হার্ট অ্যাটাকের পূর্বের লক্ষণগুলি জেনে নিন

|

বিশ্বে হার্ট অ্যাটাকে আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা অনেক। তাদের প্রায় এক তৃতীয়াংশই জানে না যে, তারা হার্টের রোগী। এই ধরনের রোগীরা হাসপাতালে পৌঁছানোর আগেই মারা যায়। আসলে, রোগী যে হার্ট এটাকে আক্রান্ত এটা সে বুঝতে পারে না। এই জাতীয় হার্ট অ্যাটাক, যার লক্ষণগুলি অস্পষ্ট বা অজানা, তাকে নীরব হার্ট অ্যাটাক বলে। হার্ট বা হৃদয় আমাদের দেহের এমন একটি অংশ যা শরীরের বাকী অংশে রক্ত এবং অক্সিজেন সরবরাহ করে।

হৃৎপিণ্ড শরীরের বাকী অংশে রক্ত এবং অক্সিজেন সরবরাহ করে, তবে যখন এই হৃদপিণ্ড সঠিকভাবে কাজ না করে, তখন শরীরের অন্যান্য অংশে রক্ত এবং অক্সিজেন পরিবহনে সমস্যা সৃষ্টি হয় এবং এর কারণে রক্ত প্রবাহ থেমে যায় ও হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি বেড়ে যায়। গবেষণা অনুসারে আরও জানা গেছে যে, এশিয়ানদের মধ্যে হার্ট অ্যাটাক হওয়ার সম্ভাবনা বেশি এবং এর পেছনের কারণ জানা যায়নি।

আজ আমরা সেই লক্ষণগুলি বলতে যাচ্ছি যা হার্ট অ্যাটাকের মাত্র ১ মাস আগে আপনার শরীরে প্রকাশিত হতে শুরু করে।
• বমি বমি ভাব।
• পেটে ব্যথা।
• হাতের ব্যথা।
• বেশ কয়েকদিন ধরে শ্বাসকষ্ট।
• প্রচুর ঘামতে থাকা।
• পা ফোলা।
• মাথা ঘোরা।


ক্লান্তি ও অনিদ্রা: আপনি যদি কোনও কারণ ছাড়াই ক্লান্ত বোধ অনুভব করেন তবে আপনার সতর্ক হওয়া দরকার কারণ এমন পরিস্থিতিতে আপনার হার্ট অ্যাটাক হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। উপরে চিহ্নিত লক্ষণগুলি বেশিরভাগ মহিলাদের মধ্যে দেখা যায়। অস্বাভাবিক ক্লান্তি বোধ করা হার্ট অ্যাটাকের অন্যতম লক্ষণ।অনিদ্রা হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি বাড়ায়। মহিলাদের মধ্যে এই লক্ষণগুলি বেশি দেখা যায়।

পেটে ব্যথা: পেটে ব্যথা একটি সাধারণ সমস্যা, তবে আপনার যদি সবসময় পেটে ব্যথা, ফোলাভাব, পেট খারাপ ইত্যাদি হতে থাকে তবে এটিকে হালকাভাবে নেবেন না। এই লক্ষণগুলি মহিলা এবং পুরুষদের মধ্যে সাধারণ কিন্তু এর ফলে একসময় হার্ট এট্যাক হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

শ্বাসকষ্ট: যদি আপনি সবসময় মাথা ঘোরা এবং শ্বাসকষ্ট অনুভব করেন, তাহলে তাড়াতাড়ি ডাক্তারের সাথে যোগাযোগ করুন।

বুকের ব্যথা: বুকের ব্যথা অনেক সময় অনেক কারণে ঘটে থাকে তবে যদি আপনার প্রায়ই এই ব্যথা হয় তবে বুঝতে হবে যে, আপনার হার্ট অ্যাটাকের মতো সমস্যা হচ্ছে। যদি আপনি বুকে অস্বস্তি বোধ করেন, চাপ অনুভব করেন এবং পাশাপাশি যদি কোনও ব্যথা অনুভব করেন তবে বুঝতে হবে যে আপনি হার্ট এট্যাকের ঝুঁকিতে রয়েছেন।








Leave a reply