আজকের রাশিফল দেখে নিন কার ভাগ্যে কি আছে বুধবার ৯ জুন ২০২১

|

ব্যবসায় ভাল খবর আসতে পারে। প্রেমে বাধা মিটে গিয়ে সুখের সময় আসতে চলেছে। বিদেশ ভ্রমণের সুযোগ আসতে পারে। ভুল সিদ্ধান্ত আপনার ভাল সময়কে নষ্ট করতে পারে। সংসারের জন্য প্রচুর খরচ হতে পারে। অকারণে আত্মীয়ের সঙ্গে ঝগড়া বাধতে পারে। মামলায় জিতে যাওয়ার সম্ভাবনা। স্নায়বিক ভোগান্তির যোগ রয়েছে I

রাশি চক্রের প্রথম রাশি মেষ। এই রাশির অধিকর্তা গ্রহ মঙ্গল। এই রাশির ব্যক্তি ছোটবেলা থেকেই তেজস্বী, স্পষ্টবক্তা ও নির্ভীক প্রকৃতির হয়ে থাকে। নানা রকম রোমাঞ্চকর কাজ, সাহসিকতার কাজ করতে পারলে খুব আনন্দিত হয়। গুরুজন ও শ্রদ্ধেয় ব্যক্তিদের প্রতি ভক্তিযুক্ত। কাজ বা কথার সমালোচনা সহ্য করতে পারে না। পরিশ্রমি তবে কায়িক শ্রমের চেয়ে মস্তিষ্কের শ্রমেই বেশি সফল। এরা খুব তোষামোদ প্রিয় ও বন্ধুবৎসল। তবে সকলের সঙ্গে সমান ভাবে মিশতে পারে না। আবেগ প্রকাশ বা নিজেকে বড় করে দেখবার চেষ্টা এদের খুব বেশি। এরা সব বিষয়ে বড় হতে ও নেতৃত্ব করতে হয়। নিজের ক্ষমতায় না হলে পেছনের পথ দিয়ে এগোতেও কুণ্ঠিত হয় না। এদের মতে উন্নতিই আসল, সেখানে পৌঁছনোর পন্থাতা গৌণ। এদের উদ্ভাবনী শক্তি প্রবল। সহজে কথার খেলাপ করে না। নিজের ক্ষতি করেও কথা রাখতে চেষ্টা করে। মন চঞ্চল ও মাঝে মাঝে উগ্র প্রকৃতির হয়ে ওঠে।আজ কোনও ভাল কাজে সময় নষ্ট হতে পারে। অনিচ্ছা সত্ত্বেও অনুতাপের কাজ করতে হতে পারে। অন্য দিনের তুলনায় আজ সংসারে অতিরিক্ত খরচ হতে পারে। প্রতিবেশীর দ্বারা উপকার পেতে পারেন। ন্যায্য পাওনা আদায় হবে। আজ সারা দিন শত্রুর সঙ্গে আপস করে চলুন, লাভবান হবেন। মায়ের নির্দেশ মতো কাজ না করায় অশান্তি। শিশুদের পড়াশোনার জন্য সময়টা শুভ। ভ্রমণের আশা রাখতে পারেন।রাশি চক্রের দ্বিতীয় রাশি বৃষ। এই রাশির অধিকর্তা গ্রহ শুক্র। এই রাশির ব্যক্তিরা সাধারণত সুন্দরের পূজারী ও শিল্পরসিক হয়ে থাকে। বিপরীত লিঙ্গের মন সহজে জয় করতে পারে ও একাধিক মানুষের প্রতি আকৃষ্ট হতে পারে। এরা মনে প্রাণে সর্বদা উচ্চ ভাব সম্পন্ন। নিজের প্রতিভায় সবার উপরে সহজেই আধিপত্য বিস্তারে সক্ষম হয়। আত্মীয় সজনের জন্য প্রচুর ত্যাগ স্বীকার করে থাকে। এদের জীবনে উত্থান পতন খুব কম। দীর্ঘসুত্রিতা এদের চরিত্রের এক বিশেষ ধর্ম। ফলে জীবনের অনেক ভাল সুযোগ নষ্ট করে। এরা প্রায়ই তীক্ষ্ণ বুদ্ধির, দৃঢ় প্রতিজ্ঞ ও ধৈর্যশীল হয়ে থাকে। স্মৃতিশক্তি প্রখর, সহজে কোনও কিছু ভোলে না এরা। খুব বন্ধু বত্সল ও স্নেহশীল মানুষ। ধর্মে প্রবল উৎসাহ থাকে। এরা ঈশ্বর ভক্তি প্রবল, প্রাচীন শক্তিতে বিশ্বাসী, আনন্দময় ও আত্মবিশ্বাসী হয়। প্রায়ই উত্তরাধিকার সুত্রে আত্মীয় স্বজনের অর্থ বা সম্পত্তি পেয়ে থাকে। জাতক বা জাতিকার জীবনে উন্নতির প্রধান অন্তরায় হল বিলাসিতা ও অমিতব্যয়িতা। এ বিষয়ে সংযত হওয়া প্রয়োজন।রাশি চক্রের তৃতীয় রাশি মিথুন। এই রাশির অধিকর্তা গ্রহ বুধ। বুধ চঞ্চলমতি, উদ্যমী বালক গ্রহ। বালকের মতোই এর কার্যকরিতা এই রাশির ব্যক্তিদের উপর সেই ভাবে প্রতিফলিত হয়। এদের মেধা শক্তি তীক্ষ্ণ, তবে এরা অস্থিরমনা এবং নরম গরম ভাবযুক্ত। এরা চিন্তাশীল কিন্তু বাচাল। এদের মনের মধ্যে একই সঙ্গে দ্বিবিধ ভাবের খেলা চলে। একই সঙ্গে কাউকে ভালবাসে, আবার ঘৃণাও করে। কখনও বিশ্বাস করে তো কখনও সন্দেহ করে। কখনও কৃপণ আবার কখনও আর্থিক ভাবে উদার। কখনও কুটিল, কখনও সরল। প্রয়োজনের চেয়ে বেশি ভাবুকতা এদের এক বৈশিষ্ট্য। এরা কাজ পাগল। কিন্তু কোন কাজ করবে বা কোন কাজ করবে না তা সব সময় ঠিক করতে পারে না। আইনি, চিকিৎসা, হিসাব, শিল্পসাহিতা, রেস, জুয়া ইত্যাদিতে তিব্র ঝোঁক থাকে এবং কিছু সাফল্যও অর্জন করে। প্রায়ই পেটের রোগ বা বদহজমে ভোগে, তোষামোদ প্রিয়।রাশিচক্রের চতুর্থ রাশি কর্কট। এই রাশির অধিকর্তা গ্রহ চন্দ্র। এই ব্যক্তিরা সচরাচর কল্পনা প্রিয়, শিল্পী, ভাবপ্রবণ ও রোম্যান্টিক ধরনের হয়ে থাকে। বিলাসি অথচ আদর্শবাদী। আত্মকেন্দ্রিক অথচ স্পর্শকাতর। দিনের চেয়ে রাত বেশি প্রিয়। ঠান্ডা জিনিস এদের প্রিয়। ভ্রমণ বিলাসী ও বাবা মায়ের ভক্ত হয়। দোষের মধ্যে একটু খুঁতখুঁতে চঞ্চল ও ভীতু, সব বিষয়ে হুড়োহুড়ি করা ও চঞ্চল প্রকৃতির হয়। ব্যবসা বুদ্ধি জন্মগত, তাই চাকরির চেয়ে ব্যবসাতেই জাতক বেশি উন্নতি করে। বিশেষ করে সাদা ও তরল দ্রব্যের, জলজ দ্রব্য বা খাদ্যদ্রব্যের ব্যবসা করলে খুব লাভবান হতে পারে। স্বাস্থ্য খুব একটা মজবুত হয় না। বায়ুর প্রকোপ খুব বেশি। হৃদরোগ, পেটের রোগ, মাথার রোগ, যক্ষ্মা, হাঁপানি হওয়ার প্রবণতা থাকে। এরা সব সময় ছিমছাম ও বেহিসেবি হয়ে থাকে।রাশি চক্রের ষষ্ঠ রাশি কন্যা। এই রাশির অধিকর্তা গ্রহ বুধ। বুধ প্রধান ব্যক্তি উদ্যমশীল, হাস্যকৌতুক ও আনন্দ প্রিয় হয়। স্বভাব চরিত্র সহজে বোঝা যায় না। আইনবিদ্যা, চিকিৎসা, রসায়ন বিজ্ঞান, গণিত ইত্যাদিতে প্রায়ই পটু হয়ে থাকে। ব্যবসা বাণিজ্যে উন্নতি করে। একা স্বাধীন ভাবে ব্যবসা করার চেয়ে যৌথ ব্যবসায় উন্নতি করে। সকলের জন্য চিন্তা করে তবে নিজের স্বার্থ ভাল বোঝে। মনের দু’টি পরপর বিপরীত ভাবের জন্য প্রায়ই উন্নতি ব্যাহত হয়। ব্যবসায়ী, প্রচারকর্তা, ওকালতি, এজেন্ট, জ্যোতিষী ইত্যাদি শুরু করলে জীবনে অবশ্যই উন্নতি করবে। এরা একা থাকতে ভালবাসে না। বন্ধুপ্রীতি অপরিসীম। কন্যা, মিথুন, মীন ও মেষ রাশির লোকের সঙ্গে বন্ধুত্ব বা বিবাহ শুভ। এরা খুব কর্তব্যপরায়ণ হয়ে থাকে। মন দৃঢ় রাখতে পারলে জীবন কুব সুখকর হবে।রাশি চক্রের সপ্তম রাশি তুলা। এই রাশির অধিকর্তা গ্রহ শুক্র। এদের মধ্যে যে লক্ষণ সাধারণত দেখা যায়, তা হল— এরা খুব সৌন্দর্য ও ভোগবিলাস প্রিয়, ভাবপ্রবণ, বিজ্ঞ, রাজনীতিক, প্রখর অনুমান শক্তিসম্পন্ন ও প্রেমিক। চেষ্টা করলে এরা ভাল শিল্পী, গায়ক, চিত্রকর, সুরকার, সাহিত্যিক, নৃত্যশিল্পী, অভিনেতা প্রভৃতি হতে পারে। এদের স্বাস্থ্য ভাল, রোগব্যধি বিশেষ হয় না। এরা একটু নির্জনতাপ্রিয়। ভীরের চেয়ে একাকী থাকতে বেশি পছন্দ করে। এদের সহিষ্ণুতা ও ধৈর্য যথেষ্ট। জাতক শান্তি প্রিয় তবে ভিরু নয়। চাকরি অপেক্ষা ব্যবসা জাতকের পক্ষে বিশেষ ফলপ্রদ। জাতক সৎকর্ম পরায়ণ, বহু ভাষায় অভিজ্ঞ। ধর্ম ভাব বেশি থাকলেও তা চাপা থাকে। খেতে খাওয়াতে খুব ভালবাসে। বিচার বিশ্লেষণ শক্তি প্রবল। তুলা, মেষ, কুম্ভ ও মিথুন  রাশির লোকের সঙ্গে বন্ধুত্ব বা বিবাহ সুখের হয়।রাশি চক্রের অষ্টম রাশি বৃশ্চিক। এই রাশির অধিকর্তা গ্রহ মঙ্গল। এই রাশির ব্যক্তি প্রায়ই তেজী, নির্ভীক এবং একগুঁয়ে প্রকৃতির হয়। নিজের মতে চলতে ভালবাসে। মঙ্গল প্রধান লোক প্রায়ই স্বেচ্ছাচারি, প্রভুত্বকামী হয়ে থাকে। মঙ্গল অশুভ হলে অহংকারী, দাঙ্গাবাজ ও গুন্ডা প্রকৃতির হয়ে থাকে। এরা প্রায়ই প্রচুর ভু সম্পত্তি বা বাড়ির মালিক হয়। জীবনে প্রতিষ্ঠা পাওয়ার জন্য ন্যায় অন্যায় বিচার করে না। পাইলট, সামরিক অফিসার, সৈনিক, পুলিশ অফিসার, পদস্থ সরকারি কর্মচারী, প্রভৃতি বৃত্তি অবলম্বন করলে জীবনে দ্রুত উন্নতি করবে। অধ্যাবসায়ের দিকে কঠোর পরিশ্রম করে নিজেকে নিজের ভাগ্য গড়ে তুলতে হবে। হঠাৎ কিছু পাওয়ার আশা করা তার পক্ষে উচিৎ হবে না। এই লোকের স্বাস্থ্য ভাল যায় না। বৃশ্চিক, মীন, বৃষ, কর্কট ও সিংহ রাশির লোকের সঙ্গে মিত্রতা বা বিবাহ হলে হবে।রাশি চক্রের অষ্টম রাশি বৃশ্চিক। এই রাশির অধিকর্তা গ্রহ মঙ্গল। এই রাশির ব্যক্তি প্রায়ই তেজী, নির্ভীক এবং একগুঁয়ে প্রকৃতির হয়। নিজের মতে চলতে ভালবাসে। মঙ্গল প্রধান লোক প্রায়ই স্বেচ্ছাচারি, প্রভুত্বকামী হয়ে থাকে। মঙ্গল অশুভ হলে অহংকারী, দাঙ্গাবাজ ও গুন্ডা প্রকৃতির হয়ে থাকে। এরা প্রায়ই প্রচুর ভু সম্পত্তি বা বাড়ির মালিক হয়। জীবনে প্রতিষ্ঠা পাওয়ার জন্য ন্যায় অন্যায় বিচার করে না। পাইলট, সামরিক অফিসার, সৈনিক, পুলিশ অফিসার, পদস্থ সরকারি কর্মচারী, প্রভৃতি বৃত্তি অবলম্বন করলে জীবনে দ্রুত উন্নতি করবে। অধ্যাবসায়ের দিকে কঠোর পরিশ্রম করে নিজেকে নিজের ভাগ্য গড়ে তুলতে হবে। হঠাৎ কিছু পাওয়ার আশা করা তার পক্ষে উচিৎ হবে না। এই লোকের স্বাস্থ্য ভাল যায় না। বৃশ্চিক, মীন, বৃষ, কর্কট ও সিংহ রাশির লোকের সঙ্গে মিত্রতা বা বিবাহ হলে হবে।








Leave a reply