দ্রুত সিদ্ধান্ত নিতে পারছেন না?

|

আমাদের অনেকেই কখনো কখনো কোনো বিষয়ে দ্রুত সিদ্ধান্ত নিতে পারিনা। কোন সিদ্ধান্ত নিলে ভালো হবে তা থেকেই মূলত এ দ্বিধার জন্ম হয়। তবে এ থেকে উত্তরণের জন্য নির্দিষ্ট কিছু কৌশল বা উপায় অবলম্বন জরুরি। এমনই একটি পন্থা হচ্ছে রুলস অব থাম্ব’। এ পদ্ধতি প্রয়োগ করে কিভাবে দ্রুত ও সহজে সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন তা নিয়েই নিচে আলোচনা করা হলো :

১. রুলস অব থাম্ব : যদি কোনো বিষয় নিয়ে আপনি তৃতীয়বারের মতো চিন্তা করছেন, তবে এ তত্ত্বে বলা হয়, এখনই ওই স্থানেই যেকোনো সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতেই হবে।

প্রেক্ষাপট : বাড়িতে বসে রয়েছেন। একটি ইমেইল আসলো বন্ধু বা পরিচিতজনের কাছ থেকে। এটা কোনো ইভেন্ট বা সভা সংক্রান্ত মেইল। যেকোনো একটি সিদ্ধান্ত নিতে হবে। মেইলটি পুরোপুরি পড়বেন, নাকি পড়বেন না। পর পর দুইবার এর দিকে তাকিয়েও আপনি কিছুই করলেন না। তৃতীয়বার যখন তাকাবেন তখনই একে রিসাইকেল বিনে পাঠিয়ে দিন।
২. রুলস অব থাম্ব : বাড়ির বাইরে যাওয়ার পেছেনে অন্তত দুইটি কারণ ঠিক করুন। কেবল একটি কাজের জন্যে অথবা বার্তাবাহকের মতো কাজ করতে বাইরে যাবেন না।

প্রেক্ষাপট : যদি সুপার শপে যান, তবে একটি জিনিস কিনতে যাবেন না। অন্তত দুটি জিনিস কিনতে যেতে পারেন। যদি অন্তত দুটি কেনার প্রয়োজনীয়তা না থাকে, তবে অন্য কিছু করুন।

৩. রুলস অব থাম্ব : খেতে যে সময় প্রয়োজন, খাবার প্রস্তুতে তার চেয়ে বেশি সময় দেওয়া উচিত নয়। যেকোনো সময় খাবার খেতে গড়ে ১৫ মিনিট সময় লাগতে পারে।

প্রেক্ষাপট : এমন রেসিপি নিয়ে বসলেন যা বানাতে সময় লাগবে ১ ঘণ্টা। অথচ এটি খেতে সময় লাগবে ১৫-২০ মিনিট। এ ক্ষেত্রে কাটাকুটি বা বাছাই বা ফ্রিজ থেকে বের করে বরফ গলা পর্যন্ত সবই এই এক ঘণ্টার মধ্যে থাকবে।

৪. রুলস অব থাম্ব : সিলিন্ডারের গ্যাস যখন এক-চতুর্থাংশ থাকবে তখনই গ্যাস ভরতে হবে।

প্রেক্ষাপট : এটুকু গ্যাস নিয়ে আরো কিছু দিন চলতে পারে। কিন্তু এক-চতুর্থাংশে আসলেই গ্যাস নিতেই হবে। পরবর্তীতে ব্যবহার করুন বা নাই করুন। সূত্র : বিজনেস ইনসাইডার








Leave a reply