ভিপি নূর আবারও পুলিশ হেফাজতে

|

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে ভিপি নূরকে নিয়ে গোয়েন্দা পুলিশ একটি মাইক্রোবাসে তুলে হাসপাতাল থেকে বেরিয়ে যায়। বেরিয়ে যাওযার সময় নুরের সমর্থকরা বাধা দেওয়ার চেষ্টা করেন।

রমনা ডিভিশনের ডিসি (ডিবি) এইচ এম আজিমুল হক গণমাধ্যমকে জানান, নূরের একটু হাপানি সমস্যা ছিল আগে থেকেই। এজন্য তাকে হাসপাতালে আনা হয়েছিল।

শিক্ষার্থীদের প্রশ্নের জবাবে তিনি আরো বলেন, নূরসহ সবাইকে ছেড়ে দেওয়া হবে। এদিকে রাত ১১টা ৩৫ মিনিটের দিকে নুরকে নিয়ে হাসপাতাল ত্যাগ করে ডিবি পুলিশ।

এসময় গোযন্দো পুলিশ ঢাকা মেডিক্যালের পকেট গেট দিয়ে গাড়িতে তুলে নূরকে নিয়ে বেরিয়ে যাওয়ার সময় তার সমর্থকরা সেই গাড়িতে বাধা দেওয়ার চেষ্টা করেন। এক পর্যায়ে পুলিশ নূরকে নিয়ে হাসপাতাল ত্যাগ করে।

এর আগে সন্ধ্যায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রীর করা ধর্ষণ মামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিলের সময় রাজধানীর শাহবাগ এলাকায় থেকে নূরসহ ৭ জনকে আটক করে পুলিশ।

গতকাল রবিবার (২০ সেপ্টেম্বর) রাতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) এক শিক্ষার্থী লালবাগ থানায় একটি ধর্ষণ মামলা করেন। মামলায় মোট ছয়জনকে আসামি করা হয়েছে। তাদের মধ্যে ধর্ষণে সহযোগিতাকারী হিসেবে নুরুল হক নূরের নাম উল্লেখ করা হয়েছে।

নুরুল হক নুর বাংলাদেশের একজন ছাত্রনেতা।[২][৩] ২০১৮ সালের কোটা সংস্কার আন্দোলনের সময় বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের অন্যতম যুগ্ম-আহ্বায়ক হিসেবে তিনি আলোচনায় আসেন।[৪][৫][৬][৭] তিনি ২০১৯ সালের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) নির্বাচনে সহ-সভাপতি (ভিপি) নির্বাচিত হন।

রাজনৈতিক জীবন
নুরুল হক নুর বাংলাদেশের অন্যতম আলোচিত ছাত্র আন্দোলন কোটা সংস্কার আন্দোলনের সময় বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের অন্যতম যুগ্ম-আহ্বায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।[১১] এর আগে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগের মুহসিন হলের উপ-মানব উন্নয়ন বিষয়ক সম্পাদক ছিলেন।[১২] স্কুল জীবনে তিনি ছাত্রলীগের স্কুল কমিটির দপ্তর সম্পাদক ছিলেন।[১২] এছাড়াও তিনি বিতর্ক, অভিনয়সহ বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত।[১৩][১৪][১৫]

জুন ২০২০ সালে নুর তরুণদের নেতৃত্বে একটা নতুন রাজনৈতিক দল তৈরি করার ব্যাপারে প্রকাশ্যে ঘোষণা দেন।[








Leave a reply