শিশু ভাতিজিকে ধর্ষণ করে ভিডিও করলেন চাচা! ভিডিও নিয়ে থানায় ধর্ষিতা

|

কুমিল্লার দেবীদ্বারে শিশু ধর্ষণের ঘটনায় ধর্ষক চাচা সম্পর্কীয় মো. ফয়েজ উল্লাহ (২৩) নামে এক কলেজছাত্রকে আটক করা হয়েছে। পরে তাকে হাজতে চালান করেছে দেবীদ্বার থানা পুলিশ। ঘটনাটি ঘটে দেবীদ্বার উপজেলার ধামতী ইউনিয়নের তেবারিয়া গ্রামে।

এ ঘটনায় ওই শিশুকে (১০) নিয়ে তার নানি বুধবার রাতে দেবীদ্বার থানায় এসে অভিযোগ করেন। থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. জহিরুল আনোয়ারকে ধর্ষক ফয়েজ উল্লাহ কর্তৃক ধর্ষণকালে মোবাইল ফোনে ধারনকৃত ধর্ষণের ভিডিও দেখান। ওসি ভিডিও দেখে তাৎক্ষনিক ঘটনাস্থলে পুলিশ পুলিশ পাঠান। দেবীদ্বার থানার উপপরিদর্শক আব্দুস সালামের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ধর্ষককে তার নিজ বাড়ি থেকে আটক করে।

বুধবার রাত সাড়ে ১২টায় ধর্ষণের ঘটনায় শিশুটির চাচা বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মো. ফয়েজ উল্লাহকে(২৩) আসামি করে মামলা দায়ের করেন। ফয়েজ তেবারিয়া গ্রামের আব্দুল আলীমের ছেলে এবং দুয়ারীয়া এ. জি মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র।

মামলার বাদী জানান, ভিক্টিমের পিতা প্রবাসী, সে স্থানীয় একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পঞ্চম শ্রেণিতে লেখাপড়া করে। চলতি বছরের ২২ মে দুপুর অনুমান ১২টায় প্রতিবেশী চাচা সম্পর্কের ফয়েজ উল্লাহ ওই শিশুটিকে ফুসলিয়ে তার নিজ ঘরে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করেন। পরদিন ২৩ মে বেলা ১টায় ওই একই ঘরে ধর্ষণ করে এবং ধর্ষক তার মোবাইল ফোনে ধর্ষণের ছবি ও ভিডিও ধারন করেন। ওই ভিডিও এবং ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার না করলেও ধর্ষক তার একাধিক বন্ধুর মোবইল মেসেঞ্জারে পাঠায়। পরবর্তীতে ওই ভিডিও প্রকাশ হলে ভিক্টিমের নানি ভিডিওসহ থানা পুলিশের স্মরণাপন্ন হন।

মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা উপপরিদর্শক আব্দুস সালাম বলেন, মামলার আসামি ও ভিক্টিমকে আদালতে আনা হয়েছে। আদালতে ম্যাজিস্ট্রেটের নিকট আসামি ও ভিক্টিমের জবানবন্দি রেকর্ড করা হবে। আদালতের নির্দেশ পেলে ভিক্টিমকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হবে।








Leave a reply