ডিম খাওয়ার ৫ টি দুর্দান্ত সুবিধা জেনে নিন

|

আপনি নিশ্চয়ই শুনেছেন যে ‘রবিবার বা সোমবার, শীত বা গ্রীষ্মে প্রতিদিন ডিম খায়’। হ্যাঁ, ডিম এত আশ্চর্যজনক যে, প্রত্যেকেরই এটি তাদের ডায়েটে অন্তর্ভুক্ত করা উচিত। ডিম একটি সুপার ফুড। এটি খেয়ে আপনি প্রোটিন, ক্যালসিয়াম এবং ওমেগা ৩ ফ্যাটি অ্যাসিড পান। প্রোটিন আমাদের দেহের পেশী শক্তিশালী করে, ক্যালসিয়াম দাঁত এবং হাড়কে মজবুত করতে সহায়তা করে। বিশেষ বিষয়টি হল ডিমগুলিতে উপস্থিত ওমেগা ৩ ফ্যাটি অ্যাসিডগুলি শরীরে ভাল কোলেস্টেরল অর্থাৎ এইচডিএল তৈরি করে। আমি আপনাকে বলি যে খুব কম খাবার আইটেম রয়েছে যাতে ওমেগা ৩ ফ্যাটি অ্যাসিড পাওয়া যায়।

১. ডিম ওজন নিয়ন্ত্রণে খুব সহায়ক। আসলে, ডিম খেয়ে ক্ষুধা হ্রাস পায়। এটি খাওয়ার পরে, আপনার পেট দীর্ঘ সময়ের জন্য পরিপূর্ণ এবং আপনি অত্যধিক খাওয়া থেকে রক্ষা পেয়েছেন। যদি আপনি ওজন হ্রাস করতে চান তবে ডিমের সাদা অংশটিই খান কারণ হলুদ অংশটি কোলেস্টেরল খুব বেশি। যারা জিমে যান তাদের ডায়েটে ডিমগুলি বিশেষভাবে অন্তর্ভুক্ত থাকে। তবে তাদের কেবল সাদা অংশই খাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়। একই সঙ্গে, যারা ওজন বাড়াতে চান, তাদের ডিমের হলুদ অংশটি বিশেষত খাওয়া উচিত। যেসব শিশু ওজন হ্রাস করে তাদের প্রতিদিন একটি করে ডিম খাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়।

২. চোখের আলো বাড়ানো ডিম প্রচুর ক্যারোটিনয়েডগুলিতে পাওয়া যায় যা চোখের স্বাস্থ্যের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ। ক্যারোটিনয়েড চোখের পেশী শক্তিশালী করে। প্রতিদিন একটি ডিম খেলে ছানি ছড়িয়ে যাওয়ার ঝুঁকি থাকে না। এতে উপস্থিত অ্যান্টিঅক্সিড্যান্টগুলি রেটিনা শক্তিশালী করার জন্য কাজ করে।

৩. স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধি, নিষিদ্ধ উত্তেজনা ওমেগা ৩, ডিমের মধ্যে উপস্থিত ভিটামিন এবং ফ্যাটি অ্যাসিড মস্তিষ্কের জন্য খুব উপকারী। শুধু এটিই নয়, ডিমের মধ্যে কোলাইন পাওয়া যায়, যার কারণে স্মৃতিশক্তি দ্রুত হয় এবং মস্তিষ্ক সক্রিয় থাকে। এ ছাড়া ডিমের মধ্যে উপস্থিত ভিটামিন বি -১২ উত্তেজনা থেকে মুক্তি দিতে সহায়তা করে। এর মধ্যে কিছু উপাদানও পাওয়া যায় যা হতাশা থেকে মুক্তি দেয় এবং মেজাজকে ভাল করে তোলে।

৪. ডিমের হলুদ অংশ যা চুল এবং ত্বকের জন্য উপকারী, তাতে বায়োটিন থাকে যা চুলকে শক্তি দেয়। ডিমের কুসুম ফেসপ্যাক বা মাস্ক হিসাবে ব্যবহার করে আপনি ত্বকের কুঁচকিকে হ্রাস করতে পারেন।

৫. শক্তি সমৃদ্ধ ডিম খাওয়া আপনার শরীরকে প্রচুর পরিমাণে শক্তি দেয়। প্রাতঃরাশের জন্য ডিম খাওয়া আপনাকে দিনভর উজ্জীবিত রাখবে। এটি আপনার দক্ষতাও বাড়ায়।








Leave a reply