পেয়ারা ওজন হ্রাস থেকে শুরু করে অনেক রোগ প্রতিরোধ করে থাকে

|

শীত নক করেছে, তবে পরিবর্তিত মৌসুমেও অনেক রোগ হয়। এই আবহাওয়া ব্যাকটিরিয়া এবং ভাইরাসগুলির পক্ষে অনুকূল, যা আপনাকে সহজেই ধরতে পারে। এমন অনেকগুলি ফল রয়েছে যা আপনার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে তোলে। এর মধ্যে একটি ফল পেয়ারা। কমলার চেয়ে পেয়ারাতে চারগুণ বেশি ভিটামিন সি রয়েছে। এটি কাশি, সর্দি ইত্যাদির মতো ছোট সংক্রমণকে বাধা দেয়। এটি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় এবং রোগের বিরুদ্ধে লড়াই করতে সহায়তা করে।

ওজন হ্রাসে সহায়তা:
পেয়ারা ওজন কমাতেও সহায়ক। এটিতে খুব কম ক্যালোরি এবং উচ্চ ফাইবার থাকে। একটি পেয়ারাতে প্রায় ১১২ ক্যালোরি থাকে যার কারণে একজন দীর্ঘ সময় ক্ষুধার্ত বোধ করে না এবং ধীরে ধীরে ওজন হ্রাস শুরু করে।

চোখের আলো বাড়ানো:
ভিটামিন – এ চোখের আলো বাড়িয়ে চোখকে সুস্থ রাখতে কাজ করে। পেয়ারাতে পাওয়া পুষ্টি উপাদান ছানি ছড়িয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা হ্রাস করে। এটি খেয়ে দুর্বল চোখের আলো বাড়াতে শুরু করে।

রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করুন:
এতে উপস্থিত ফাইবার এবং পটাসিয়াম কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণে সহায়ক। পেয়ারা খাওয়ার ফলে হার্টবিট এবং রক্তচাপ নিরাময় হয়।

দাঁত এবং মাড়ির রোগ:
পেয়ারা দাঁত এবং মাড়ির জন্যও খুব উপকারী। মুখে আলসার থাকলে পেয়ারা পাতা চিবান, এতে স্বস্তি আসবে। পেয়ারার রস ক্ষতটি দ্রুত নিরাময়ে সহায়তা করে। স্ট্রেস কম ম্যাগনেসিয়াম স্টার হরমোন নিয়ন্ত্রণেও কাজ করে, যা পেয়ারা সমৃদ্ধ। দিনের ক্লান্তি থেকে
মুক্তি পেতে চাইলে পেয়ারা খাবেন। এতে মানসিক অবসাদ হয় না।

কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতে:
কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করুন কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা হলে খালি পেটে পাকা পেয়ারা খান। পিত্তজনিত সমস্যায় পেয়ারাও উপকারী।








Leave a reply