মাস্ক পরে কানে ব্যথা? জানুন সমাধান

|

করোনাভাইরাস বিশ্বের মানুষের জীবনযাত্রা পাল্টে দিয়েছে অনেকটাই। এখন প্রতি পদক্ষেপেই নিতে হচ্ছে বাড়তি সতর্কতা। হাতে গ্লাভস, মুখে মাস্ক, বারবার সাবান-পানি দিয়ে হাত ধোয়া বা স্যানিটাইজ করতেই হচ্ছে। ঘরে থেকে অফিস, সবখানেই বদলেছে জীবনযাত্রা। বেড়েছে সামাজিক-শারীরিক দূরত্বও।

দীর্ঘক্ষণ মাস্ক পরে থাকার কারণে নানা সমস্যা দেখা দিচ্ছে। দেখা দিচ্ছে কানের পেছনে ব্যথা। স্বাস্থ্য ও জীবনধারাবিষয়ক ওয়েবসাইট বোল্ডস্কাইয়ের প্রতিবেদন অনুযায়ী, আসুন জেনে নিই এমন কিছু টিপস, যার মাধ্যমে কানের ব্যথা থেকে মুক্তি পেতে পারেন।

নো এলাস্টিক মাস্ক

কানের ব্যথা এড়াতে নো এলাস্টিক মাস্ক ব্যবহার করতে পারেন। এলাস্টিক দেওয়া মাস্ক পরলে কানে ব্যথা হয়। কানের ব্যথা থেকে মুক্তি পেতে নো এলাস্টিক মাস্ক পরুন।

বরফের ব্যবহার

অফিস থেকে বাড়ি ফেরার পর কানে বরফ লাগাতে পারেন। বরফ দিয়ে ম্যাসাজ করলে ব্যথা উপশম হয়। তবে এর পর কানে অবশ্যই ময়েশ্চারাইজার লাগাবেন।

ক্লিপ মাস্ক

নারীরা সাধারণত চুলে ক্লিপ লাগান। সেই ক্লিপ দিয়ে কানের ব্যথা রুখতে পারেন। ক্লিপ মাস্ক পরার জন্য আগে চুল বেঁধে নিন, তারপর মাস্ক পরুন। মাস্কের এলাস্টিক কানে আটকানোর বদলে তা ক্লিপের ভেতর ঢুকিয়ে কানের পেছনের চুলের সঙ্গে আটকে দিন। এতে কানের ওপর এলাস্টিকের চাপ পড়বে না।

ঘরে তৈরি মাস্ক

মাস্ক পরার ফলে কানে যে ব্যথা হয়, তা সাধারণত কেনা মাস্ক ব্যবহার করলে হয়। তাই কানের ব্যথা কমাতে ঘরে তৈরি কাপড়ের মাস্ক ব্যবহার করতে পারেন।

এন৯৫ মাস্ক বা এন৯৫ রেসপিরেটর হল একটি মুখে দেয়া বস্তুকণা-পরিশোধন রেসপিরেটর যেটি মার্কিন সংস্থা ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট ফর অকুপেশনাল সেফটি অ্যান্ড হেলথ (NIOSH) এর বায়ু পরিশোধন এন৯৫ (N95) এর মানদণ্ড অনুযায়ী তৈরী, যার মানে হল এটির মাধ্যমে অন্তত ৯৫% বালুকণা পরিশোধিত হয়। আর এটি যে পুরোপুরি তেল প্রতিরোধী তা কিন্তু নয়; আরেকটি মানদণ্ড হল, পি৯৫, যেখানে এই তেল প্রতিরোধী কার্যকর হবে। এন৯৫ সব সময় বস্তুকণা পরিশোধন করার ক্ষেত্রে ব্যবহৃত হয়। [১] এটি একটি যান্ত্রিক পরিশোধন রেসপিরেটর, যা গ্যাস বা বাষ্পের বিরুদ্ধে নয় বরং বালুকণা থেকে ব্যবহারকারীকে সুরক্ষা দেয়। [২]

এই এন৯৫ মাস্কের সাথে আরো অন্য রেসপিরেটর যুক্ত থাকতে পারে যা যুক্তরাষ্ট্র বাদে অন্য দেশে তাদের নিজস্ব নিয়ম অনুযায়ী হতে পারে। যেমন ইউরোপীয় ইউনিয়নে এফএফপি২ (FFP2) রেসপিরেটর এবং চীনে কেএন৯৫ (KN95) রেসপিরেটর ব্যবহৃত হয়। অবশ্য, পরিশোধন দক্ষতা, পরীক্ষা এজেন্ট আর প্রবাহ হার এবং গ্রহণযোগ্য প্রেশার ড্রপ এর মতো বিষয়ে তাদের কার্যকারিতা উপর ভিত্তি করে কিছুটা আলাদা মানদণ্ড ব্যবহার করা হয়। [৩][৪]

এন৯৫ মাস্ক বানানোর জন্য সিনথেটিক পলিমার ফাইবারের সূক্ষ্ম জাল প্রয়োজন, যা তন্তুহীন পলিপ্রোপিলিন ফ্যাব্রিক নামেও পরিচিত,[৫] যেগুলো গলিত প্রবাহ নামক একটি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে উৎপাদিত হয় যার দ্বারা অভ্যন্তরীণ পরিশোধন স্তর তৈরী হয়। আর এই অভ্যন্তরীণ স্তরেই সব বিপজ্জনক কণা পরিশোধিত হয়।








Leave a reply