নষ্ট দুধের সঠিক ব্যবহার

|

খুবই পুষ্টিকর একটি খাবার হচ্ছে দুধ। যা গরম করে খাওয়া হয়। তবে অনেক সময় দুধ গরম করতে গিয়ে দেখা যায় তা নষ্ট হয়ে গেছে। আর নষ্ট দুধ খাওয়া যাবে না ভেবে অনেকেই ফেলে দেন।
আজ থেকে আর এই ভুল নয়। নষ্ট হলেও সেই দুধ ফেলে দেবেন না। কারণ নষ্ট বা কেটে যাওয়া দুধেরও রয়েছে নানা ব্যবহার। চলুন জেনে নেয়া যাক সেগুলো-

দুধ যদি ফেটে যায়, তা অনায়াসে সালাড ড্রেসিং-এর কাজে ব্যবহার করতে পারবেন। তবে খেয়াল রাখবেন দুধটা যেন পাস্তুরাইজড মিল্ক না হয়।

ঘরের দুধ ফেটে গেলে তা ফেলে না দিয়ে চিজ বানিয়ে ফেলুন। কীভাবে ঘরে চিজ বানাবেন, তার রেসিপি ইন্টারনেটে সহজেই পেয়ে যাবেন।

প্যানকেক, কেক এবং ওয়াফেল-এর মতো অনেক ডেজার্টেই ফেটে যাওয়া দুধ দিতে হয়। তাই দুধ ফেটে গেলে ডেজার্ট তৈরি করতে পারেন।

নষ্ট হয়ে যাওয়া দুধ আপনি খেতে না পারলেও আপনার পোষা বেড়ালটা কিন্তু ভালোবেসেই খাবে। কারণ নষ্ট দুধের গন্ধ ওদের ভালো লাগে।

নষ্ট দুধ আপনার ত্বকের জন্য কিন্তু দারুণ উপকারী। কেটে যাওয়া দুধ মুখে ফেস মাস্কের মতো লাগিয়ে নিন। শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলুন, ত্বক ঝলমল করে উঠবে।

বাগানে গাছের গোড়ায় নষ্ট দুধ দিলে আপনাকে সার দিতে হবে না। দেখবেন আপনার নষ্ট হয়ে যাওয়া দুধেই কীভাবে চারাগাছগুলো তরতরিয়ে বাড়তে থাকে।








Leave a reply