হৃদরোগের ৫টি লক্ষণ যা আপনি সাধারণ ভেবে উপেক্ষা করেন

|

এই কথাটি খুব প্রাচীন যে “মৃত্যু একটি অজুহাত খুঁজে পায়”। অনেক সময়, যে ব্যক্তি বাইরে থেকে সুস্থ দেখায় হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়ে এবং পরীক্ষার জন্য, সে কিছু গুরুতর অসুস্থতার শিকার হয়। এই জাতীয় ঘটনাগুলি প্রায়ই আমাদের চারপাশে ঘটে থাকে এবং মানুষ এটিকে ‘কর্মফল’ হিসাবে ধরে নেয়। তবে বিজ্ঞান সবকিছুর গভীরে চলে যায় এবং তা পরীক্ষা করে দেখে। অনেক সময় আমরা শরীরে পরিবর্তনগুলি লক্ষণ হিসাবে দেখি না, যতক্ষণ না এটি গুরুতর হয়। এইরকম তাড়াহুড়ো পরিস্থিতির কারণে প্রচুর মানুষ প্রাণ হারান।

আপনি কি জানেন যে হৃদরোগগুলি বিশ্বব্যাপী সর্বাধিক মৃত্যুর কারণ। হার্ট অ্যাটাক, কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট, হার্ট ফেইলিওর, স্ট্রোক ইত্যাদি এ জাতীয় রোগ, যা কখনও কখনও একজন ব্যক্তিকে সুস্থ হওয়ার সুযোগও দেয় না। আসুন আমরা আপনাদের কিছু খুব সাধারণ কারণ বলি যা হৃদরোগেরন জন্য ক্ষতিকর তবে তথ্যের অভাবে লোকেরা সেগুলি উপেক্ষা করে।

প্রবল রাগ
রাগ করা স্বাভাবিক। প্রত্যেক ব্যক্তি কিছু সময় রেগে যায়। তবে আপনি কি জানেন যে রেগে যাওয়ার পরে আপনি হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি ৫ গুণ বাড়িয়ে দেন? হ্যাঁ, গবেষণা পরামর্শ দেয় যে রাগ হওয়ার ২ ঘন্টা অবধি একজন ব্যক্তির স্ট্রোক, হার্ট অ্যাটাক এবং অনিয়ন্ত্রিত হার্টবিট হওয়ার ঝুঁকি থাকে। ৪০ বছর বয়স অতিক্রমকারীদের মধ্যে এটির ঝুঁকি বেশি, তবে প্রত্যেককে এই জাতীয় পরিস্থিতি সম্পর্কে সতর্ক হওয়া উচিত।

দাঁতের রোগ
ডেন্টাল ডিজিজ এর কারনেও হার্ট অ্যাটাক হয়? শুনতে অদ্ভুত লাগতে পারে। তবে হৃদয় ও মুখের স্বাস্থ্যের মধ্যে আরও গভীর সম্পর্ক খুঁজে পাওয়া গেছে। অনেক গবেষণার ভিত্তিতে বিশেষজ্ঞরা বিশ্বাস করেন যে মাড়ির ব্যাকটেরিয়া রক্তের প্রবাহে পৌঁছে হৃদরোগের কারণ হতে পারে। এই ব্যাকটিরিয়াগুলির ফলে রক্তনালীগুলি ফুলে যায় এবং রক্ত প্রবাহকে প্রভাবিত করে। অতএব, আরও ভাল যে আপনি প্রতি ৬ মাসে একবার আপনার ডেন্টাল টেস্ট চালিয়ে যাচ্ছেন এবং মুখের মধ্যে যে কোনও রোগ দেখা দেয় সেটিকে গুরুত্বের সাথে গ্রহণ করুন।

একাকীত্ব
যে ব্যক্তিরা খুব বেশি একাকীত্ব অনুভব করেন তাদের হৃদরোগ হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে। ২০১৮ সালে সায়েন্স ডেইলি-এ প্রকাশিত একটি গবেষণা অনুসারে, নিঃসঙ্গতা হার্ট সম্পর্কিত রোগের ঝুঁকি বাড়ায়। আপনি যখন মানুষের সাথে সময় কাটান, আপনি শিথিল এবং সক্রিয় হন। স্বল্প সময়ের জন্য নিঃসঙ্গতা আপনাকে মাঝে মাঝে মানসিকভাবে শান্ত করে তুলতে পারে। তবে দীর্ঘমেয়াদে এটি বহু মানসিক সমস্যার পাশাপাশি হৃদরোগের ঝুঁকি বাড়ায়।

দীর্ঘ ঘন্টা কাজ

বসকে প্রভাবিত করতে বা অতিরিক্ত আয়ের জন্য আপনি যদি ১০ ঘন্টার বেশি কাজ করেন তবে সাবধান হন। ‘দ্য ল্যানসেট’-এ প্রকাশিত একটি গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সাধারণ মানুষের তুলনায় যারা সপ্তাহে ৫৫ ঘন্টা বেশি কাজ করেন তাদের হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি অনেকগুণ বেড়ে যায়। এর অনেকগুলি কারণ থাকতে পারে – যেমন দীর্ঘ সময় ধরে বসে থাকা, বেশি চাপ নেওয়া, বেশি মদ খাওয়া ইত্যাদি। এই গবেষণা প্রতিবেদন অনুসারে, সপ্তাহে ৪৫ ঘন্টা বা তারও কম সময় কাজ করা আপনার হৃদয়ের পক্ষে নিরাপদ হিসাবে বিবেচিত হয়।

স্থূলত্ব
স্থূলত্ব আজকাল একটি বড় সমস্যা হিসাবে আবির্ভূত হয়েছে। পেটের চারপাশে জমে থাকা ফ্যাট হার্ট অ্যাটাকের কারণও হয়। বিশেষজ্ঞদের মতে, যদি কোনও মহিলার কোমর ৩৫ ইঞ্চির বেশি হয় এবং একজন পুরুষের কোমর ৪০ ইঞ্চির বেশি হয়, তবে তার ওজন হ্রাস করা উচিত। পেটের চারপাশে এত বেশি ফ্যাট জমে থাকার কারণে হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি থাকে। যে কোনও বয়সেই ওজন হ্রাস করে আপনি হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি হ্রাস করতে পারেন।








Leave a reply