করোনাকালে নতুন চাকরি পেতে করণীয়

|

মহামারির এই সময় অন্য সব খাতের মতোই চাকরির বাজারেও বিরুপ প্রভাব পড়েছে। করোনাভাইরাসের কারণে অনেকেই চাকরি হারিয়েছেন। এমন পরিস্থিতিতে দিশেহারা অবস্থার মুখে পড়েছেন বেকার জনগোষ্ঠী। সদ্য পাশ করা কর্মহীন গ্র্যাজুয়েটদের সঙ্গে সঙ্গে করোনার কারণে চাকরি হারিয়ে নতুন করে বেকার হয়েছেন এমন মানুষের সংখ্যাও কম নয়।
আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থা (আইএলও)-এর দেয়া তথ্য অনুযায়ী, করোনাভাইরাস সংকটের কারণে বাংলাদেশে প্রতি চারজন যুবকের মধ্যে একজন কর্মহীন বা বেকার রয়েছে (২৭.৩৯%)। ফেব্রুয়ারি মাস থেকে এই বেকারত্ব বাড়ছে। তবে বিশেষজ্ঞদের মতে, করোনাভাইরাস মহামারির কারণে শুধু বাংলাদেশে নয় বরং বিশ্বের বিভিন্ন দেশেই চাকরির সংকট দেখা দিয়েছে।

তবে অনেক জায়গায় পদশূন্য হওয়ায় নতুন নিয়োগ দেয়া হচ্ছে। চাইলে আপনিও আবেদন করতে পারেন। এক্ষেত্রে কিছু বিষয় মাথায় রাখুন। এতে করে আপনার নতুন চাকরি পেতে সুবিধা হবে। জেনে নিন কী করবেন-

প্রথমেই নিজের একটি আকর্ষণীয় অনলাইন প্রোফাইল তৈরি করুন। যাতে করে একদিকে আপনার জন্য যেমন চাকরির আবেদন করা সহজ হবে ঠিক তেমনি অন্যদিকে নিয়োগকর্তারাও আপনাকে সহজে খুঁজে পাবে। প্রোফাইল তৈরি করার সময় আপনার মূল দক্ষতার জায়গাগুলো হাইলাইট করতে হবে। সিভি বা বায়োডাটা অথবা জীবন বৃত্তান্ত বানানোর সময় আপনার দক্ষতাগুলোকে অগ্রাধিকার দিন। অভিজ্ঞতাগুলোকে এর পর স্থান দিন।

অন্যদের থেকে নিজেকে আলাদা করে তুলে ধরুন। করোনা পরবর্তী পরিস্থিতিতে চাকরির বাজারে প্রতিযোগিতা সাধারণ সময়ের চেয়ে অনেকটাই বেশি। এক্ষেত্রে অন্যদের থেকে নিজেকে আলাদা প্রমাণ করুন। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এক্ষেত্রে ব্যক্তিগত পরিচয় অনেকটাই কাজে আসতে পারে।

চাকরি পাওয়ার ক্ষেত্রে খুবই গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে, নিয়োগকর্তা এবং দায়িত্ব সম্পর্কে জানা। আপনি যে প্রতিষ্ঠান বা পদের জন্য আবেদন করছেন সে বিষয়ে অবশ্যই জানতে হবে।

কোনো কাজকে ছোট মনে করবেন না। পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে চাকরি লাভের ক্ষেত্রে একটি বড় বিষয় হচ্ছে ধৈর্য্য। বেতন বা সুযোগ সুবিধা কম হলেও সেখান থেকে শুরু করুন।

অভ্যস্ততা থেকে বেরিয়ে আসুন। দীর্ঘদিন ধরে একটি চাকরি করতে করতে হয়তো তাতে অভ্যস্ত হয়ে পড়েছেন। হয়তো একটা নির্দিষ্ট পরিমাণ বেতনও পেতেন। তবে পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে তাকে মাথায় রাখতে হবে যে, কাজের সেক্টর একই নাও থাকতে পারে, বেতনের জায়গাটাতে হয়তো কম্প্রোমাইজ করতে হতে পারে।

মাল্টি-টাস্কিং হতে হবে। আগে যেমন যে পদের জন্য নিয়োগ দেয়া হচ্ছে শুধু সেই পদের দায়িত্ব এবং যোগ্যতা থাকলেই তাকে নিয়োগ দেয়া হতো। কিন্তু করোনা পরবর্তী পরিস্থিতিতে তা বদলে গেছে। এখন সংশ্লিষ্ট পদের যোগ্যতা ছাড়াও আইটি বা প্রযুক্তি সম্পর্কিত দক্ষতা থাকাটা খুব জরুরি। এজন্য সব বিষয়ে ধারণা রাখুন।

নিজে নতুন কিছু করার চেষ্টা করুন। যাদের চাকরি চলে গেছে তাদের নতুন চাকরি পেতে সমস্যাই হবে। তবে এক্ষেত্রে প্রযুক্তিগত নতুন দক্ষতা বাড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে নিজে নতুন কিছু করার চেষ্টা করতে হবে। নতুন কোনো প্রতিষ্ঠান বা সেক্টরে কাজ করার মানসিকতা থাকতে হবে।

সূত্র:বিবিসি








Leave a reply