বডি ম্যাসাজ অয়েল হিসেবে কোন তেল সবচেয়ে ভাল? জেনে নিন

|

বডি ম্যাসাজের উপকারিতা সম্পর্কে আমরা কম-বেশি সকলেই অবগত। প্রায় ২০০ বছরেরও বেশি সময় ধরে এটি চলে আসছে। ভারতীয় আয়ুর্বেদ শাস্ত্রে ম্যাসাজ-এর গুরুত্ব অনেক। আমাদের মা-ঠাকুমাদের মুখেও আমরা তেল মালিশের উপকারিতা সম্পর্কে শুনেছি। এখনও অনেক বাড়িতেই ছোটো শিশুদের তেল মাখিয়ে ম্যাসাজ করার রীতি প্রচলিত। কারণ তেল দিয়ে শিশুর দেহে মালিশ তাদের বিকাশের জন্য অত্যন্ত উপকারি।

ম্যাসাজ থেরাপি বিভিন্ন রোগের চিকিৎসাও করতে পারে। এটি আমাদের হাড়কে আরও শক্তিশালী করে, ঘুম ভাল হয়, স্নায়ুতন্ত্র ঠিক রাখে এবং পাকস্থলীর সমস্যা রোধ করতে সহায়তা করে। তবে ম্যাসাজ করার জন্য সঠিক তেল নির্বাচন করাও খুব গুরুত্বপূর্ণ। নিশ্চয়ই ভাবছেন, কোন তেল ত্বকের জন্য সবচেয়ে ভাল? এই আর্টিকেলে আমরা এই বিষয়েই আপনাদের জানাব।

নারকেল তেল
নারকেল তেল ত্বককে হাইড্রেট করতে সহায়তা করে। এই তেল চুলের জন্য কতটা উপকারি তা আমরা সবাই জানি। এতে অ্যান্টিব্যাকটিরিয়াল, অ্যান্টি-ফাঙ্গাল এবং ময়শ্চারাইজিং বৈশিষ্ট্য রয়েছে, যা ত্বক পরিষ্কার করতে সহায়তা করে। নারকেল তেল ক্লিনজার এবং লিপ বাম হিসেবেও ব্যবহার করা যেতে পারে।

সরিষা তেল
সরিষার তেল একটু চটচটে হয়, কিন্তু এটি অন্যতম সেরা ম্যাসেজিং অয়েল। এটি প্রদাহ এবং ব্যথা কমাতে সহায়তা করে। বিশেষত শীতকালে ত্বকে হালকা গরম সরিষার তেল প্রয়োগ করলে, ত্বক শুষ্ক থাকে না। এতে উপস্থিত যৌগগুলি ক্যান্সারের কোষের বৃদ্ধি আটকায়, চুল ও ত্বকের স্বাস্থ্যের উন্নতি করতে পারে।

অলিভ অয়েল
অলিভ অয়েল হালকা ম্যাসাজের জন্য সবচেয়ে ভাল। অলিভ অয়েল চট করে আমাদের ত্বকের গভীরে প্রবেশ করে না, এটি ত্বকে খুব ধীরে ধীরে শোষিত হয়। এই তেল পেশী রিল্যাক্স করে এবং আর্দ্রতা ধরে রাখার জন্য উপযুক্ত। এছাড়াও এটি রক্ত ​​সঞ্চালন বাড়ায়, ব্যথা কমায়, পেশীতে টান ধরা থেকে বাঁচায়। নিয়মিত এই তেল ব্যবহার করলে ত্বককে অক্সিডেটিভ স্ট্রেস থেকে রক্ষা করতে পারে।

আমন্ড অয়েল
ম্যাসেজিং অয়েলের মধ্যে আমন্ড অয়েল বেশ জনপ্রিয়। ফ্যাকাশে হলুদ রঙের এই তেল খুব একটা চটচটে নয় এবং এতে তীব্র গন্ধও নেই। এটি খুব তাড়াতাড়ি ত্বকের গভীরে প্রবেশ করে এবং রোদে পোড়া ত্বককেও সুস্থ রাখে। এর শক্তিশালী অ্যান্টিফাঙ্গাল বৈশিষ্ট্য ত্বকে চুলকানি, লাল হয়ে যাওয়া থেকে বাঁচায়।

তিলের তেল
হাড় শক্তিশালী করার জন্য তিলের তেল সবচেয়ে ভাল। এটি তিল বীজ থেকে তৈরি হয়, যা তামা, ম্যাগনেসিয়াম, ক্যালসিয়াম, ওমেগা-৩ ফ্যাট এবং প্রোটিনের দুর্দান্ত উৎস। এটি আমাদের মস্তিষ্ক ভাল রাখে, ত্বককে ময়েশ্চারাইজ করতে সহায়তা করে।

বডি ম্যাসাজ করার সঠিক পদ্ধতি
বডি ম্যাসাজের সবচেয়ে সঠিক সময় হল সকালে, স্নান করার আধ ঘণ্টা আগে। হাতে কিছুটা তেল নিয়ে ১৫ মিনিট ধরে আপনার পুরো শরীরে আলতোভাবে ম্যাসাজ করুন।








Leave a reply