ক্যামেরার লেন্স ভেঙে আগমনবার্তা দিলেন আন্দ্রে রাসেল

|

ব্যাট হাতে ঝড় তুলতে প্রস্তুত কলকাতা নাইট রাইডার্সের ক্যারিবিয়ান দানব আন্দ্রে রাসেল। আগামীকাল বুধবার আইপিএল অভিযান শুরু করবে কলকাতা নাইট রাইডার্স। মাঠে নামার জন্য ছটফট করছেন আন্দ্রে রাসেল। তাই নেট প্র্যাকটিসেই জানান দিয়ে গেলেন যে, তিনি এসে গেছেন! অনুশীলনেই ধামাকা শটে ক্যামেরার লেন্স ভেঙেছেন। সেই ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল।

সিপিএল খেলে গত ১১ সেপ্টেম্বর আবুধাবি পৌঁছান রাসেল। এরপর আইপিএলের কোভিড প্রোটোকল অনুযায়ী ৬ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিন পর্ব শেষে আইপিএল শুরুর আগের দিন থেকে দলের সঙ্গে অনুশীলন শুরু করেন। বুধবার মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের বিপক্ষে মাঠে নামার আগে নিজের অস্ত্রে ভালোভাবেই শান দিয়েছেন তিনি। ধামাকাদার শটে নেটে অগ্নিমূর্তি ধারণ করেছেন। আর স্ম্যাশিং শটে ভেঙে ফেলেছেন ক্যামেরার লেন্স!

ক্রিকেট ভিত্তিক ওয়েবসাইট ক্রিকইনফোর ‘স্মার্ট স্যাট’ প্রযুক্তির পরসংখ্যান বলছে, আইপিএলের সবচেয়ে বিধ্বংসী ব্যাটসম্যান আন্দ্রে রাসেল। ভয়ংকর, বিধ্বংসী, আগ্রাসী, আক্রমণাত্মক- একসঙ্গে অসংখ্য বিশেষণ জুড়ে দেওয়া যায় তার নামের পাশে। দেওয়ালে পিঠ ঠেকে যাওয়া দলকে তিনি একার হাতে ম্যাচ জেতানোর ক্ষমতা রাখেন। কয়েকদিন আগেই কেকেআরের চিফ মেন্টর ডেভিড হাসি বলেছিলেন, টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি করে দিতে পারেন রাসেল।

আন্দ্রে ডোয়াইন রাসেল (ইংরেজি: Andre Dwayne Russell; জন্ম: ২৯ এপ্রিল, ১৯৮৮) হলেন একজন জ্যামাইকান ক্রিকেটার। রাসেল ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দলের হয়ে টেস্ট ক্রিকেট এবং ওডিআই খেলে থাকেন। তিনি মূলত একজন ফাস্ট বোলিং অল-রাউন্ডার। রাসেলের ২০১০ সালের নভেম্বরে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে টেস্টে অভিষেক হয়।[১][২]

২০১০ সালে ইংল্যান্ডের ওরচেস্টারশায়ার বার্নার্ডস গ্রীণ ক্রিকেট ক্লাব, দলের হয়ে খেলেন যেখানে তিনি বার্মিংহাম লীগ ক্রিকেটে প্রমোশনেন সাহায্য করেন। তিনি ৩৯ উইকেট লাভ করেন যেখানে ১০.১৫ এভারেজ ছিল। তিনি তার ব্যাটিং নেতৃত্বে ৯৯.৮৮ গড়ে ১১ ইনিংসে মিলে (৩বার অপরাজিত) ৭৯৯ রান করেন। ২০১১ সালের ভারতের মোহালিতে ক্রিকেট বিশ্বকাপে আয়ারল্যান্ডের বিরুদ্ধে তার একদিনের আন্তর্জাতিকে অভিষেক হয়। যেখানে তিনি মাত্র ৩ রান করেন এবং বল হাতে জন মনিকে বোল্ড করেন।

সেপ্টেম্বর ২১, ২০১৩ তারিখে, ভারতের বিরুদ্ধে একটি ম্যাচে তিনি কেদার যাদব, যুবরাজ সিং, নামান ওঝা ও ইউসুফ পাঠানকে আউট করে তিনি টি২০ ম্যাচে প্রথম বোলার হিসেবে ৪ বলে ৪ উইকেট লাভ করতে সামর্থ্য হন।








Leave a reply