ঝাল খাওয়ার উপকারিতা জেনে নিন

|

ঝাল পছন্দ করেন এবং ঝাল পছন্দ করেন না- এমন মানুষের সংখ্যা বোধহয় সমানে সমান। অনেকে একেবারেই ঝাল খেতে পারেন না। তরকারিতে বা যেকোনো খাবারেই একটু ঝাল বাড়তি স্বাদ এনে দেয়। কেউ বা পেট জ্বলা বা অন্যান্য সমস্যার কারণে ঝাল থেকে থাকেন একশ হাত দূরে। আবার এমন মানুষও আছে- তরকারিতে পর্যাপ্ত ঝাল হওয়ার পরও পাতে দুই তিনটা কাঁচা মরিচ না পেলে যাদের খাওয়াই হয় না।

ঝাল খাওয়ার যেমন কিছু অপকারিতা আছে এর উপকারিতাও নেহাত কম নয়। সম্প্রতি এক গবেষণায় উঠে এসেছে ঝালের অনেক অনেক উপকারিতার কথা। আসুন জেনে নেই ঝাল খাওয়ার সেসব কিছু উপকারের কথা।

# ঝালের মূল উপাদান হচ্ছে ক্যাপসেইসিন। এই উপাদানটির আছে নানামুখী উপকারিতা। এটি ওজন নিয়ন্ত্রণে ও বিপাকক্রিয়ায় সাহায্য করে।

# ডায়াবেটিস রোগীদের রক্তে শর্করা ও রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে ঝাল খুব ভালো কাজ করে।

# রক্তনালীতে চর্বি জমলে তা জীবননাশের হুমকি হয়ে দাঁড়ায়। যারা নিয়মিত ঝাল খায় ঝালের ক্যাপসেইসিন উপাদান তাদের রক্তনালীতে চর্বি জমতে বাধা সৃষ্টি করে।

# হৃৎপিণ্ড ও রক্তনালীর স্নায়ুগুলোর সুস্থতায় কার্যকরী ভূমিকা রাখে ঝাল।

কাজেই ঝাল মানেই খারাপ এই ধারণা ভুল। তবে একটা কথা প্রচলিত আছে, ‘অতিরিক্ত কোনো কিছুই ভালো নয়।’ তাই ঝালের এতো উপকারিতার কথা শুনে অতিরিক্ত ঝাল খাওয়া শুরু করলে কিন্তু উপকারের চেয়ে অপকারই বেশি হবে। সবকিছুরই একটা সীমাবদ্ধতা আছে। অতিরিক্ত ঝাল এড়িয়ে চলাও সেক্ষেত্রে বুদ্ধিমানের কাজ।








Leave a reply