দাঁতের ব্যথা থেকে মুক্ত পেতে এই ৬টি উপায় জেনে নিন

|

দাঁতে ব্যথা খুব সাধারণ হয়ে উঠেছে। এই কারণে লোকেরা খাওয়া এবং পান করতেও সমস্যা হয়। রাতে হঠাৎ দাঁতে ব্যথা লাগলে আপনি এই প্রতিকারগুলির সাহায্য নিতে পারেন।

অনেক সময় মানুষ শীত এবং গরম খায়, কখনো কখনো সংক্রমণের কারণে, দাঁত ব্যথার সমস্যা নিয়ে মানুষ লড়াই করে। লোকেরা দিনের বেলা কখনো ব্যথা সহ্য করে তবে রাতে ব্যথা অসহনীয়। এক্ষেত্রে যদি একটু মনোযোগ দেওয়া হয় তবে এই সমস্যাটি কাটিয়ে উঠতে পারে। আজ, আমরা আপনাকে দাঁত ব্যথায় তাৎক্ষণিক উপশমের জন্য এমন কিছু ঘরোয়া উপায় এবং সহজ প্রতিকারের তথ্য দেব, যার সাহায্যে আপনি ব্যথা থেকে তাৎক্ষণিক উপশম পাবেন। দাঁত ব্যথার ওষুধ- অ্যাসিটামিনোফেন (টাইলেনল) বা আইবুপ্রোফেন (অ্যাডভিল), এর মধ্যে কয়েকটি ওষুধ সহজেই যে, কোনও ফার্মাসিতে পাওয়া যায়। এগুলি তাৎক্ষণিকভাবে কার্যকর এবং ব্যথা কমাতে সহায়তা করে। ওষুধের ডোজটি সাবধানে নেওয়া উচিত। যদি তাদের দ্বারা ব্যথা নিরাময় না হয়, তবে ডাক্তারকে দেখা উচিত।

দাতের ব্যথ্যা কমানোর কিছু ঘরোয়া টিপস
১. ঠাণ্ডা চাপ- দাঁতে ঠান্ডা চাপ দিয়ে ব্যথা থেকেও মুক্তি পাওয়া যায়। মুখের পাশের তোয়ালেগুলিতে কিছু তুষার ঝুঁটি বেঁধে রক্তনালীগুলি শক্ত করা হয়, যা ব্যথায় আক্রান্ত ব্যক্তির ঘুমিয়ে পড়ে। বিছানায় যাওয়ার আগে প্রতিদিন ১৫-২০ মিনিট এটি করা দাঁতের ব্যথাও হ্রাস করে।

২. মাথা উঁচু রাখুন – দু-তিন বালিশের সাহায্যে মাথা উপরে তুলে ব্যথা থেকে মুক্তি পেতে পারেন। অনেক সময় মাথায় রক্ত গঠনের কারণে দাঁতে ব্যথার সমস্যাও দেখা দেয়। এটি করে, সে ভাল হয়ে যায় এবং একই সাথে ঘুমায়।

৩.ওষধি মলম ব্যবহার- কখনো কখনো দাঁত ব্যথা থেকে মুক্তি পেতে লোকেরা মৌখিক-মলম বা মলম ব্যবহার করে । কিছু মলমে বেনজোকেন নামে একটি উপাদান থাকে, যা সেই অংশটি কিছু সময়ের জন্য অসাড় হয়ে যায়। তবে এই উপাদানটি শিশুদের জন্য বিপজ্জনক বলে মনে করা হয়।

৪. নুন-জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন- দাঁতে ব্যথার জন্য সর্বাধিক সাধারণ ঘরোয়া প্রতিকার নুনের জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। নুনে অ্যান্টিব্যাক্টেরিয়াল উপাদান রয়েছে যা দাঁত এবং মাড়িকে প্রদাহ থেকে রক্ষা করে, এতে দাঁতগুলি সংক্রমণ থেকে রক্ষা পায়। এ ছাড়া দাঁতে আটকে থাকা খাবারও ধুয়ে বেরিয়ে আসে।

৫. পুদিনা চা- দাঁত ব্যথা উপশম করতে পুদিনা চাও বেশ কার্যকর। দাঁতের মাঝে পুদিনার রস লাগালে কিছু সময়ের জন্য স্বস্তিও পাওয়া যায়। গবেষণা অনুসারে, পুদিনায় অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়া এবং অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট উপাদান মেন্থল রয়েছে যা সংবেদনশীল অংশগুলি শোনার জন্য কার্যকর।

৬. লবঙ্গ- ইউজেনল লবঙ্গগুলিতে উপস্থিত একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান যা দাঁত ব্যথা প্রতিরোধে সহায়তা করে। অনেকে এটিকে পিষে ব্যথার অংশে প্রয়োগ করেন। পুরো চিবিয়ে খেলেও ব্যথা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। তবে এটি বাচ্চাদের পক্ষে ভাল বিকল্প নয়। অজান্তেই লবঙ্গ গিলে ফেলা বিপজ্জনক ও বেদনাদায়ক








Leave a reply