নয় রোগ থেকে মুক্তি দেবে প্রতিদিনের একটি ডিম!

|

ডিম খুবই পুষ্টিকর একটি খাবার। তাইতো প্রতিদিনের নাস্তায় একটি ডিম রাখা খুব জরুরি। অনেকের ধারণা ডিম খাওয়া ক্ষতিকর। এতে ওজন বৃদ্ধি, রক্তে চর্বির পরিমাণ বেড়ে যাওয়া কিংবা হৃদরোগের ঝুঁকি বাড়ার আশংকা থাকে। তবে এই ধারণাটি একদমই ভুল।

ছোট্ট একটি ডিম নানা পুষ্টিগুণে সমৃদ্ধ। প্রতিদিন একটি ডিম খেলে নয় রোগ থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। তাই সুস্থ থাকতে চাইলে নানাবিধ গুণের কারণে প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় একটি ডিম রাখুন। চলুন জেনে নেয়া যাক রোজ একটি ডিম খেলে কি কি উপকার পাওয়া যাবে-

১. এতে রয়েছে ভিটামিন ডি, যা পেশীকে শক্তিশালী রাখতে সাহায্য করে।

২. ডিম-এর মধ্যে রয়েছে ভিটামিন এ, যা দৃষ্টিশক্তি বাড়াতে সহায়তা করে। ডিমের কেরোটিনয়েড, লুটেন ও জিয়েক্সেনথিন চোখের ছানি কমাতে সাহায্য করে। এছাড়া ম্যাকুলার ডিজেনারেশন হওয়ার সম্ভাবনা কমায়।

৩. ছোট্ট একটি ডিম হাজারো ভিটামিনে ভরা। এর ভিটামিন বি-১২ আমাদের গ্রহণকৃত খাবারকে শক্তিতে রূপান্তরিত করতে সাহায্য করে।

৪. ডিমের সবচেয়ে বড় গুণ হচ্ছে এটি ওজন কমাতে সাহায্য করে। প্রতিদিনের নাস্তায় একটি ডিম খেলে সারাদিন আপনার ক্ষুধা কম লাগবে।

তাই খাওয়াও হবে কম। গবেষণায় দেখা যায় শরীর থেকে দিনে প্রায় ৪০০ ক্যালরি কমাতে পারে সকালে একটি ডিম খাওয়াতে।

৫. একটি ডিমে রয়েছে ৬.৫ গ্রাম প্রোটিন বা ৭০-৮৫ ক্যালরি। যা রোজকার প্রোটিন এর চাহিদার অনেকটা পূরণ করে।

৬. ডিমে রয়েছে আয়রন, জিংক, ফসফরাস। যা শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে দেয়। আর ফসফরাস হাড় ও দাঁত মজবুত রাখে।

৭. একটি গবেষণায় দেখা গেছে ডিম কোলেস্টেরল বাড়ায় না। দিনে একটা ডিম খেলেও আপনার লিপিড প্রোফাইল কোনো প্রভাব পড়বে না।

৮. একটি ডিমে প্রায় ৩০০ মাইক্রোগ্রাম কোলাইন থাকে। যা কার্ডিওভাস্কুলার সিস্টেম, স্নায়ু, যকৃত ও মস্তিষ্কের জন্য ভালো।

৯. চুল ও নখের মান উন্নত রাখতে নিয়মিত ডিম খান। কারণ ডিমের মধ্যে থাকা সালফার চুল ও নখের স্বাস্থ্য ভালো রাখে।








Leave a reply