ঠান্ডাজনিত কারণে এই ১০ টি রোগ হয় এবং এর সহজ চিকিৎসা জেনে নিন

|

শীতকালীন আবহাওয়াটি স্বাস্থ্য এবং সৌন্দর্যের ক্ষেত্রে বেশ কিছু স্বাস্থ্য সমস্যা সৃষ্টি করে। কিছু ঘরোয়া প্রতিকার ব্যবহার করে সহজেই এই সমস্যাগুলি এড়ানো যায়। ঠাণ্ডায় এই ১০ টি রোগ জেনে নিন এবং তাদের জন্য সহজ চিকিৎসা জেনে নিন-

১. ঠান্ডা আবহাওয়াতে কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা দেখা দেয়। বিশেষত হজমের কারণে এই সমস্যা আরও বেড়ে যায়। এটি এড়াতে এই মৌসুমে প্রচুর পরিমাণে পানি পান করুন। খাবার পরে জিরা গুঁড়ো খেলে হজমে উন্নতি হয়।

২. ঠান্ডা বাতাস এবং শীতের কারণে অনেকের মাথা ব্যথা হয় যা। এটি হলে জায়ফলকে পিষে দুধ দিয়ে কপালে লাগান। এতে মাথাব্যথা খুব তাড়াতাড়ি কমে যাবে। শীতকালে, ত্বকের পাশাপাশি ঠোঁট ও ফেঁটে যায়। ঠোঁটে কোকুম তেল প্রয়োগ করা বেশ উপকারী। এটি ঠোঁটের ত্বককে নরম করে তোলে।

৩. শীত আবহাওয়ায় শিরা ব্যাথা হওয়ার সমস্যাও রয়েছে, যাকে বলা হয় বিভিয়া ফাটা। এই ব্যাথার ওপর পেঁয়াজের পেস্ট বা গ্রিজ লাগালে আরাম পাবেন।

৪. শীতকালে সাধারণত শ্লেষ্মা বুকে জমে থাকে এবং এটি প্রচুর ঝামেলার সৃষ্টি করে। এই জন্য, ডুমুর খাওয়া ভালো। এটি শ্লেষ্মা দূর করবে এবং কাশি থেকে মুক্তি পাবে।

৫. তীব্র সর্দি জ্বর জ্বর এছাড়াও সাধারণ। এটি এড়াতে দিনে তিনবার সেলারি পাউডার ব্যবহার করা উপকারী। এ কারণে জ্বর দ্রুত কমে যাবে। একসাথে কাশি, সর্দি এবং জ্বর হলে পুদিনা পাতার চা বানিয়ে চিনি বা নুন মিশিয়ে খাওয়া বেশ উপকারী।

৬. যদি বুকে কফ জমে থাকে এবং হাঁপানির সমস্যা বৃদ্ধি পায় তবে পোস্ত বীজ খেলে তাড়াতাড়ি উপশম হয়।

৭. ঠান্ডা আবহাওয়াতে, প্রায়ই জয়েন্টে ব্যথা হওয়ার খবর পাওয়া যায়। এ থেকে মুক্তি পেতে ধাতুর পাতায় তেল লাগিয়ে গরম করে বেদনাদায়ক জায়গায় বেঁধে দিন। এটি ব্যথায় স্বস্তি দেয়।

৮. শীতকালে, সরষের তেলে ৩-৪ টি রসুনের লবঙ্গ রান্না করুন।

৯. ঠান্ডা হওয়ার পরে এটিতে ম্যাসাজ করুন। এই তেলটি মালিশ করলে শরীরের ব্যথা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।








Leave a reply