শরীরের রোগ নিরাময়ে আসন

|

শ্বাসকষ্ট প্রাণায়াম কিভাবে করবেন
প্রথমে মেরুদণ্ড সোজা রেখে মাটিতে দুই পা ছড়িয়ে বসুন। এবার বাঁ পা হাঁটু থেকে ভেঙে ডান ঊরুর ওপর এবং ডান পা একইভাবে বাঁ ঊরুর ওপর রাখুন। হাত দুটি চিত অবস্থায় দুই হাঁটুর ওপর রাখুন এবং তর্জনী ও বুড়ো আঙুল একত্রে ধরে রাখুন।

দৃষ্টি স্বাভাবিক সোজা বরাবর রাখুন। এবার নাকের দুই ছিদ্র দিয়ে ধীরে ধীরে শ্বাস নিতে থাকুন। বুক ফুলিয়ে শ্বাস নিন। এবার কয়েক সেকেন্ড শ্বাস বন্ধ রেখে আবার দুই নাকের ছিদ্র দিয়েই ধীরে ধীরে শ্বাস ছাড়ুন। চোখের দৃষ্টি রাখুন নাকের অগ্রভাগে এবং মনোযোগ রাখুন শ্বাস-প্রশ্বাসে। এভাবে এক থেকে পাঁচ মিনিট পর্যন্ত করতে পারেন। কখনো পা ব্যথা হয়ে উঠলে পা পরিবর্তন করে বসতে পারেন।  

উপকারিতা
বেশির ভাগ সময়ই আমরা বসে কাজ করি।

 ফলে ফুসফুসের মাত্র ১০ ভাগ কাজে লাগতে পারে। এই প্রাণায়ামের ফলে ফুসফুসের ক্ষমতা খুবই বাড়ে। শ্বাসকষ্টের সমস্যায় এই প্রাণায়াম খুব উপকারী।  

আর্থ্রাইটিস উত্কটাসন কিভাবে করবেন
দুই পায়ের পাতা ছয় ইঞ্চি ফাঁক করে দাঁড়ান। দুই হাত সোজা করে কাঁধ বরাবর (মেঝের সমান্তরাল করে) রেখে সামনে আনুন। হাতের পাতা নিচের দিকে থাকবে। পায়ের পাতা মাটিতে থাকবে। এবার সোজা হয়ে পায়ের আঙুলের ওপর জোর দিয়ে বসতে থাকুন, যতক্ষণ না আপনার জঙ্ঘা মাটির সঙ্গে সমান্তরাল হয়। গোড়ালি মাটি থেকে উঠে থাকবে। ঠিক মনে হবে আপনি একটি চেয়ারে বসেছেন। শ্বাস-প্রশ্বাস স্বাভাবিক থাকবে।  

উপকারিতা
হাঁটু ও গোড়ালিতে রক্ত সঞ্চালন ভালো হয়। পায়ের বাত, আর্থ্রাইটিস, গাউট, স্লিপ ডিস্ক ও লাম্বাগো পুরোপুরি সেরে যায়। এই আসনে হাতের গঠনও ভালো করে।  

যোগাসন
স্থান
* হাত-পা খোলামেলা রেখে আসন  করা যায়—এমন স্থান বেছে নিন।  
* ঘরে একটা পূর্ণদৈর্ঘ্যের আয়না রাখুন।  
* মাটিতে কার্পেট বা মোটা তোয়ালে পেতে নিন, যাতে আসন করার সময় পা পিছলে না যায়।  
* ঘরের তাপমাত্রা স্বাভাবিক রাখুন। খোলামেলা আলো-বাতাসপূর্ণ ঘর হলেই ভালো।  

পোশাক
* আরাম করে আসন করতে পারেন- এমন পোশাক পরুন। যেমন সালোয়ার-কামিজ, টি-শার্ট,  লেগিংস।  
* পোশাক এমন হওয়া উচিত, যাতে শরীরের ভাঁজ ও ভঙ্গিমা ভালো বোঝা যায়। অর্থাত্ আয়নায় নিজের শরীরের মুভমেন্ট দেখতে পারেন।  
* মেদ কমানোর আসন করতে চাইলে এমন পোশাক নির্বাচন করুন, যাতে আসন অভ্যাস করার সময় ঘাম হয়।  

নিয়ম
* এক দিনেই ঠিক ভঙ্গিমা রপ্ত করা যাবে না।  
* ধারাবাহিকতা মেনে নিয়মিত আসনের অভ্যাস করতে হবে।  
* আসন অভ্যাস করার অন্তত তিন ঘণ্টা আগে খাবার খান।  
* আসন করার সময় তাড়াহুড়া করবেন না।  








Leave a reply