সিদ্ধিরগঞ্জে অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন

|

নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে তিতাস গ্যাসের অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছন্নে অভিযান শুরু করেছে কর্তৃপক্ষ। মঙ্গলবার বেলা ১১টা থেকে দুপুর পর্যন্ত তিতাস ও র‌্যাবের যৌথ এ অভিযান পরিচালিত হয় সিদ্ধিরগঞ্জের আটি হাউজিং এলাকায়। এসময় তারা তিনটি নির্মাণাধিন বাড়ির অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে।

অভিযানে তিতাসের পক্ষ থেকে উপস্থিত ছিলেন, ফতুল্লা জোনাল অফিসের ব্যবস্থাপক প্রকৌশলী রবিউল ইসলাম, মিটারিং এন্ড বিজিল্যান্স বিভাগের ব্যবস্থাপক প্রকৌশলী গোলাম মোস্তফা। র‌্যাব-১১ এর পক্ষ থেকে উপস্থিত ছিলেন সহকারি পুলিশ সুপার মো. সম্রাট তালুকদার এবং ডিএডি রবিউল ইসলাম। অভিযানে তিতাস ২০০ ফুট অবৈধ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে।

অনুসন্ধানে জানা যায়, হাউজিং এলাকায় প্রায় ৫ থেকে ৭টি সড়ক ও ড্রেন নির্মাণের কাজ হাতে নেওয়া হয়েছে। রাস্তার পাশে গ্যাস লাইন থেকে বিভিন্ন বাড়ি মালিক তাদের জমিতে গ্যাস সংযোগ নেওয়ার জন্য তপন ও মোস্তফাকে প্রতি সংযোগ থেকে ২৫ থেকে ৩০ হাজার করে টাকা দিতে হয়েছে। প্রায় শতাধিক অবৈধ গ্যাস সংযোগ দিয়ে ২৫ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে এই চক্রটি। আর সংযোগ না নিলে পরে সিটি কর্পোরেশন থেকে রাস্তা কেটে গ্যাসের সংযোগ নিতে প্রায় দুই লাখ টাকা খরচ হবে বলে জানান তারা। এই ভয়েই সবাই তড়িগড়ি করে তপন ও মোস্তফার ফাঁদে পা দিয়ে অবৈধ গ্যাস সংযোগ নিয়েছিলেন।

হাউজিং আটি এলাকায় ফতুল্লা জোনাল অফিসের ব্যবস্থাপক রবিউল ইসলাম বলেন, এই অভিযান তিতাসের নিয়মিত একটি অভিযান। অবৈধ সংযোগ গ্রহণকারীদের বিষয়ে কি পদক্ষেপ নিবেন জানতে চাওয়া হলে তিনি জানান, যেসব বাড়ির মালিক এই অবৈধ সংযোগ নিয়েছে তাদের বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা করবো। যারা সংযোগটি দিয়েছে তাদেরকে আমরা এখনো শনাক্ত করতে পারিনি। তবে তাদের বিষয়েও আমরা খোঁজ নিচ্ছি।

র‌্যাব-১১ সহকারী পুলিশ সুপার মো. সম্রাট তালুকদার বলেন, র‌্যাব এর আগেও অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্নের বিভিন্ন অভিযান পরিচালনা করেছে। তিতাসের পাশাপাশি আমরাও অবৈধ সংযোগ বিচ্ছিন্নের অভিযান নিয়মিত পরিচালনা করবো।

উল্লেখ্য গত ২৮ জুলাই ‘কার গ্যাস কে দেয়’ শিরোনামে কালেরকণ্ঠে সংবাদ প্রকাশ হওয়ার পর তিতাস গ্যাস কর্তৃপক্ষ নড়েচড়ে বসে। এর ফলে তারা ধারাবাহিকভাবে অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্নের অভিযান পরিচালনা করছেন।








Leave a reply