ঘোষণা করল প্রশাসন, দক্ষিণ আফ্রিকায় আছড়ে পড়েছে করোনার তৃতীয় ঢেউ

|

করোনা অতিমারীতে (Covid-19) বিধ্বস্ত গোটা বিশ্ব। প্রথম ঢেউয়ের পর বিভিন্ন দেশে আছড়ে পড়েছে দ্বিতীয় ঢেউ। তবে এখানেই শেষ নয়, এবার পালা তৃতীয় ঢেউয়ের। গবেষক থেকে শুরু করে চিকিৎসাবিজ্ঞানীদের সেই আশঙ্কাকে সত্যি করে দক্ষিণ আফ্রিকাতে (South Africa) ইতিমধ্যে আছড়ে পড়ল মারণ কোভিডের তৃতীয় ঢেউ (Covid-19 Third Wave)। সেদেশের স্বাস্থ্যদপ্তরের পক্ষ থেকে বৃহস্পতিবার বিবৃতি দিয়ে সরকারিভাবে সেকথা স্বীকারও করে নেওয়া হয়েছে।পাশাপাশি জানানো হয়েছে, আগের তুলনায় সংক্রমণ বৃদ্ধি পেয়েছে প্রায় ৩০ শতাংশ।

গতবছর থেকেই করোনায় বদলে গিয়েছিল গোটা বিশ্বের জনজীবন। প্রথম ঢেউয়ের পর দ্বিতীয় ঢেউয়েও বিপর্যস্ত হয় একাধিক দেশ। ভারতেও একমাস আগে চিত্রটা ছিল ভয়াবহ। এই পরিস্থিতিতে বিশ্ববাসীর চিন্তা আরও বাড়িয়েছে করোনার তৃতীয় ঢেউ। চিকিৎসা বিজ্ঞানী থেকে গবেষক-প্রত্যেকেই ইতিমধ্যেই এই প্রসঙ্গে সাবধান করেছিলেন। জানিয়েছিলেন, যেকোনও সময় আছড়ে পড়তে পারে কোভিডের আরও একটি ঢেউ। যেখানে রূপ বদলে আরও ভয়ংকর হয়ে উঠতে পারে মারণ ভাইরাসটি। সংক্রমণ ছড়াবেও আরও দ্রুত বেগে। এবারে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে শিশুরা। এই পরিস্থিতিতে দক্ষিণ আফ্রিকার ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট ফর কমিউনিকেবল ডিজিজ বা NICD-র পক্ষ থেকে টুইটে স্বীকার করে নেওয়া হল, করোনার তৃতীয় ঢেউ দক্ষিণ আফ্রিকায় প্রবেশ করেছে।

এদিনের টুইটে তারা জানায়, “এবার বলা যেতেই পারে করোনার তৃতীয় ঢেউ দক্ষিণ আফ্রিকায় প্রবেশ করেছে। কারণ ইতিমধ্যে মিনিস্টেরিয়াল অ্যাডভাইজরি কমিটি জানিয়েছে, দেশে সাতদিনের গড় সংক্রমণের (৫৯৫৯ জন) মাত্রা আগের তুলনায় অনেকটাই বেড়ে গিয়েছে। এটা করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের কারণেই হয়েছে। আগের ঢেউয়ের তুলনায় ৩০ শতাংশ বেশি বৃদ্ধি পেয়েছে সংক্রমণ।” এদিকে, এই খবর সামনে আসতেই রীতিমতো উদ্বেগ ছড়িয়েছে সাধারণ মানুষের মনে।








Leave a reply