২০২২ সালের মধ্যে সব পোস্ট অফিস ডিজিটাল হবে: ডাকমন্ত্রী

|

২০২২ সালের মধ্যে দেশের পোস্ট অফিসগুলোতে ডিজিটাল সেবার আওতায় আসবে বলে জানিয়েছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

শনিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশের সম্মেলন কক্ষে ‘চতুর্থ শিল্প বিপ্লব- বাংলাদেশ প্রেক্ষাপট’ বিষয়ক এক সেমিনারে এসব বলেন মন্ত্রী।

অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি প্রধান অতিথি হিসেবে যুক্ত হয়ে মন্ত্রী বলেন, চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের ধরণ একেক দেশে একেক রকম। এজন্য সফলতার জন্য আমাদেরই পরিকল্পনা ও বাস্তবায়ন করতে হবে।

তিনি বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের ওপর সীমাবদ্ধ নয়। কৃষিকে বাদ দিয়ে পরবর্তী শিল্প বিপ্লব নয়, নতুন ক্ষেত্র নিয়ে এগিয়ে যাবে। আইসিটি এবং পোস্ট ও টেলি কমিউনিকেশন বিভাগ যেভাবে কাজ করছে তা চতুর্থ ও পরবর্তী যে কোন বিপ্লবের জন্য ডিজিটাল কানেক্টিভিটি তৈরি করেছে।

বর্তমানকে পরিবর্তন করে নতুনত্ব নিয়ে আসাই হলো আগামীর শিল্পবিপ্লব জানিয়ে বক্তারা আরও বলেন, আমাদের কর্মসংস্থানকে কার্যকর করতে হলে গবেষণা প্রয়োজন যে, কোন খাতে কতজন গ্রাজুয়েট দরকার। বাকীরা কি করবে কোন বিষয়ে পড়বে। শিক্ষাখাত ইন্টারনেট ভিত্তিক হতে হবে। চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের জন্য বেশি থাকতে নতুন তৈরির চেষ্টা। সেক্ষেত্রে শিল্প খাতে গুরুত্ব দিতে হবে।

অনুষ্ঠানে যোগাযোগ বিশেষজ্ঞ প্রকৌশলী ড. মিজানুর রহমান বলেন, দেশে ইন্টেলিজেন্স ট্রান্সপোর্ট সার্ভিস চালু হলে সড়ক দুর্ঘটনা জিরোতে চলে আসবে। যদিও এর জন্য রোড অবকাঠামো প্রয়োজন হবে।

ডিজিটালাইজেশনের ক্ষেত্রে মহাসড়কের টোল পয়েন্টগুলো ডিজিটালে গুরুত্ব দেয়া। এতে যানজট কমে আসবে বলে মনে করেন তিনি।

চতুর্থ শিল্প বিপ্লবে সফল হতে হলে পরিবেশ ও সমসাময়িক বিশ্বের সাথে এগিয়ে যেতে হবে জানিয়ে বুয়েট প্রকৌশলী সাইফুল আমিন বলেন, সব সেক্টরের সাথে সবার যুক্ত হতে হবে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান বিষয়ক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার মো. আব্দুস সবুর বলেন, বর্তমান সরকারের পদক্ষেপের কারণে টেকনোলজি ডিপ্লোম্যাসি এগিয়ে যাচ্ছে। আগামীতেও দেশকে উন্নত দেশে এগিয়ে নিতে সরকারের সবধরণের সক্ষমতা রয়েছে।

বিশেষ অতিথি হিসেবে বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেন, ২০২১ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে বড় বড় দ্বীপগুলোতে সাবমেরিন ক্যাবল ও সোলার ব্যবহারের মাধ্যমে ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ ও ইন্টারনেট নিশ্চিত করা হবে। ২০৪০ সালে ঢাকাসহ বাংলাদেশের বিদ্যুৎ ব্যবস্থা কি হবে সরকার তা নিয়ে কাজ করছে।

আইইবি প্রেসিডেন্ট প্রকৌশলী মো. নূরুল হুদার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিভিন্ন বিভাগের প্রকৌশলীরা অংশ নেন।








Leave a reply