স্ট্রেচ মার্ক দূর করুন ঘরোয়া উপায়েই

|

শরীরের বিভিন্ন স্থানে ফাটা ফাটা দাগ দেখা যায়, যাকে মূলত স্ট্রেচ মার্ক বলা হয়। বিভিন্ন কারণে শরীরে স্ট্রেচ মার্ক হতে পারে। ওজন বৃদ্ধির পর হঠাৎ আবার ওজন কমলে এটি তৈরি হতে দেখা যায়। বাড়তি আয়তন ঢাকার জন্য চামড়াতে টান পড়ে, ওজন কমে গেলে সেই টানটান হওয়া চামড়া কুঁচকে ভাঁজ হয়ে স্ট্রেচ মার্ক হয়ে থাকে। গর্ভবতী মহিলাদের প্রসব পরবর্তী সময়ে স্ট্রেচ মার্ক হয়। হাঁটুর নিচে, ঘাড়ে, বাহুতে, পেটে ও কোমরের দিকে স্ট্রেচ মার্ক বেশি দেখা যায়।
তবে ঘরোয়া উপায় কাজে লাগিয়ে সহজেই স্ট্রেচ মার্ক দূর করা সম্ভব। জেনে নিন তেমনই কয়েকটি অব্যর্থ ঘরোয়া উপায়।

১.প্রতিদিন যে কোনও ধরণের প্রয়োজনীয় জিনিসের সঙ্গে আমন্ড অয়েল মিশিয়ে নিন। এরপর সেই মিশ্রণ স্ট্রেচ মিশ্রণের উপর লাগিয়ে ফেলুন। কয়েক মিনিট রেখে দেওয়ার পর, তা ধুয়ে ফেলুন। স্ট্রেচ মার্ক দূর হবে।

২.লেবুর রসের সঙ্গে বেকিং সোডা মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। এরপর স্ট্রেচ মার্কের উপর ব্যবহার করুন ওই মিশ্রণ। গরম পানি দিয়ে ধুয়ে, ময়শ্চারাইজার লাগান। উপকার পাবেন।

৩.স্ট্রেচ মার্ক দূর করতে লেবুর রসও ব্যবহার করতে পারেন। প্রতিদিন স্ট্রেচ মার্কের উপর লেবুর রস মেখে নিন। এরপর ১০ মিনিট রেখে গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ময়শ্চারাইজার লাগান। উপকার পাবেন।
৪.একটি বোতলে অ্যাপেল সিডার ভিনেগার ভরে নিন। এরপর প্রতিদিন স্ট্রেচ মার্কের উপর সেটা স্প্রে করুন। ঘুমোতে যাওয়ার আগে প্রতিদিন নিয়ম করে ব্যবহার করুন অ্যাপেল সিডার ভিনেগার। এরপর সকালে তা ধুয়ে ফেলুন। উপকার পাবেন।

৫.স্ট্রেচ মার্ক নির্মূল করতে হলুদও বেশ উপকারি। দই-এর সঙ্গে হলুদ মিশিয়ে যদি স্ট্রেচ মার্কের উপর ব্যবহার করতে পারেন, তাহলে উপকার পাবেন। প্রতিদিন ওই মিশ্রণ স্ট্রেচ মার্কের উপর লাগাতে হবে এবং ধুয়ে ফেলতে হবে গরম জল দিয়ে। এরপর সেখানে ময়শ্চারাইজার ব্যবহার করুন। দূর হবে স্ট্রেচ মার্ক।

৬. স্ট্রেচ মার্ক দূর করতে ব্যবহার করুন জোজোবা অয়েল। প্রতিদিন যদি আপনি জোজোবা অয়েল ব্যবহার করতে পারেন, তাহলে যেমন ত্বক নরম থাকবে, তেমনি সেখানে নতুন করে কোষও তৈরি হবে।








Leave a reply