ক্রিকেটে সবকিছু পরিকল্পনামাফিক হয় না, লিগ টেবিলে সবার নীচে নেমে জানালেন ধোনি

|

প্রথম সাত ম্যাচে মাত্র দু’টো জয়ের পরেও সমর্থকেরা আশায় ছিলেন। এক দশক আগের উদাহরণ টেনে তারা বলছিলেন ২০১০ একই অবস্থা থেকে ঘুরে দাঁড়িয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল ধোনির দল। এবারও নিশ্চয় পারবে। কিন্তু টুর্নামেন্টের বয়স যত বাড়ছে চেন্নাই সুপার কিংস নামক জাহাজের অসংখ্য ছিদ্র যেন সংখ্যায় আরও বেড়ে চলেছে। সোমবার মরুশহরে রাজস্থান রয়্যালসের কাছে হারের পর চলতি আইপিএলে কার্যত প্লে-অফের আশা শেষ ইয়েলো ব্রিগেডের।

আর ম্যাচ হেরে লিগ টেবিলে সবার নীচে পৌঁছে গিয়ে ধোনি বলছেন, ক্রিকেটে সবসময় সবকিছু পরিকল্পনামাফিক হয় না। ম্যাচের পর ধোনি জানালেন, ‘পিচে ফাস্ট বোলাররা সুবিধা পাচ্ছিল। আমি জাদেজাকে আক্রমণে এনেছিলাম এটা দেখার জন্য যে বল কতোটা থমকে আসছে। দেখলাম যে প্রথম ইনিংসের মত থমকে আসছে না। তাই ফাস্ট বোলারদের উপরেই ভরসা রেখেছিলাম। আমার মনে হয়েছিল স্পিনাররা এই পিচে বিশেষ সুবিধা পাবে না। কিন্তু ক্রিকেটে সবকিছু তোমার মনের মতো হয় না। আমাদের স্বীকার করতে হবে যে আমাদের স্ট্র্যাটেজিতে গলদ ছিল।

আর ম্যাচের ফলাফল স্ট্র্যাটেজির উপরেই নির্ভর করে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে।’ প্লে-অফের স্বপ্ন কার্যত শেষ হয়ে গেলেও বাকি ম্যাচগুলি জেতার জন্যই মাঠে নামবে দল। সেক্ষেত্রে সুযোগ দেওয়া হতে পারে বেঞ্চে কাটানো ক্রিকেটারদের। ম্যাচ শেষে এমনটাই বার্তা দিলেন তিনবারের আইপিএল জয়ী অধিনায়ক। একইসঙ্গে ধোনি স্বীকার করে নেন মরশুমটা কোনওভাবেই তাদের ছিল না। ধোনি বলেন তরুণ ক্রিকেটারদের সুযোগ না দেওয়া নিয়ে সমালোচনাটা স্বাভাবিক। কিন্তু দলের তরুণ ক্রিকেটারদের মধ্যে সেই খিদেটা লক্ষ্য করিনি।

তবে ধোনি স্বীকার করে নেন যে তরুণ ক্রিকেটারদের সুযোগ দিলে হয়তো তারা অনেক চাপহীন হয়ে খেলতে পারত। এদিন রাজস্থানের বিরুদ্ধে আবুধাবিতে সব বিভাগেই ব্যর্থ ধোনি। রয়্যালস বোলারদের সামনে প্রথমে ব্যাট করে ২০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে তিনবারের চ্যাম্পিয়নরা এদিন মাত্র ১২৫ রান তোলে। ১৭.৩ ওভারেই সেই রান তুলে দেয় রাজস্থান। মাইলস্টোন ম্যাচে (২০০ তম আইপিএল ম্যাচ) মাথা নীচু করেই মাঠ ছাড়তে হয় ধোনিকে।








Leave a reply