গ্রামের নারীদের আপত্তিকর ছবি তুলে ফেসবুকে পোস্ট করাই যুবকের ‘নেশা’

|

গোপনে মোবাইল ফোনে তোলেন এলাকার নারীদের আপত্তিকর ছবি। সেই ছবিগুলোই একটি ফেক অ্যাকাইন্ট থেকে পোস্ট করেন। গ্রামের নারীদের গোসলখানা, বাথরুমসহ বিভিন্ন জায়গায় ওঁৎ পেতে থাকে তার ক্যামেরা। সেখান থেকেই তোলেন আপত্তিকর এ সব ছবি। এ ঘটনায় থানায় মৌখিক অভিযোগ করেছেন ১০০ জন। লিখিত অভিযোগ করেছেন নাসির উদ্দিন নামের একব্যক্তি। এমন ঘটনা ঘটেছে লালমনিরহাটের পাঠগ্রাম উপজেলায়।

এ ঘটনায় রিফাত হোসেন প্রধান (১৯) নামের এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পাটগ্রাম থানা পুলিশ। আটক রিফাত উপজেলার পাটগ্রাম ইউনিয়নের ৭নম্বর ওয়ার্ড বেংকান্দা ধনিরটারী এলাকার আসাদুল ইসলাম প্রধানের ছেলে।

অভিযোগ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, রিফাত এলাকার ও পার্শ্ববর্তী গ্রামের নারীদের গোসল ও প্রাকৃতিক ডাকে সারা দেওয়ার সময় গোপনে নিজের ফোনে নগ্ন ছবি ধারণ করেন। এই নগ্ন ছবি ফেসবুকে পোস্ট করেন তিনি। গত বৃহস্পতিবার ওই ফেসবুক আইডিতে স্ত্রীর আপত্তিকর ছবি দেখে থানায় ওইদিনই অভিযোগ দেন একব্যক্তি। গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় পুলিশ অভিযান চালিয়ে নিজ বাড়ি থেকে রিফাত হোসেন প্রধানকে গ্রেপ্তার করে।

অভিযোগের বিষয়ে নাসির উদ্দিন বলেন, রিফাত হোসেন প্রধান আমার স্ত্রীর গোপনে নগ্ন ছবি ধারণ করে ফেসবুকে ভাইরাল করে দেয়। এ ছাড়াও তিনি প্রতিবেশী অনেকের মা, বোন, স্ত্রীসহ বিভিন্ন নারীর নগ্ন ছবি গোপনে তুলে ওই ফেসবুক আইডিতে আপলোড দেয়।

রিফাতের মা রিনা বেগম বলেন, আমার ছেলে রিফাতের মাথার সমস্যা। তাকে দিয়ে অন্য কেউ এ ধরণের ছবি প্রকাশ করেছে।

এ বিষয়ে পাটগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুমন কুমার মহন্ত বলেন, পর্নোগ্রাফি আইনে মামলায় রিফাতকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। রবিবার লালমনিরহাট আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

ছবি (ইংরেজি: Picture) এক ধরনের চিত্রকর্ম যা সাধারণত দুই মাত্রার চিত্র হয়ে থাকে। ছবি মূলত কোন বস্তুর ছোট আকারের প্রতিকৃতি। ছবি কোনো বস্তু বা ব্যক্তির হতে পারে।

ছবি ( English :- Photo/Picture/image) এটা হলো এক রকমের প্রতিফলিত রশ্মির সাহায্য কামেরা বন্দী করা হয়। এটা কয়েক ধরনের হয়। কেউ চিত্র শিল্পী দিয়ে এটা অংকন করায় বা করে।

তবে বর্তমানে এমন খুব কম দেখা যায়। তবে অনেকে সখের বসে এমন শিল্পী দিয়ে আঁকিয়ে নেন।

বেশিরভাগই ক্যামেরা দিয়ে ফ্রেম বন্দী করে থাকে। পরে হয়তো নতুন করে এডিটিং করে ব্যবহার করে থাকে।








Leave a reply