নরম ও মসৃণ হাতের জন্য ঘরোয়া কয়েকটি টিপস জেনে নিন

|

ত্বকের যত্ন নিতে সবাই পছন্দ করেন। বিশেষ করে কোমল ও সুন্দর হাতের জন্য আমরা মাসে মাসে পার্লারে গিয়ে অনেক টাকা খরচ করে থাকি মেনিকিওর করে। কিন্তু আপনারা কি জানেন ঘরে বসে প্রাকৃতিক উপায়ে আপনি মেনিকিওর করতে পারেন। বিশেষ করে ঘরণীরা সারাদিন যে সব কাজ করেন, বাসন ধোঁয়া, কাপড় ধোঁয়া, রান্না করা এসবের ফলে হাত রুক্ষ ও শুষ্ক হয়ে যায়। তাই হাত নরম ও মসৃণ রাখতে নীচে দেওয়া কয়েকটি টিপস ব্যবহার করতে পারেন।

১. নারকোল তেল ঃ হাতের আদ্রতার অভাবে হাত রুক্ষ ও শুষ্ক হয়ে ওঠে। কোমলতা হারিয়ে যায়। নারকোল তেলের সাহায্য খুব সহজেই হাতের আদ্রতাকে ফিরিয়া আনা যেতে পারে মাত্র কয়েকদিনে। একটি পরিষ্কার পাত্রে নারকোল তেল নিন সাথে লেবুর রস মেশান। রোজ কাজের শেষে হাত ভালো করে ধুয়ে মেখে নিন। ৩০ মিনিট পর ঠাণ্ডা জলে হাত ধুয়ে নিন। সবচেয়ে ভালো উপায় একটি বোতলে এই মিশ্রণ বানিয়ে রেখে দিন। এক সপ্তাহ থাকবে। নষ্ট হবে না। রোজ ব্যবহার করলে নারকোলে থাকা উপাদান হাতের আদ্রতা সহজে ফিরে আসবে।

২. ভিনিগারঃ হাত নরম রাখতে ভিনিগার ব্যবহার করতে পারেন। ভিনিগার সহজে রুক্ষ ত্বককে মসৃণ বানাতে সাহায্য করে। রোজ দিনে একবার যদি ভিনিগার দিয়ে হাতের যত্ন নিতে শুরু করেন তাহলে কয়েকদিনের মধ্যেই আপনি তফাৎ দেখতে পাবেন। কাজের শেষে একটি পাত্রে ভিনিগার নিন তাতে সামান্য পরিমান জল মিশিয়ে নিন। এবার ভালো করে হাত ধুয়ে শুকনো কাপড়ে মুছে নিন। ভিনিগার ও জলের মিশ্রণ হাতে মেখে ৫ মিনিট ম্যাসাজ করুন। এরপর সুতির কাপড় দিয়ে ভিনিগার লাগানো দুই হাত ১৫ মিনিটের জন্য কভার করে রেখে দিন। তারপর ঠাণ্ডা জলে হাত ধুয়ে যেকোনো ভালো ক্রিম মেখে নিন।

৩. অলিভ অয়েল ঃ অলিভ অয়েল হাতের যত্ন নিতে সাহায্য করে। অলিভ অয়েল আর চিনি সমান মাপে নিয়ে ভালো করে মিক্স করে প্যাক বানিয়ে নিন। তারপর হাতে এই প্যাক লাগিয়ে ১৫ থেকে ২০ মিনিট ম্যাসাজ করুন। তারপর হালকা গরমজলে হাত ধুয়ে নিন ৩০ মিনিট পর। হাত মুছে হাতে একটু মাখন বা ভালো কোন লোশন লাগিয়ে নিন। সবচেয়ে ভালো মাখন লাগানো। হাত নরম ও মসৃণ হতে সময় কম লাগে। রোজ রাতে ঘুমনোর আগ একবার করে করা যেতে পারে। তাছাড়া দিনের যেকোনো সময়ে আপনি এই ঘরোয়া উপায় ব্যবহার করতে পারেন।

৪. ভ্যাসলিনঃ হাত নরম রাখতে ভ্যাসলিন ব্যবহার করতে পারেন। ভ্যাসলিন সহজে রুক্ষ ত্বককে মসৃণ বানাতে সাহায্য করে। রোজ দিনে একবার যদি ভ্যাসলিন দিয়ে হাতের যত্ন নিতে শুরু করেন তাহলে কয়েকদিনের মধ্যেই আপনি তফাৎ দেখতে পাবেন।রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে হাত ধুয়ে পরিষ্কার করে নিন। তারপর হাতে সামান্য ভ্যাসলিন নিয়ে ম্যাসাজ করুন। ২ থেকে ৩ মিনিট ম্যাসাজ এরপর পাতলা বা পুরনো হাত মোজা পরে নিন। সকালে ঘুম থেকে ওঠার পর হাত ধুয়ে ফেলুন। ভ্যাসলিনে থাকা উপাদান হাতের আদ্রতা সহজে ফিরে আসবে।

বিশেষ করে যে বিষয়গুলি খেয়াল রাখবেনঃ যতটা সম্ভব সাবানের ব্যবহার কম করুন। ক্ষারধর্মীয় সাবানের ব্যবহার একদম না করা হাতের জন্য ভালো। ত্বক রুক্ষ হবে না সহজে। ফলে নরম ও মসৃণ থাকবে হাত।অ্যালোভেরা জেল সপ্তাহে ২ বার করে লাগাতে পারেন। ত্বকের জন্য ভালো ফলাফল দেবে।ভিনাইল গ্লাভস হাতের জন্য একদম ব্যবহার করবেন না। এটি হাতকে বেশি মাত্রায় শুষ্ক করে দেয়। চেষ্টা করুন কটন বা লেদারের গ্লাভস ব্যবহার করতে।এই টিপসগুলি ব্যবহারে যদি ত্বকে অস্বস্তি দেখা দেয় তাহলে স্কিনের ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করে হাতের যত্ন নিন।








Leave a reply