এক পিৎজা খেলে হাঁটতে হবে ৪ ঘণ্টা!

|

আমাদের শরীরে প্রতিদিন যে পরিমাণ ক্যালরি দরকার তার চেয়ে যদি বেশি পরিমাণ খাওয়া হয় তখন সেই বেশি ক্যালরি ধ্বংস করতে ব্যায়ামের প্রয়োজন হয়। নচেৎ তা স্থূলতায় পরিণত হয়। তাই গবেষকরা বলছেন একটি পিৎজায় যে পরিমাণ ক্যালরি রয়েছে, তা ব্যয় করতে হলে হাঁটতে হবে অন্তত চার ঘণ্টা। একটি চকলেট বার খেলে দৌড়াতে হবে ২২ মিনিট।

শুধু তাই নয়, আমরা যে কোমল পানীয় খাই তা খেলেও দৌড়াতে হবে ১৩ মিনিট এবং একটি স্যান্ডউইচ খেলে হাঁটতে হবে ১ ঘণ্টা ২২ মিনিট। এ ধরনের তথ্য খাবারের মোড়কে লেখা থাকলে ভোক্তাদের মধ্যে সচেতনতা তৈরি হয়। ফলে প্রয়োজনের বেশি খাবার গ্রহণে বিরত থাকার ক্ষেত্রে এটি ইতিবাচক ভূমিকা রাখে বলে গবেষকদের দাবি।

যুক্তরাজ্যের লফবারো ইউনিভার্সিটির গবেষকরা পর্যবেক্ষণের ভিত্তিতে তারা বলছেন, মোড়কের গায়ে এ ধরনের লেবেলিং থাকলে একজন ব্যক্তি দিনে অন্তত ২০০ ক্যালরি কম গ্রহণ করেন। এ গবেষণার সঙ্গে যুক্ত বিজ্ঞানীরা বলছেন, খাদ্যদ্রব্যের মোড়কে ওই খাবার খেলে তা থেকে পাওয়া ক্যালরি পোড়াতে মানুষকে কতক্ষণ ব্যায়াম করতে হবে, তা উল্লেখ থাকা উচিত। এ ধরনের তথ্য খাবারের জ্বালানি ব্যয় সম্পর্কে ভোক্তাদের ধারণা দেয়।

আমরা যে খাদ্যদ্রব্য বা পানীয় খাই তার শক্তি পরিমাপ হয় ক্যালরি দিয়ে। শরীরকে কর্মক্ষম রাখতে একজন পুরুষের দৈনিক ২৫০০ কিলোক্যালরি এবং একজন নারীর দৈনিক ২০০০ কিলোক্যালরি দরকার হয়। যে পরিমাণ ক্যালরি দরকার, তার চেয়ে বেশি গ্রহণ করলে দেহে স্থূলতা দেখা দেয়।

যুক্তরাজ্যের গবেষণাটির নেতৃত্বে থাকা অধ্যাপক আমান্ডা ডালি বলেন, আমরা বিভিন্নভাবে মানুষকে বোঝানোর চেষ্টা করছি, তারা যাতে তাদের খাবার সম্পর্কে সঠিক সিদ্ধান্ত নেয় এবং শারীরিকভাবে সক্রিয় থাকেন। খাবারের লেবেলে যদি ব্যায়াম ও ক্যালরি সম্পর্কিত তথ্য থাকে, তাহলে মানুষ বুঝতে পারে, তারা কী খাচ্ছেন। এতে খাবারের ব্যাপারে আরও ভালো সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন তারা।

তথ্যসূত্র :বিবিসি।








Leave a reply