ত্বকের যত্নে বরফের ৫ ব্যবহার

|

আধুনিক যুগে রূপচর্চায় স্টিমের পাশাপাশি স্কিন আইসিংও বেশ জনপ্রিয় একটি বিউটি ট্রিটমেন্ট। বিউটি এক্সপার্টরা এটি স্পা এবং স্কিন ট্রিটমেন্ট হিসেবে ব্যবহার করে আসছেন অনেকদিন যাবত। কোরিয়ানরা তাদের রূপ চর্চায় ব্যবহার করেন বরফ। অনেকগুলো কারণে বরফ ত্বকের জন্য উপকারী। বরফ ত্বক টোনিং করতে বেশ কার্যকর। এটি বলিরেখা প্রতিরোধ করা, ত্বকে রক্ত চলাচল বৃদ্ধি করা, ব্রণ এবং ব্রণের দাগ দূর করাসহ বিভিন্ন কাজে আসে। তাই প্রতিদিন না পারলেও সাপ্তাহিক ছুটির দিনে ত্বকের কিছুটা যত্নও আপনাকে উজ্জ্বল দীপ্তিময় রাখতে পারে দীর্ঘদিন।

আসুন জেনে নিই ত্বকের জন্য উপকারী বরফের বেশ কিছু ব্যবহার।

১। শশা মধুর আইস কিউব
এক টেবিল চামচ শশার রস এবং তিন টেবিল চামচ মধু এক কাপ পানিতে মিশিয়ে নিন। এবার এটি বরফের ট্রেতে ঢালুন। এটি ফ্রিজে রাখুন। বরফ হয়ে গেলে এটি মুখ এবং ঘাড়ে ১০ মিনিট ম্যাসাজ করে লাগান। তারপর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। ত্বক পরিষ্কার করতে এটি বেশ কার্যকর।
২। অ্যালোভেরা জেলের কিউব
আধা কাপ অ্যালোভেরা জেল আইস ট্রেতে ঢেলে দিন। এটি ফ্রিজে ২ ঘণ্টা রাখুন। এরপর এটি মুখ এবং ঘাড়ে ১৫ মিনিট ম্যাসাজ করে লাগান। অ্যালোভেরা জেলের অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল এবং অ্যান্টি ইনফ্লামেটরী উপাদান রোদে পোড়া দাগ, ত্বকের জ্বালা পোড়া দূর করতে সাহায্য করবে।

৩। কাঁচা দুধ এবং লেবুর রস
সম পরিমাণ কাঁচা দুধ এবং লেবুর রস একসাথে মিশিয়ে নিন। এবার এটি আইস ট্রেতে ঢেলে দুই ঘণ্টা ফ্রিজে রাখুন। বরফ হয়ে গেল ত্বকে ম্যাসাজ করুন। দুধে থাকা ল্যাকটিক অ্যাসিড ত্বকের কোলাজেন বৃদ্ধি করে বলিরেখা দূর করে। আর লেবুর রস দ্রুত ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধিতে সাহায্য করে।

৪। গ্রিন টি
এক কাপ গ্রিন টি তৈরি করে নিন। এবার এটি আইস ট্রেতে ঢেলে ফ্রিজে রাখুন। বরফ হয়ে গেলে চোখের নিচে ম্যাসাজ করে লাগান। চোখের নিচের কালো দাগ দূর করতে এটি বেশ কার্যকর। এটি ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করার সাথে সাথে চোখের ফোলাভাব দূর করে দেয়।

৫। নিম পাতা এবং হলুদের গুঁড়ো
দুই টেবিল চামচ নিম পাতা গুঁড়ো আধা কাপ পানিতে মিশিয়ে নিন। এর সাথে এক চিমটি হলুদের গুঁড়ো দিয়ে দিন। এটি বরফের ট্রেতে ঢালুন। তারপর ফ্রিজে ২-৩ ঘন্টা রেখে দিন। নিম পাতা এবং হলুদের পানি দিয়ে তৈরি বরফের টুকরোটি ব্রণ দূর করতে বেশ কার্যকর।








Leave a reply