আপনি কি সঠিকভাবে হাঁটেন? ৯ নিয়ম জেনে নিন

|

আমাদের অনেকেরই সঠিকভাবে হাঁটা কিংবা দাঁড়ানোর অভ্যাস নেই। যদিও একটু লক্ষ্য করলেই এ ভুলগুলো দূর করা যায়। এ লেখায় তুলে ধরা হলো সঠিক ও ভুল কিছু বিষয়। হাঁটার বিষয়টিকে অনেকেই সাধারণ একটি কাজ হিসেবে ধরেন। যদিও সঠিকভাবে হাঁটার বিষয়টি গুরুত্বপূর্ণ। এক্ষেত্রে কয়েকটি নিয়ম মেনে চলা উচিত সবারই। এগুলো হলো-

১. সোজা হয়ে হাঁটুন
সামনে কিংবা পেছনে ঝুঁকে হাঁটা উচিত নয়। সঠিকভাবে সোজা হয়ে হাঁটুন। একটি গাছকে কল্পনা করুন। পেছনে কিংবা সামনে নয়, উঁচু হয়ে দাঁড়ান।

২. মাথা উপরে
আপনার চোখের দৃষ্টি রাখুন ১৫ ফুট সামনে। সোজা হয়ে দাঁড়ানোর জন্য মাথা কোনো পাশে ঝুঁকবেন না। এতে আপনার মাংসপেশির কার্যকারিতা ঠিক থাকবে।

৩. বুক সামনে, কাঁধ পেছনে
বুক সামনে এবং কাঁধ পেছনে রাখুন। হাঁটার সময় আপনার কাঁধ যেন অন্য কোনো দিকে না থাকে। এতে আপনার স্বাচ্ছন্দ্যবোধ হবে।

৪. বাহু
আপনার বাহু থাকবে দুই পাশে সুবিন্যস্তভাবে। হাঁটার সময় এগুলো সামনে ও পেছনে সমানভাবে নড়াচড়া করবে। এতে আপনার দেহের ভারসাম্য বজায় রাখা সহজ হবে।

৫. হাতের তালু
হাতের তালু শক্ত করে ধরা উচিত নয়। আবার ডানে-বায়ে রাখা উচিত নয়। এক্ষেত্রে নিয়ম হলো এটি আলতো করে অর্ধখোলা অবস্থায় রাখা। অনেকটা একটি ডিম হাতে ধরে রাখার মতো। জোরে ধরলে তা ভেঙে যাবে। আবার অসতর্ক হলে হাত থেকে পড়েও যেতে পারে।

৬. পেট
পেটের মাংসপেশি দেহের ভারসাম্যের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তাই সোজা হয়ে দাঁড়ানোর পাশাপাশি পেটের মাংসপেশি যেন টাইট থাকে সেজন্য মনোযোগী হোন।

৭. টাইট থাই
হাঁটার সময় থাই কিছুটা শক্ত করে নিন। দেহ ছেড়ে দিয়ে নয় বরং টাইট করে রাখুন।

৮. হাত নড়া
হাঁটার সময় হাত বেশি সামনের দিকে নেবেন না। এক্ষেত্রে পেছনের দিকে নিতে কোনো অসুবিধা নেই।

৯. পা
হাঁটার সময় পায়ের পাতার সম্মুখের অংশ আগে মাটিতে ফেলবেন না। এক্ষেত্রে আগে পায়ের গোড়ালি ফেলুন এরপর বাকি অংশ। তবে পা উঠিয়ে নেওয়ার সময় পায়ের পাতা সবার শেষে ওঠান।








Leave a reply