রাতে যে কারনে কম খাওয়া উচিত জানুন

|

সকালে খাবার হাওয়া উচিত রাজার মত, দুপুরের খাবার খাওয়া উচিত প্রজার মত, আর রাতের খাবার খাওয়া উচিত ভিক্ষুকের মত। এই কথাটি শুনেছেন কি? এর মানে হল সকালের খাবার ভারী, দুপুরের খাবার হালকা আর রাতের খাবার একদম হালকা। সবসময়ই রাতের খাবার হালকা খাওয়া উচিত। এটা অনেকেই শুনেছেন হয়তো। কিন্তু কেন সেটা জানেন কি? কারণ রাতে বেশি ভারী খাবার খেলে সেটা শরীরের জন্য ভালো না। আবার রাতে হালকা খাবার খাবারও কিছু উপকারিতা আছে।

হজম হয় সহজেঃ রাতে পেট ভারী লাগা, হজম না হাওয়া এই সমস্যা অনেকেরই আছে। এর একটা কারণ হল রাতে ভারী খাবার খাওয়া। রাতে খুব ভারী খাবার খেলে সেটা হজম হয় না। তার ফলে বুকজ্বালা, গলাজ্বালা, পেটব্যাথা, বমি , গ্যাস আর ঘুম না হাওয়া এসব হয়। আর তার প্রভাব পরের দিন অবধি থাকে। অন্য রাতের দিকে হালকা খাবার খেলে সেটা সহজেই হজম হয়। আর কোন সমস্যাও হয়না। ঘুম ভালো হয়। যেটি সারাদিন ভালভাবে কাজ করার জন্য খুবই প্রয়োজনীয়।

ওজন কমেঃ অতিরিক্ত ওজন কমাবার জন্য আমরা সারাদিন অনেক পরিশ্রম করি। কিন্তু এটা কেউ জানি না, ওজন কমাবার একটি সহজ উপায় হল রাতে হালকা খাবার খাওয়া। যখন তখন যা খুশি খেলে ওজন বেড়ে যায়। আর রাতে খাবার হালকা খেতে বলা হয় কারণ, রাতে খাবার পর কিছুক্ষণ পরেই আমরা শুয়ে পরি। তেমন কোন কাজ করিনা। তার ফলে ক্যালোরিও কম পোড়ে। তাই ভারী খাবার থেকে ক্যালোরি বেশি হবার সম্ভবনা থাকে। যেটা ওজন বাড়াতে সাহায্য করে।

রক্তে শর্করা নিয়ন্ত্রণ করেঃ যদি আপনি আপনার ব্লাড সুগার লেবেল কে নিয়ন্ত্রণ করতে চান, তাহলে তার একটি সহজ উপায় হল রাতে হালকা খাবার। রাতে হালকা খাবার রক্তে সুগার লেবেলকে নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে। এটি রাতে হাইপগ্লাইসেমিয়া কে নিয়ন্ত্রণে রাখে। এর জন্য রাতে শুতে যাবার এক থেকে দু ঘণ্টা আগে হালকা খাবার খাওয়া উচিত।

এনার্জি বাড়ায়ঃ রাতে হালকা খাবার পরের সারাদিন এনার্জির সাথে কাজ করার জন্য বেশ উপকারি। হালকা খাবার মস্তিষ্ক প্রক্রিয়াকে উন্নত করে। তার ফলে মেজাজও ভালো থাকে। শরীরের সমস্ত টিস্যুগুলি এনার্জি পায়।

ভালো ঘুম হয়ঃ এখন অনেকেরই রাতে ঘুমের একটি সমস্যা থাকে। কিন্তু যদি রাতে হালকা খাবার খাওয়া যায় তাহলে ঘুম ভালো হয়। কারণ হালকা খাবার খেলে শরীরের ওপর কোন চাপ পরে না। সহজেই হজম হয়ে যায় । তার ফলে ঘুম ভালো হয়। সঠিক সময় মেনে রাতে খাবার খেলে সহজেই ঘুম আসে। ঘুমে ব্যাঘাত ঘটে না।

রাতে হালকা খাবার বলতে কিন্তু না খেয়ে থাকা নয়, সুপ, ভেজিটেবল স্যালাড, রুটি, ডাল, দই এছাড়াও বিভিন্ন সব্জি ব্রোকলি, ফুলকপি, টম্যাটো ইত্যাদি দিয়ে তৈরি পাস্তা। এই ধরনের খাবার রাতে চলতে পারে। রাতে চা কফি এড়িয়ে চলুন। এতে ঘুমের সমস্যা হয়। আর একটা কথা মনে রাখা দরকার রাতে শোবার অন্তত একঘণ্টা আগে খাবার খাওয়া উচিত। এই কিছু বিষয় মাথায় রেখে রাতে খাবার খেলে দেখবেন ঘুমও ভালো হচ্ছে আর হজমের সমস্যাও আর হচ্ছে না।








Leave a reply