এবারের আইপিএল হবে চ্যালেঞ্জিং”রায়না বলেছেন

|

চেন্নাই: চেন্নাই সুপার কিংসের তারকা অল-রাউন্ডার সুরেশ রায়না মনে করেন, সংযুক্ত আরব আমিরশাহীতে কোভিড-১৯ মহামারীর আবহে আইপিএল খেলা হবে খেলোয়াড়দের কাছে এক নতুন চ্যালেঞ্জ৷

আইপিএলের ত্রয়োদশ সংস্করণ হওয়ার কথা ছিল মার্চে৷ কিন্তু করোনাভাইরাস মহামারী কারণে আইপিএল ২০২০ স্থগিত করে দেওয়া হয়৷ তারপর আইসিসি অক্টোবরে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে হতে চলা টি-২০ বিশ্বকাপ স্থগিত করে দেওয়ার পর বিসিসিআই এই সময়ে আইপিএল করার সিদ্ধান্ত নেয়৷ তবে দেশের মাটিতে করোনা সংক্রমণ ক্রমশ বৃদ্ধি পাওয়ার ফলে আইপিএল সংযুক্ত আরব আমিরশাহীতে করার সিদ্ধান্ত নেয় বিসিসিআই৷

কোভিড-১৯ প্রোটোকলের মেন আইপিএল হবে ১৯ সেপ্টেম্বর থেকে ১০ নভেম্বর পর্যন্ত৷ ম্যাচগুলি হবে দুবাই, আবুধাবি ও শারজা এই তিনটি স্থানে৷ ডব্লিউটিএফ স্পোর্টস অ্যাপের গ্লোবাল ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হিসেব নাম প্রকাশের পরে রায়না একটি ওয়েবিনারে বলেছিলেন, ‘এই আইপিএল নিয়ে খেলোয়াড়রা কীভাবে ভাবছেন, তা দেখতে খুব আকর্ষণীয় হবে। বিভিন্ন পরিস্থিতিতে খেলতে হবে৷ আইসিসি-র প্রচুর প্রোটোকল রয়েছে৷ একই সঙ্গে খেলোয়াড়দের প্রতি দুই-তিন সপ্তাহ পর পর কোভিড-১৯ পরীক্ষা দিতে হবে৷’

বিসিসিআই-এর তৈরি এসওপি অনুসারে সংযুক্ত আরব আমিরশাহীতে প্রশিক্ষণ শুরুর আগে ভারতীয় ক্রিকেটার ও সাপোর্ট স্টাফদের কমপক্ষে পাঁচবার কোভিড-১৯ টেস্ট দিতে হবে৷ শুধু তাই নয়, তাদের সেই রিপোর্ট নেগেটিভ হতে হবে৷ এছাড়াও আইপিএল চলাকালীন প্রতি পাঁচদিন অন্তর এই পরীক্ষা করা হবে।

রায়না আরও বলেন, ‘সুতরাং, আমি বলব যে, এই সমস্ত পরীক্ষা দিয়ে আপনি মাঠে কী করতে যাচ্ছেন, সে সম্পর্কে আপনার মাথা পরিষ্কার থাকা দরকার৷ কারণ দিনের শেষে যখন আপনি খেলা হতে এবং উপভোগ করতে হবে৷’

মহামারী রোগের কারণে মার্চ মাস থেকে ঘরে বসে ক্রিকেটাররা ফিটনেসের উপর জোর দিয়েছেন৷ সুতরান অধীর আগ্রহে টুর্নামেন্টটি শুরু হওয়ার অপেক্ষায় রয়েছেন সিএসকে-র বাঁ-হাতি ব্যাটসম্যান। তিনি বলেন, ‘এই মহামারীতে প্রচুর চ্যালেঞ্জ হয়েছে৷ ফিটনেসই মূল বিষয়। ভাগ্যক্রমে, আমরা সংযুক্ত আরব আমিরশাহীর দিকে প্রথম দিকে যাচ্ছি। আমি বিশ্বাস করি, আইপিএলের আগে এই সমস্ত পরীক্ষা করা হবে৷ মনের দিক থেকে আমরা খুব ভালো থাকব কারণ আমরা সবাই গত পাঁচ মাস ধরে ঘরে বসে আছি৷ মাঠে এর প্রভাব কী পড়ে তা দেখতে মুখিয়ে রয়েছি৷’








Leave a reply