সন্তানকে অতিরিক্ত পানি খাওয়ালে হবে যে ক্ষতি

|

সন্তানের সুস্বাস্থ্যের জন্য মা বাবা তার খাওয়া-দাওয়ার অনেক খেয়াল রাখেন। বিশেষ করে শিশুরা একেবারেই পানি খেতে চায় না। আর তা নিয়েই মা বাবা থাকেন চিন্তায়। কারণ একবার পানি না খাওয়ার অভ্যাস হলে তা ফিরানো কঠিন। তবে অতিরিক্ত পানি খাওয়াও কিন্তু বিপদজনক। তাই সন্তানকে পানি দিতে হবে পরিমান মেনে।

একটি শিশুর শরীরের ৭৫% ফ্লুইড থাকে। শিশু যত বড় হতে থাকে, জলীয় পদার্থের পরিমান কমে ৬০% হয়। শরীরের জন্য পানি তাই অত্যন্ত প্রয়োজনীয়। তবে অতিরিক্ত পানিও বিপদ ডেকে আনতে পারে।

দিনে প্রাপ্তবয়স্কদের ২ লিটার করে পানি খাওয়া উচিত একথা আমরা সকলেই জানি। কিন্তু একটি শিশুর দিনে কতটা পানি খাবে? কী বলছেন চিকিৎসকরা জানেন তা?

একটি শিশুর শরীরে দিনে কতটা পানির প্রয়োজন তা তার বয়স ও লিঙ্গ অনুযায়ী নির্ধারিত হয়। তার সঙ্গে যে পরিবেশে সে বড় হচ্ছে, তাও শরীরে ফ্লুইডের চাহিদার সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত।

আমাদের দেশে ৪-৮ বছরের শিশুরা দিনে ১.১ লিটার থেকে ১.৩ লিটার পর্যন্ত পানি খাবে।

৯-১৩ বছর বয়সী মেয়েদের দিনে ১.৩ থেকে ১.৫ লিটার পর্যন্ত পানি প্রয়োজন।

৯-১৩ বছর বয়সী ছেলেদের প্রয়োজন দিনে ১.৫ থেকে ১.৭ লিটার পর্যন্ত পানি।

সরাসরি পানি ছাড়াও দুধ, ফলের জুস থেকেও ফ্লুইড প্রবেশ করে আপনার সন্তানের শরীরে।

কিন্তু কীভাবে বুঝবেন শিশুর শরীরে পানি শূন্যতা হচ্ছে এবং পানি দরকার। শিশুদের শরীরে পানির অভাব দেখা দিলে খিটখিটে মেজাজ, মনঃসংযোগের অভাব, রুক্ষ ত্বকের সমস্যা দেখা দিতে পারে।

বাচ্চারা একবারে বেশি পানি খেতে পারে না। তাই একটু একটু করে বারে বারে পানি খাওয়ানো দরকার। কোথাও যাওয়ার আগে, খাওয়া শুরু করার আগে পানি খাওয়ান। বাইরে কোথাও গেলে সঙ্গে পানির বোতল রাখুন।








Leave a reply