ত্বকের পোড়া ভাব দূর করে চন্দন

|

সুগন্ধি চন্দনের ঔষুধি হিসেবে যেমন ব্যবহৃত হয়, তেমনি রূপচর্চায়ও চন্দনের খ্যাতি রয়েছে। বিশেষ করে প্রাচীন কালে রূপচর্চার অন্যতম একটি উপাদান ছিল চন্দন। এছাড়া বিভিন্ন রকম প্রসাধন সামগ্রী ও সুগন্ধীতেও চন্দন ব্যবহার হয়। ত্বকের বিভিন্ন সমস্যায় যুগ যুগ ধরে চন্দনের ব্যবহার হচ্ছে। জেনে নিন রূপচর্চায় চন্দনের নানা ব্যবহার:

  • ত্বকের বলিরেখা একটি কমন সমস্যা। চন্দন অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট উপাদান সমূহের সমন্বয়ে গঠিত বলে মুখের রক্ত সঞ্চালন বাড়ায়। এর বিরোধী প্রদাহজনক এজেন্ট রয়েছে যা বলিরেখা দূর করতে সাহায্য করে।

গ্রীষ্মের কড়া রোদে কারো কারো ত্বকের পোড়া ভাব হয়ে থাকে। এটা দূর করতে পারে চন্দন। চন্দনের গুড়োর সঙ্গে শসার রস, টক দই ও গোলাপ জল মিশিয়ে পেস্ট বানিয়ে ত্বকে লাগান। ২০ মিনিট পর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ত্বক ধুয়ে ফেলুন। এই ফেসপ্যাক রোদে পোড়া ভাব কমাতে সাহায্য করবে।

  • ত্বকের উজ্জ্বলতায় চন্দনের ভূমিকা অপরিসীম। মসৃণ ও উজ্জ্বল ত্বকের জন্য কাঁচা হলুদ বাটার সঙ্গে চন্দনের গুঁড়ো মিশিয়ে লাগান। ২০ মিনিট রাখুন। ঠাণ্ডা পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন।
  • চন্দন ডার্ক সার্কেল দূর করতে পারে। অল্প পরিমাণ চন্দনের গুড়োর সঙ্গে গোলাপ জল মিশিয়ে চোখের চারপাশে লাগিয়ে সারারাত রাখুন। সকালে ধুয়ে ফেলুন। এক সপ্তাহের মধ্যে চোখের চারপাশের কালো দাগ দূর হোয়ে যাবে।
  • ডিমের কুসুম, মধু ও চন্দন গুড়োর মিশ্রণ তৈরি করে মুখে লাগালে ব্রণ বা অন্যসব দাগ দূর হয়ে যায়। এছাড়া প্রতিদিন গোলাপ জলের সাথে দুই চা চামচ চন্দনের গুঁড়ো মিশিয়ে পেস্ট বানিয়ে নিন। এবার এই প্যাক মুখে লাগিয়ে নিয়ে ১৫ মিনিট রাখুন। এতে মুখের দাগ দূর হবে ও ত্বক উজ্জ্বল হবে।








Leave a reply