হাতের করতলের মহত্ত্বপূর্ণ কয়েকটি চিহ্ন

|

জ্যোতিষ শাস্ত্রানুসার করতলের কয়েকটি চিহ্নাদি বিচার:
🤲 কারো করতলে (হাতের চেটোয়) কাষ্ট পাদুকা অর্থাৎ খড়ম আকৃতির কোন চিহ্ন থাকলে সেই ব্যক্তি অলৌকিক
শক্তিধর হয়, এরা জীবনে অত্যন্ত প্রভাবশালী, ধার্মিক, জননেতা, রাষ্ট্রনেতা, যোগী কিংবা মহান সাধক হয়ে থাকে।
🤲করতলে খড়্গ চিহ্ন থাকলে মানুষ জীবনে খুবই সুখী ও সাহসী হয়ে থাকে, এরা জীবনে নানা ক্ষেত্রে জয়লাভ করে থাকে। অনেক প্রতিকূল পরিস্থিতির মধ্যেও এরা এগিয়ে যেতে পারে , এদের শত্রুও খুবই কম হয়ে থাকে।
🤲করতলে শঙ্খ চিহ্ন থাকলে জাতক জীবনে প্রচুর ধন সম্পদ অর্জন করে থাকে, এরা জীবনে খুবই ধনী ও প্রচুর সম্পদশালী হয়ে থাকে ।

🤲করতলে ছত্র অর্থ্যাৎ ছাতা চিহ্ন থাকলে জাতক রাজতুল্য সম্পদের অধিকারী হয়, এবং জীবনে এরা প্রচুর সম্মান অর্জন করে থাকে।
🤲করতলে পদ্মপত্র চিহ্ন থাকলে জাতক দরিদ্রের ঘরে জন্ম নিলেও এরা রাজতুল্য ক্ষমতার অধিকারী ও প্রচুর সম্পদশালী হয়।
🤲করতলে (পুরুষের) যোনি চিহ্ন থাকলে জাতক খুবই সম্ভোগকারী হয়ে থাকে , এদের খুবই নারীসঙ্গ প্রিয় হয়ে থাকে। এবং নারীর করতলে লিঙ্গ চিহ্ন থাকলে নারী খুবই কামুকা হয়ে থাকে, এরা সবসময় পুরুষদের সাথে রতি মিলন করতে লালায়িত হয়ে থাকে।
🤲কোন জাতকের করতলে তীর ধনুক প্রভৃতি চিহ্ন থাকলে জাতক গাড়ী বাড়ির মালিক হয়ে থাকে।এবং জীবনে প্রচুর সুখভোগ করে থাকে।
🤲করতলে তুলাদন্ড অর্থাৎ দাড়িপাল্লার চিহ্ন থাকলে জাতক সুবিচারক ,জজ ম্যাজিস্ট্রেট হয়ে থাকে। এরা জীবনে খুবই যশ, খ্যাতি, অর্থ সম্পদ অর্জন করে থাকে এবং মানুষেও এদের খুব সম্মান করে থাকে।
🤲করতলে চক্র, নিশান, স্বস্তিক বা প্যাগাডো চিহ্ন থাকলে জাতক খুবই ধার্মিক হয়। এরা সর্ব শাস্ত্রে পারদর্শী, জ্ঞানী, ও খ্যাতিমান হয়ে থাকে।
🤲করতলে সূর্য্য চিহ্ন থাকলে জাতক খুবই জ্ঞানী ও বিদ্বান হয়ে থাকে।
🤲করতলে ভাগরেখার শেষ প্রান্তে ত্রিশূল বা ডমরু চিহ্ন থাকলে জাতক মহান দার্শনিক , সাধক বা সন্যাসী হয়ে থাকে ।
🤲করতলে গজ অর্থাৎ হাতির চিহ্ন থাকল মানুষ কোটিপতি হয় । এদের প্রচুর ধন সম্পদ হয়ে থাকে। কোন নারীর হাতে এরকম চিহ্ন থাকলে কোটিপতি স্বামীর সাথে বিবাহ হয় এবং জীবনে খুবই সুখ ভোগ করে থাকে।
🤲করতলে মৎস্যপুচ্ছ চিহ্ন থাকলে জাতক বিদ্ধবান ও ধার্মিক হয়ে থাকে।
🤲করতলে ধেনু, চোখ বা মৎস্য চিহ্ন থাকলে জাতক খুবই ধনী,মানী ও বিদ্বান হয়ে থাকে।
🤲করতলে ঘট চিহ্ন থাকলে জাতক খুবই অর্থ সঞ্চয়ী হয়ে থাকে।
🤲করতলে তোরণ চিহ্ন থাকলে জাতক জীবনে খুবই অর্থ উপার্জন করে থাকে।
🤲করতলে কুণ্ডল চিহ্ন থাকলে জাতক মহা ধনী ও খ্যাতিমান হয়ে থাকে।
🤲করতলে বজ্র চিহ্ন থাকলে জাতক মহা প্রতাপী, ক্ষমতাশালী ও বিরাট ধনী হয়ে থাকে।এরকম জাতকের শরীর ও খুব বলিষ্ঠ হয়ে থাকে , এরকম জাতকের প্রতি নারীরা খুবই আকৃষ্ট হয়ে থাকে।
🤲করতলে পদ্ম চিহ্ন থাকলে জাতক খুবই ধনবান হয়ে থাকে। পদ্ম চিহ্ন ও ধনু চিহ্ন একত্রে থাকলে জাতক রাজতুল্য ব্যক্তি হয়ে থাকে। নারীদের হাতে এরকম পদ্মচিহ্ন থাকলে নারী খুবই সৌভাগ্যবতী ও স্বামী সোহাগী হয়ে থাকে।
🤲করতলে বেদী চিহ্ন থাকলে জাতক ধর্মপরায়ণ, ও ধনবান হয়ে থাকে।
🤲করতলে পালকি বা অশ্ব চিহ্ন থাকলে জাতক খুবই ধনী ও মানী হয়ে থাকে।
🤲করতলে অসি, চক্র, বজ্র, খড়্গ, ধনু বা কুম্ভ চিহ্ন থাকলে জাতক সামরিক বিভাগে উচ্চ পদ পেয়ে থাকে।
🤲করতলে পাখা চিহ্ন থাকলে জাতক জীবনে প্রচুর পরিমানে অর্থ রোজগার এবং খুবই নারীসঙ্গ লাভ করে থাকে ।
🤲করতলে পালক চিহ্ন থাকলে জাতক খুবই বিদ্বান ও জ্ঞানী হয়ে থাকে।








Leave a reply