এমন উদযাপনের পেছনের হৃদয়বিদারক গল্পটা জানেন?

|

শনিবার ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের (ইপিএল) প্রথম দিনেই দারুণ এক ম্যাচ উপহার দিয়েছে লিভারপুল-লিডস। দুই মাস্ট্রার মাইন্ড কোচের লড়াইয়ে শেষ হাসি হেসেছে লিভারপুল। অল রেডদের হয়ে ৮৮ মিনিটে দলের পক্ষে জয়সূচক গোলটি করেন মিশরীয় ফরোয়ার্ড মোহাম্মদ সালাহ। পেনাল্টি থেকে এই গোল করার পর অন্যরকম উদযাপন করেন তিনি। পড়ে জানা গেছে এমন উদযাপনের পেছনের হৃদয়বিদারক গল্প। 

দলের পক্ষে জয়সূচক গোলটি করার পর দুই হাত কানে রেখে জিভ বের করেন সালাহ। এই ফরোয়ার্ড তার কাছের বন্ধু মোয়ামেন জাকারিয়ার জন্যই এমনটি করেছেন। ২০১৮ বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে তিনি সালাহর সঙ্গে মিশর জাতীয় দলে খেলেছেন। ছিলেন মিসরের ক্লাব আল আহলির ফরোয়ার্ড। ছিলেন বলার কারণ, বয়স মাত্র ৩২ হলেও ২০১৮ সালের ডিসেম্বর থেকে আর প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচ খেলেননি তিনি। 

গত মাসে জাকারিয়ার শরীরে অ্যামিট্রোপিক ল্যাটারাল স্কেরোসিস (এএলএস) রোগ ধরা পড়ে। দুরারোগ্য এই রোগে স্নায়ুতন্ত্র, মস্তিস্ক ও স্পাইনাল কর্ড ক্ষতিগ্রস্ত হয়। স্থায়ী কোনো চিকিৎসা না থাকায় আর কখনো ফুটবল খেলতে পারবেন না তিনি। গোল করার পর এই ফরোয়ার্ডের ট্রেডমার্ক উদযাপন ছিল জিভ বের করে দুই হাতে কান ঢেকে রাখা। 

জাকারিয়াকে এভাবে আর কখনোই গোল উদযাপন করতে দেখা যাবে না। তাই এই ফুটবলারের হয়ে সালাহই ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে কাজটা করে দিলেন।

এ ব্যাপারে মিসরীয় সংবাদকর্মী মোহাম্মেদ আদম ‘লিভারপুল ইকো’কে বলেন, ‘জাকারিয়া সালাহর বন্ধু। মিসরীয় ফুটবলের সবাই তার জন্য মর্মাহত। জিভ বের করে দুই হাতে কান ঢেকে রাখা তার ট্রেডমার্ক উদ্‌যাপন। সালাহ সম্ভবত প্রিয় বন্ধুর জন্যই এমন উদ্‌যাপন করেছে। এছাড়া জাকারিয়া ৮ নম্বর জার্সি পরিধান করতো। সালাহও হাতের ইশারায় আরবিতে সংখ্যাটা বুঝিয়েছে।’ 

গতকাল হ্যাটট্রিক করার পাশাপাশি একটি রেকর্ডও ভেঙেছেন সালাহ। লিভারপুলের হয়ে ইপিএলে সর্বশেষ যে ৩৫ ম্যাচে সালাহ গোল করেছেন, তার সবগুলোই জিতেছে ক্লাবটি। তার আগে এই রেকর্ডটির মালিক ছিলেন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের সাবেক স্ট্রাইকার ওয়েইন রুনি। এছাড়া ১৯৮৮-৮৯ মৌসুমে জন অলড্রিজের পর অল রেডদের প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে লিগের প্রথম ম্যাচেই হ্যাটট্রিকের দেখা পেলেন সালাহ।








Leave a reply