কালমেঘ পাতার ৫ টি হেয়ার প্যাক সম্পর্কে জেনে নিন

|

চুলের সমস্যায় ভোগেন নি এরকম মানুষ পাওয়া খুবই মুশকিল। আমরা আমদের চুলকে সুন্দর রাখার জন্য অনেক কিছু করি। ঘণ্টার পর ঘণ্টা পার্লারে গিয়ে কাটিয়ে দি। কিন্তু তাও সবসময় তেমন ভালো ফল পাওয়া যায় না। অনেক প্রোডাক্ট ব্যবহার করি কিন্তু অনেক সময় আবার সঠিক প্রোডাক্টটি বুঝতেও পারি না। তার ফলে চুলের নানান সমস্যা দেখা যায়। কিন্তু যদি আমরা বাড়িতেই কিছু ঘরোয়া প্রাকৃতিক উপাদান ব্যবহার করি, তাহলে চুলের সমস্যাও কমে। আবার চুল সুন্দর ঘনও হয়।

কালমেঘ পাতার নাম নিশ্চয়ই সবাই শুনেছেন? কিন্তু ব্যবহার করেছেন কি কখনও? চুলের বিভিন্ন সমস্যায় ও সুন্দর চুলের ক্ষেত্রে কালমেঘ পাতার ভূমিকা কিন্তু যথেষ্ট। আসুন তাহলে জেনে নি কালমেঘ পাতার কিছু ঘরোয়া প্যাক যা চুলের জন্য খুবই উপকারী।

১. ঘন চুলঃ চুলকে ঘন কালো করার জন্য আমরা বাজারের হেয়ার ডাই ব্যবহার করে থাকি। কিন্তু এর জন্যই আরও তাড়াতাড়ি চুলের স্বাভাবিক রঙ নষ্ট হয়ে যায়। আর খুব ক্ষতিও হয়। এক্ষেত্রে কালমেঘ পাতার ভূমিকা কিন্তু অনবদ্য। চুলকে ঘন কালো করার জন্য। কিছু কালমেঘ পাতা পরিষ্কার জলে ধুয়ে, রস করে সেই রস স্ক্যাল্পে এবং চুলে লাগান। ২০ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন। এটি সপ্তাহে দু থেকে তিন দিন করুন। চুল হবে ঘন কালো।

২. চুল পরা কমায়ঃ যদি চুল পরে তাহলে একটু কালমেঘ পাতা বেটে নিন ভালো করে। তার সঙ্গে মধু মিশিয়ে পেস্ট বানান। সেটি ভালো করে মাথায় লাগান। ১৫ থেকে ২০ মিনিট রেখে শ্যাম্পু করে ফেলুন। বা কালমেঘ পাতার রস করে তাতেও মধু মিশিয়ে লাগাতে পারেন। এতে নতুন চুল গজাবে। আর চুল হবে ঝলমলে সুন্দর।

৩. ইনফেকশন বা চুলকানি থেকে চুলের সুরক্ষাঃ মাথায় অন্যান্য ইনফেকশন, যেমন চুলকানি বা অন্য কিছু সমস্যা হলে, ভালো করে আগে কিছুটা জল ফুটিয়ে নিন। তারপর ২০ থেকে ৩০টি কালমেঘ পাতা তাতে দিয়ে সারারাত রাখুন। তারপর সেই জলটা সপ্তাহে দুদিন ব্যবহার করুন। সেই জল দিয়ে মাথা ধুয়ে ফেলুন। মাথার যেকোনো ইনফেকশন চুলকানি, বা মাথার ভেতর ফুসকুড়ি কমবে।

৪. নরম চুলঃ একটু মেথি ভিজিয়ে রাখুন। মেথি ভিজিয়ে নরম হয়ে গেলে, এতে কালমেঘ পাতা মিশিয়ে পেস্ট বানান। এর সাথে যোগ করুন একটু লেবুর রস আর একটু টকদই। ভালো করে পেস্ট বানান। আবার চুলে তেল মেখে তার ওপর এই পেস্ট লাগান। আধঘণ্টা রাখুন। তারপর শ্যাম্পু করে ফেলুন। এটি চুলকে সুন্দর রাখার জন্য একটি উপকারি হেয়ার প্যাক।

৫. চুলের যত্নঃ একটু কালমেঘ পাতার রস, একটু আমলকীর রস, আর একটু লেবুর রস ভালো করে মেশান। পারলে একটু টকদইও দিতে পারেন। ভালো করে পেস্ট বানিয়ে চুলে লাগান। কিছুক্ষণ রেখে ধুয়ে ফেলুন। এছাড়াও কালমেঘ পাতা ভালো করে বেটে পেস্ট বানিয়ে চুলে লাগাতে পারেন। এতে খুস্কি দূর হবে। চুল হবে ঘন সুন্দর।

কালমেঘ পাতা আপনার চুলের পরম বন্ধু হয়ে উঠতে পারে যদি নিয়মিত ব্যবহার করতে পারেন। কি ভাবছেন? সত্যি সত্যি চুলের যত্ন নিতে কালমেঘ পাতার জবাব নেই। তাই দেরি না করে আজ থেকে ব্যবহার করুন কালমেঘ পাতা আর হয়ে উঠুন সুন্দর চুলের মালকিন।








Leave a reply