বিয়ে বাড়ি থেকে রেস্তোরাঁ , খাওয়ার শেষে কেন মৌরি-মিছরি দেওয়া হয় জানেন

|

মৌরি এবং মিছরির স্বাদ একদিকে যেমন টেস্টি ,তেমনি মনকে প্রশান্তি দেয়।  মৌরি আমাদের হজমের জন্যও ভাল।  সুতরাং খাবারের পরে যখন মৌরি খাওয়া হয়, হজম সহজ হয়ে যায়।  গ্যাসের সমস্যা থাকে না এবং পেটে কোনও ভারী লাগে না ।  এই সমস্ত কিছুর অর্থ এই নয় যে মৌরি খাওয়া কেবল পেট ঠিক রাখে।  মৌরি দিয়ে মিছরি খাওয়ার ফলে শরীর ও মন উভয়ই উপকার পাওয়া যায় ।  আসুন, জেনে নেওয়া যাক এই দুটিয়ের সংমিশ্রণটি কী আশ্চর্যজনক ফল দেয়। খাবারের পরে মৌরি এবং মিছরি দেওয়ার প্রচলন আছে  রেস্তোঁরা থেকে বিয়ে বাড়ি পর্যন্ত …

 মস্তিষ্কের জন্য উপকারী – মৌরি আমাদের হজমের পাশাপাশি আমাদের মস্তিস্কের জন্যও খুব উপকারী।  মৌরির পুষ্টি উপাদানগুলির চেয়ে আমাদের সুগন্ধ আমাদের মস্তিষ্কে বেশি প্রভাব ফেলে।  মৌরি চিবানোর সময়, এর স্বাদটি আমাদের জিভের স্বাদ পূর্ণতা বোধ করে।  যদিও এর সুগন্ধ আমাদের মনকে শান্ত করতে কাজ করে।   মৌরি খাওয়ার সময় সন্তুষ্টির কারণে আমাদের শরীরে হ্যাপি হরমোনের ক্ষরণ বাড়ায় এবং মনকে শান্ত করে।

-হ্যাপি হরমোন যেমন, ডোপামিন, এন্ডোরফিনস এবং অক্সিটোসিন ভাল পরিমাণে থাকে তবে আমাদের চিন্তাভাবনা এবং বোঝার স্তরটি আরও ভাল।  আমাদের শেখার অভ্যাসের বিকাশ ঘটে।  বিশেষ জিনিসটি হ’ল এই সময়ে আমরা যে জিনিসগুলি শিখি এবং অধ্যয়ন করি।  তারা আমাদের দীর্ঘকাল ধরে স্মরণ করে।  অর্থাৎ, আমাদের স্মৃতিশক্তি বাড়াতে মৌরির কোনও প্রত্যক্ষ ভূমিকা নেই, হরমোনগুলি এর জন্য দায়ী।  তবে মৌরির সাহায্যে এই হরমোনগুলির নিঃসরণ অবশ্যই বাড়ানো যায়।

 রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সহায়ক

 মৌরি আমাদের দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সহায়তা করে।  কারণ এটি ভিটামিন-সি প্রাপ্তির একটি প্রাকৃতিক উপায়।  মৌরি খাওয়া কেবল শরীর এবং মনকে শান্ত করে না, রোগে প্রতিরোধ ক্ষমতাও বাড়িয়ে তুলতে পারে।  এটি কারণ ভিটামিন-সি কেবল আমাদের দেহে রোগ প্রতিরোধক কোষ বাড়াতে কাজ করে।  ভিটামিন-সি শ্বেত রক্ত ​​কণিকা অর্থাৎ ডাব্লুবিসি হার বাড়িয়ে তুলতে সহায়তা করে।

 – এই ডাব্লুবিসি হ’ল এমন কোষ যা শরীরে কোনও ভাইরাস বা ব্যাকটেরিয়া প্রবেশের পরে যতটা সম্ভব তাদের মেরে ফেলে এবং দেহে ছড়িয়ে পড়তে বাধা দেয়।  অ্যান্টিবডিগুলি সেই ভাইরাসের বিরুদ্ধে শরীরে গঠন শুরু না করা পর্যন্ত!  কেন এটি আশ্চর্যজনক তথ্য নয়!  অর্থাৎ খাবার খাওয়ার পরে মৌরি খাবেন এবং স্বাদ সহ স্বাস্থ্যকর স্বাস্থ্য পাবেন…।

শরীরকে শক্ত করুন

 – মৌরি খাওয়া আমাদের শারীরিক দুর্বলতা দূর করতেও কাজ করে।  কারণ মৌরিতে ম্যাগনেসিয়াম, ক্যালসিয়াম, ম্যাঙ্গানিজ, পটাসিয়াম ইত্যাদি পুষ্টিকর উপাদান রয়েছে ।  এই সমস্ত খনিজগুলি আমাদের দেহের পেশী এবং হাড়কে শক্তিশালী করতে কাজ করে।

 মৌরি দিয়ে  মিছরি খাওয়ার উপকারিতা

 – মৌরি দিয়ে চিনির মিছরি খাওয়ার প্রথম উপকারিতা হ’ল মৌরির হালকা কষা স্বাদটি  মিছরি সহ খেলে তা অনুভূত হয় না।

 -মৌরি দিয়ে মিছরি খাওয়ার অন্যান্য সুবিধা হ’ল আমাদের দেহ ও মন খাবার গ্রহণে সম্পূর্ণ তৃপ্তি লাভ করে।  এটি মানসিক ঘনত্ব বাড়াতে সহায়তা করে।

 -মৌরি দিয়ে মিছরি খাওয়ার তৃতীয় সুবিধা হ’ল যখন খুব সীমিত পরিমাণে চিনি, অর্থাৎ চিনি মৌরি দিয়ে দেহে প্রবেশ করে, তখন এটি শরীরকে শারীরিকভাবে অস্বস্তি বোধ করতে দেয় না।  কারণ খাওয়ার পরে আমরা সকলেই কিছু সময়ের জন্য খুব অলস অনুভব করি।  মৌরি এবং মিছরি সেবন করা আমাদের সেই অলসতা থেকে বাঁচায়।








Leave a reply