শরীরে ভিটামিন সি এর ঘাটতি পূরণে যে ধরণের ফল খাওয়া উচিত

|

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে শরীরে বাড়াতে হবে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে খেতে হবে ভিটামিন সি জাতীয় ফল। এ ছাড়া কাটাছেঁড়া বা শল্যচিকিৎসার পর দ্রুত ঘা শুকাতে চিকিৎসকরা বেশি করে ভিটামিন সি খেতে বলেন।

ভিটামিন সির ভালো উৎস হলো– টকজাতীয় বিভিন্ন ধরনের ফল।

গবেষকরা বলেন, একজন পূর্ণবয়স্ক নারীর প্রতিদিন ৭৫ মিলিগ্রাম ও পূর্ণবয়স্ক পুরুষের ৯০ মিলিগ্রাম ভিটামিন সি খাওয়া উচিত।

এ ছাড়া গরমের এই সময়ে শরীরের পানির ঘাটতি হলে নিম্নরক্তচাপের সমস্যা দেখা দেয়। তাই শরীরের চাহিদামাফিক পানি পান করতে হবে। এ ছাড়া ডাবের পানি ও বিভিন্ন ফলের শরবত খেতে পারেন।

তবে আমরা অনেকেই জানি না যে, কোন ফলে কতটুকু ভিটামিন সি পাওয়া যায়।

জেনে নিন কোন ফলে কতটুকু ভিটামিন সি-

পেঁপে :

ভিটামিন সি পেতে খেতে পারেন সহজলভ্য ফল পেঁপে, যা সারাবছরই বাজারে কিনতে পাওয়া যায়। পাকা পেঁপেতেও আছে বেশ ভালো পরিমাণে ভিটামিন সি। প্রতি ১০০ গ্রাম পেঁপেতে ৬০ মিলিগ্রামের মতো ভিটামিন সি পাবেন।

পেয়ারা :

বর্ষার এই সময়ে বাজারে পাবেন পেয়ারা। ভিটামিন সি সমৃদ্ধ এই ফলে পাবেন (৫৫ গ্রাম ওজনের) ১২৫ মিলিগ্রাম ভিটামিন সি।

আনারস :

আনারস এমন একটি ফল, যা সারাবছরই পাওয়া যায়। জ্বর, সর্দি-কাশি সারাতে খেতে পারেন এই ফল। আনারসের প্রতি ১০০ গ্রাম পরিমাণে ভিটামিন সির পরিমাণ ৪৭ মিলিগ্রামের মতো।

কমলা :

একটা কমলায় প্রায় ৭০ মিলিগ্রাম ভিটামিন সি রয়েছে। এই ফল ভিটামিন সির চমৎকার উৎস। কমলার মতো অন্যান্য ফল, যেমন মাল্টা বা জাম্বুরায়ও ভিটামিন সি অনেক। ১০০ গ্রাম মাল্টায় আছে ৩২ মিলিগ্রাম এবং ১০০ গ্রাম জাম্বুরায় আছে ৬১ মিলিগ্রাম ভিটামিন সি।

লেবু :

দেশি সবুজ লেবুতেও ভিটামিন সি অনেক। ১০০ গ্রাম লেবুতে ৫৩ মিলিগ্রাম ভিটামিন সি পাবেন।








Leave a reply