প্রতিদিন ৫০ গ্রাম ভাজা ছোলা খাওয়ার উপকারীতা জেনে নিন

|

যদি আপনি কেবল স্বাদ মতো ছোলা খান, তবে সেগুলি আপনার রুটিনে অন্তর্ভুক্ত করুন। হ্যাঁ, প্রতিদিন ভাজা ছোলা খাওয়া আপনার শরীরকে বিভিন্ন উপায়ে উপকৃত করে। এটি পুষ্টিকর এবং পেটের কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে। আপনাকে বলি যে বাজারে খোসা এবং খোসা ছাড়াই দুই ধরণের ছোলা পাওয়া যায়। খোসা ছাড়াই ছোলা খাওয়ার চেষ্টা করুন সেটা স্বাস্থ্যের পক্ষে ভাল। কার্বোহাইড্রেট, প্রোটিন, আর্দ্রতা, ক্যালসিয়াম, আয়রন এবং ভিটামিন ভাজা ছোলায় প্রচুর পরিমাণে পাওয়া যায়।

এ প্রসঙ্গে বসন্ত কুঞ্জের ভারতীয় মেরুদণ্ডের ইনজুরি সেন্টারের সিনিয়র ডায়েটিশিয়ান ডাঃ হিমাংশী শর্মা মতে, যে একজন সুস্থ ব্যক্তির প্রতিদিন ৫০ থেকে ৬০ গ্রাম ছোলা খাওয়া উচিত। এটি বিভিন্নভাবে তার স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী। আপনি যদি নাস্তায় প্রতিদিন বা মধ্যাহ্নভোজের আগে ৫০ গ্রাম ভুনা ছোলা খান তবে এটি শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে। আপনি বা আপনার পরিবারের কেউ যদি স্থূল হয় তবে ভাজা ছোলা খাওয়া তাদের পক্ষে খুব উপকারী।

প্রতিদিন ভাজা ছোলা খাওয়ার ফলে স্থূলতায় আরাম পাওয়া যায়। এটি গ্রহণ শরীর থেকে অতিরিক্ত মেদ গলেতে সহায়তা করে। ভাজা ছোলা ব্যবহার প্রস্রাব সম্পর্কিত রোগ থেকে মুক্তি পেতে সহায়তা করে। যাদের ঘন ঘন প্রস্রাবের সমস্যা হয় তাদের প্রতিদিন গুড়ের সাথে ছোলা খাওয়া উচিত। আপনি দেখতে পাবেন যে এটি কয়েক দিনের মধ্যে স্বস্তি দেবে।

ভাজা ছোলা দুধের সাথে খেলে শুক্রাণুর পাতলাভাব দূর হয় এবং বীর্য ঘন হয়। মানুষের বীর্য যদি পাতলা হয় তবে ছোলা খেলে উপকার পাবেন। ভাজা ছোলা মধুর সাথে খেলে পুরুষত্বহীনতা দূর হয় এবং পুরুষত্ব বাড়ে। ভাজা ছোলা খেয়ে কুষ্ঠরোগও দূর হয়। যাদের কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা রয়েছে তারা প্রতিদিন ছোলা খেয়ে প্রচুর স্বস্তি পান।

ছোলা রক্ত পরিষ্কার করে, যা ত্বকের উন্নতি করে। ছোলায় অনেক ফসফরাস রয়েছে যা হিমোগ্লোবিনের মাত্রা বৃদ্ধি করে এবং কিডনি থেকে অতিরিক্ত লবণ সরিয়ে দেয়। ভাজা ছোলা খাওয়া ডায়াবেটিসেও উপকারী। ভাজা ছোলা গ্লুকোজ শোষণ করে যাতে ডায়াবেটিস রোগ নিয়ন্ত্রণে থাকে। ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য ভুনা ছোলা প্রতিদিন খেলে রক্তে শর্করার মাত্রা হ্রাস পায়।








Leave a reply