করোনাকালের আইপিএলে স্পট লাইটে থাকা পাঁচ

|

করোনা পরিস্থিতির মধ্যেই আগামীকাল থেকে সংযুক্ত আরব আমিরাতে শুরু হচ্ছে বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল)। করোনার কারণে পাঁচ মাস দেরিতে মাঠে গড়াচ্ছে আইপিএল। এবারের আইপিএলে পাঁচজন ক্রিকেটারের উপর স্পটলাইট থাকবে। ৫৩ দিনের এই লড়াইয়ে বার্তা সংস্থা এএফপির চোখে যেই পাঁচজন খেলোয়াড়ের উপর স্পট লাইট থাকবে, তাদের নিয়ে বিশ্লেষণও করা হয়েছে।

বিরাট কোহলি (রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরু) : ব্যাঙ্গালুরুর অধিনায়ক কোহলি। ত্রয়োদশ আসরে কোহলির উপর নির্ভর করছে ব্যাঙ্গালুরুর সাফল্য। এখন পর্যন্ত শিরোপার স্বাদ নিতে পারেনি দলটি। ২০১৬ সালের আসরে ১৬ ম্যাচে ৬৪০ রান করেছিলেন কোহলি। ওই আসরে রানার্স-আপ হয়েছিল ব্যাঙ্গালুরু। কোহলির সাথে ব্যাটিং লাইন-আপে ব্যাঙ্গালুরুতে ভরসার প্রতীক হিসেবে আছেন দক্ষিণ আফ্রিকার এবি ডি ভিলিয়ার্স ও অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ। এ জুটিতে এবার সাফল্যে রঙ্গীন হতে চায় ব্যাঙ্গালুরু।

ডেভিড ওয়ার্নার (সানরাইজার্স হায়দারাবাদ) : জাতীয় দলের জার্সি গায়ে বল-বিকৃতির সাথে জড়িত থাকার কারণে নিষিদ্ধ হওয়ায় এক বছর হায়দারাবাদের হয়ে খেলতে পারেননি অস্ট্রেলিয়ার ডেভিড ওয়ার্নার। গত বছর ১২ ম্যাচে করেছেন ৬৯২ রান। এবার খেলবেন অধিনায়ক হিসেবে। হায়দারাবাদের জন্য বড় পাওনা হচ্ছে তার অধিনায়কত্ব। ওয়ার্নারের নেতৃত্বেই ২০১৬ সালে আইপিএলের শিরোপা জিতেছিল হায়দারাবাদ। এবার মরুর দেশের ট্রফি তুলে ধরার মিশনে হায়দারাবাদ।

জশ বাটলার (রাজস্থান রয়্যালস) : গত বছর বিশ্বকাপ থেকে ইংল্যান্ড দলের ব্যাটিং লাইন-আপের মেরুদন্ড জশ বাটলার। ইংল্যান্ডের বিশ্বকাপ জয়ে তার ভূমিকা ছিল। আইপিএলের রাজস্থানের অন্যতম ভরসা বাটলার। সদ্য শেষ হওয়া অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজে তিনি ক্যারিয়ার সেরা অপরাজিত ৭৭* রান করেন। যা এবারের আইপিএলে ভালো করতে তাকে আত্মবিশ্বাসী রেখেছে।

আইপিএলে বাটলারের স্ট্রাইক রেটে ১৫০। রাজস্থানে বাটলারের সাথে থাকছেন তারই সতীর্থ বেন স্টোকস ও জোফরা আর্চার। আইপিএলের প্রথম আসরে চ্যাম্পিয়ন রাজস্থান গত বছর ভালো করতে পারেনি। সপ্তম স্থানে থেকে শেষ করতে হয়েছে। তবে এবার ভালো করতে মুখিয়ে আছে দলটি।

আন্দ্রে রাসেল (কলকাতা নাইট রাইডার্স) : একাই ম্যাচ শেষ করে দেয়ার ক্ষমতা আছে বিশ্ব টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে সবচেয়ে ভয়ংকর খেলোয়াড় কলকাতা নাইট রাইডার্সের ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান আন্দ্রে রাসেলের। যেকোনো বোলারের জন্য তিনি দুঃস্বপ্নের নাম। গত বছর আইপিএলের ‘সবচেয়ে মূল্যবান খেলোয়াড়’ উপাধি পেয়েছেন। কলকাতার হয়ে ৫৫০ রানের পাশাপাশি শিকার করেছিলেন ১১ উইকেট। দুই বার চ্যাম্পিয়ন কলকাতা এবার রাসেলকে নিয়ে ভিন্ন পরিকল্পনা করেছে। মিডল-অর্ডার থেকে তিন নম্বরে ব্যাট হাতে দেখা যেতে পারে রাসেলকে।

রশিদ খান (সানরাইজার্স হায়দারাবাদ) : সম্প্রতি টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে বোলার হিসেবে ৩শ উইকেট শিকারের মাইলফলক স্পর্শ করেছেন সানরাইজার্স হায়দারাবাদের আফগান স্পিনার রশিদ খান। ক্যারিবীয়ান প্রিমিয়ার লিগে (সিপিএল) দুর্দান্ত পারফরন্সে করে ৩শ উইকেট শিকারের কৃতিত্ব গড়েছেন। বিশ্বজুড়ে টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেললেও আইপিএলে হায়দারাবাদের হয়ে সবচেয়ে বেশি নজরে আসেন ২১ বছর বয়সী রশিদ।

আইপিএলে ৪৬ ম্যাচে নিয়েছেন ৫৫ উইকেট। ব্যাট হাতে লোয়ার-অর্ডারেও বেশ পারদর্শী রশিদ। রশিদের সর্ম্পকে সম্প্রতি হায়দারাবাদের পেসার ভুবেনশ্বর কুমার বলেন, ‘যেকোনো দলের জন্য গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড় রশিদ।’








Leave a reply