ যদিও পিচ নিয়ে নিশ্চিত ছিলেন না তিনি।

রোহিত জানালেন, ‘আমরা নিশ্চিত ছিলাম না যে পিচ কেমন আচরণ করবে। পেস বিভাগকে সহায়তা করবে কীনা তা নিয়ে দ্বিধায় ছিলাম। কিন্তু দেখলাম ছেলেরা কন্ডিশনকে দারুণভাবে কাজে লাগালো। একইসঙ্গে ফিল্ডিংও অনবদ্য ছিল। যা নিয়ে আমরা গর্ব করতে পারি।

এখানে (আমিরশাহী) পৌঁছনোর পর আমরা ফিল্ডিংয়ের পিছনে অনেক সময় ব্যয় করেছি। দুর্দান্ত সব ক্যাচ দেখে আমি অভিভূত।’ রোহিত খুশি হলেও টানা তিন ম্যাচ হেরে দলের প্রতি অখুশি রাজস্থা রয়্যালস অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ। তিনি বলেন, ‘শুরুতেই এভাবে উইকেট হারালে ম্যাচ জয় সম্ভব নয়।

শেষ তিন ম্যাচের একটাতেও আমাদের ব্যাট হাতে শুরুটা ভালো হল না।’ উল্লেখ্য, মুম্বই বোলিং অ্যাটাকের সামনে বাটলারের ৪৪ বলে ৭০ রানের ইনিংস ছাড়া সফল হতে পারেননি কোনও রাজস্থান ব্যাটসম্যান। ১৯৪ রান তাড়া করতে নেমে ১৮.১ ওভারে ১৩৬ রানে গুটিয়ে যায় স্টিভ স্মিথের দল।








Leave a reply