রক্তের মাত্রা শরীরে বাড়ানোর জন্য এই ৬ টি ফল খান

|

শরীরকে সুস্থ রাখতে, রক্তের মাত্রা ঠিক রাখা খুবই জরুরী। আর অনেকেরই এই মাত্রা প্রয়োজনের তুলনায় কম। এই সমস্যা হয় বিশেষত মেয়েদের। আর শরীরে প্রয়োজনের তুলনায় রক্তের মাত্রা কম থাকলে, নানারকম সমস্যা হতে পারে। তাই রক্তের মাত্রা ঠিক রাখা একান্ত দরকার। আর যাদের শরীরে রক্তের মাত্রা প্রয়োজনের তুলনায় কম, তাঁরা কিছু ফল বেশী করে খেলে এই সমস্যা থেকে বেরিয়ে আসতে পারবেন। তাই আজকের লেখায় থাকলো কয়েকটি বিশেষ ফলের সন্ধান।

১. আপেলঃ প্রতিদিন আপেল খেয়ে যেতে পারলে, ডাক্তারের থেকে অনেক দূরে থাকা যায়। আপেল সব রকম ভাবে আপনাকে সুস্থ রাখতে পারে। আর শুধু কি শরীর, সুন্দর স্কিন পাওয়ার একটা রহস্য হল আপেল। শরীরে রক্তের মাত্রা ঠিক রাখতে এর জুড়ি মেলা ভার। কারণ এতে আছে প্রচুর পরিমাণে আয়রন, ভিটামিন সি, বি কমপ্লেক্স ছাড়াও আরও অনেক ভিটামিনস আর মিনারেলস। এছাড়া আপেলের অনেক পুষ্টিগুণ আছে যা হিমোগ্লোবিনের মাত্রা ঠিক রাখতে সাহায্য করে। আপেলের রসের সাথে বিটের রস মিশিয়ে খেলে আরও তাড়াতাড়ি ফল পাবেন।

আয়রন” প্রতি ১০০ গ্রামে এতে থাকে ০.৩১ মিলিগ্রাম আয়রন।

২. বেদানাঃ আপেলের মত বেদানাও সমান উপকারী, শরীরে রক্তের মাত্রা ঠিক রাখতে। কারণ এতে আছে আয়রন, ভিটামিনস, মিনারেলস, ফাইবার, পটাসিয়াম, ফসফরাস ছাড়াও আরও নানারকম পুষ্টিগুণ। যেগুলি শুধু শরীরে রক্তের মাত্রা ঠিক রাখতে নয়, গোটা শরীরকে সবরকম ভাবে সুস্থ রাখতে সাহায্য করে। তাই আপেলের মত রোজ যদি বেদানার রস খাওয়া যায়, তাহলে এটাও আপনাকে ডাক্তারের থেকে রাখবে অনেক দূরে।

আয়রনঃ প্রতি ১০০ গ্রামে এতে থাকে ০.৩ মিলিগ্রাম আয়রন।

৩. স্ট্রবেরীঃ খেতেও যেমন সুস্বাদু, তেমনই আয়রনে ভরপুর। এর গাঢ় লাল রঙটি খুবই উপকারী শরীরের জন্য। আর আয়রন ছাড়াও এতে আছে, প্রচুর ভিটামিন সি। যা আয়রনকে শরীরে কাজে লাগাতে সাহায্য করে। তবে শুধু শরীর রূপচর্চার ক্ষেত্রেও একে কাজেও লাগানো হয়। কারণ এটা স্কিনকে খুব সুন্দর ভাবে হাইড্রেট রাখতে সাহায্য করে।

আয়রনঃ প্রতি ১০০ গ্রামে এতে থাকে ০.৪ মিলিগ্রাম আয়রন।

৪. তরমুজঃ গরমকালে অনেকেরই প্রিয় ফল তরমুজ। প্রচণ্ড গরমে এক গ্লাস তরমুজের রস খেলে শরীর পুরো ফ্রেশ হয়ে যায়, এটা তো আমরা সবাই জানি। কিন্তু অনেকেই হয়তো জানেন না, শরীরকে ফ্রেশ রাখার সাথে সাথে, এটা আপনার শরীরে রক্তের মাত্রা ঠিক রাখতেও বেশ উপকারী। কারণ এতেও আছে আয়রন ও ভিটামিন সি। এছাড়াও এতে ভিটামিন এ, বি ৬, পটাশিয়াম, অ্যামাইনো অ্যাসিড ও প্রচুর অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট। যা শরীরকে ভেতর থেকে সতেজ রাখে। শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। আর অবশ্যই রক্তে হিমোগ্লোবিনের মাত্রা ঠিক রাখে।

আয়রনঃ প্রতি ১০০ গ্রামে এতে থাকে ০.৪ মিলিগ্রাম আয়।

৫. যেকোনো লেবুঃ যেকোনো লেবু খুব উপকারী শরীরে রক্তের মাত্রা ঠিক রাখতে। কারণ লেবু হল ভিটামিন সি-এর ভাণ্ডার। আর ভিটামিন সি আয়রনকে শরীরে কাজে লাগাতে সাহায্য করে। ভিটামিন সি ছাড়া আয়রন সেভাবে শরীরে কাজে লাগতে পারে না। শরীর থেকে বেরিয়ে যায়। তাই যেকোনো লেবুই এক্ষেত্রে উপকারী। বিশেষত কমলালেবু, পাতিলেবু। এগুলি শরীরে আয়রনকে কাজে লাগানোর সাথে, যাদের ঠাণ্ডা লাগার সমস্যা আছে তাঁদের জন্য খুব উপকারী। তাঁরা যদি প্রতিদিন একটা করে পাতিলেবু খান, তাহলে সর্দিকাশির থেকে অনেক দূরে থাকতে পারবেন। তাই আয়রনকে শরীরে সঠিক ভাবে কাজে লাগাতে ভিটামিন সি খান।

৬. পাকা পেঁপেঃ পেঁপে খেতে তেমন ভালো না হলেও, পুষ্টিগুণে ভরা। আর শরীরে রক্তের মাত্রা ঠিক রাখতে এর মত উপকারী ফল খুব কমই আছে। কারণ এতে আছে প্রচুর ভিটামিন সি। যা শরীরে রক্তের মাত্রা ঠিক রাখতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। ভিটামিন সি ছাড়াও এতে আছে আয়রন, ফাইবার, ফোলেট, ক্যালোরি, পটাশিয়াম ও ভিটামিন বি ১, ৩ ও ৫। এছাড়াও আছে আরও নানা পুষ্টিগুণ। পেঁপে শরীরে রক্তের মাত্রা ঠিক রাখার সাথে সাথে সুন্দর স্কিন দিতেও সাহায্য করে।

শরীরে রক্তের মাত্রা ঠিক রাখতে, বা যাদের এই সমস্যা অলরেডি হয়েছে তারা এই ফলগুলো নিয়মিত খান। তাহলে দেখবেন আর হিমোগ্লোবিনের সমস্যার জন্য ঘন ঘন আপনাকে ডাক্তারের কাছে ছুটতে হচ্ছে না।








Leave a reply