ছ্যাঁকা লাগলে বা পুড়ে গেলে কীভাবে ঘরোয়া উপাচারের সাহায্যে প্রথমিক চিকিৎসা করবেন

|

রান্না করতে গিয়ে বা অন্য কোনও কাজ করতে গিয়ে অনেক সময়ই আমাদের হাতে গরম ছ্যাঁকা লেগে যায় বা হাত পুড়ে (burnt skin) যায়। অনেক সময় এমনও হয় যে হাতের কাছে কোনও ওষুধ থাকে না, ফলে ফোস্কা পড়ে একেবারে বিশ্রী কান্ড হয়। যদি কখনও এমন পরিস্থিতি হয় সেক্ষেত্রে কিন্তু ঘরোয়া উপাচার খুব কাজে আসে। সব সময়ে ডাক্তারের কাছে যাওয়া সম্ভব হয় না, অথবা ডাক্তারের কাছে গেলেও তার আগে কিছুটা প্রথমিক চিকিৎসা (first aid) যদি আপনি করিয়ে নিতে পারেন তাহলে আপনারই সুবিধে। হঠাৎ করে হাত বা শরীরের অন্য কোনও অংশ পুড়ে গেলে ঠিক কী কী ভাবে আপনি প্রথমিকভাবে ঘরোয়া উপাচারের (home remedies) সাহায্যে কষ্ট লাঘব করবেন, জেনে নিন।

কোল্ড কমপ্রেসঃ অনেক সময়ই রান্না করতে গিয়ে হাতে গরম কিছু পড়ে চামড়া পুড়ে যায়। হয়ত আপনি চা খাচ্ছেন বা মাছের ঝোল রাঁধছেন, কিন্তু অসাবধানতায় আপনার হাত পিছলে গরম ঝোল বা চা পড়ে গেল আর আপনার হাত পুড়ে গেল। এমন অবস্থায় আপনি কী করবেন? সবার আগে ঠান্ডা জলে পোড়া জায়গাটি ধুয়ে নিন। বেশ কিছুক্ষন পোড়া জায়গায় ঠান্ডা জল ঢালুন। এবারে কিছুটা বরফ পরিষ্কার রুমাল বা কাপড়ে বেঁধে পোড়া অংশে আলতো করে চেপে রাখুন। মিনিট ১৫ এভাবে রেখে দিন। কষ্ট কিছুটা কমবে।

ভ্যানিলাঃ অনেক সময় এমন হয় যে সামান্য পুড়ে যায় এবং ফোস্কা পড়ে। সেক্ষেত্রে ভ্যানিলা কিন্তু খুব তাড়াতাড়ি ব্যথার উপশম করতে পারে। আমাদের সবার বাড়িতেই ভ্যানিলা এসেন্স থাকে, কেক বা অন্য কোনও মিষ্টি তৈরি করতে। পরিষ্কার একটু তুলো ভ্যানিলা এসেন্সে ভিজিয়ে পোড়া জায়গায় চেপে রাখুন। এতে ব্যথাও কমবে এবং একইসঙ্গে কোনও ক্ষতের সৃষ্টিও হবে না।

লিকার চাঃ লিকার চা কিন্তু ত্বকের পোড়া অংশে লাগিয়ে দিলে চট করে কষ্ট লাঘব হয়। এক কাপ ঠান্ডা জলে দু-তিনটি টি ব্যাগ ডুবিয়ে রেখে দিন এবং চায়ের মধ্যে বরফ কুচি দিয়ে দিন। এবারে যেখানে পুড়ে গিয়েছে সেখানে তুলোর সাহায্যে ঠান্ডা লিকার চা চেপে রাখুন। যতক্ষণ না পর্যন্ত ব্যথা কমছে, ততক্ষণ লিকার চায়ের প্রলেপ দিতে থাকুন।

আটাঃ যদি খুব বেশি পুড়ে যায় এবং চামড়া উঠে যায় সেক্ষেত্রে ডাক্তারি চিকিৎসার আগে কিছুটা প্রাথমিক চিকিৎসা প্রয়োজন। বেশ খানিকটা শুকনো আটা পোড়া অংশে লাগিয়ে দিন। এতে প্রাথমিকভাবে জ্বলুনি কমবে এবং ত্বকের অন্য অংশে পোড়াভাব ছড়াবে না।

মধুঃ আমরা ঘরোয়া উপাচার হিসেবে অনেক ক্ষেত্রেই মধু ব্যবহার করি। ত্বকের ঔজ্জ্বল্য বাড়ানো থেকে শুরু করে খুশখুশে কাশি সারিয়ে তোলা – নানা কাজেই আমরা মধু ব্যবহার করে থাকি। তবে ত্বক হঠাৎ পুড়ে গেলে প্রাথমিক চিকিৎসা হিসেবে যে মধু লাগানো যায় একথা কি আপনি জানতেন? মধু অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি, ফলে ত্বকের জ্বালা ও ব্যথা উপশম করে। এছাড়াও মধুতে রয়েছে অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল ও অ্যান্টিফাঙ্গাল বৈশিষ্ট্য রয়েছে, যা ত্বকের জ্বালা উপশম করতে পারে।








Leave a reply