ওজন কমাবে ঘোল নাকি লাচ্ছি?

|

জনপ্রিয় দুটি পানীয় ঘোল এবং লাচ্ছি। দইয়ের তৈরি এই পানীয়র একটি মিষ্টি এবং অন্যটি টক। গরমের দিনে এক গ্লাস ঘোল বা লাচ্ছি তৃষ্ণা নিবারণের পাশাপাশি প্রয়োজনীয় পুষ্টিও সরবরাহ করে। ক্যালসিয়াম, ভিটামিন-বি, দস্তা এবং প্রোটিন সমৃদ্ধ ঘোল ও লাচ্ছি। দুটি পানীয়ই স্বাস্থ্যকর প্রোবায়োটিক সমৃদ্ধ, যা অন্ত্রের স্বাস্থ্য এবং হজমের উন্নতি হিসাবে পরিচিত। ওজন কমানোর জন্য দুটি পানীয়ই কার্যকরী ভূমিকা পালন করে। তবে একটি সাধারণ প্রশ্ন হলো এর মধ্যে ওজন কমানোর ক্ষেত্রে কোনটি বেশি কার্যকরী? চলুন তাহলে সে বিষয়ে জেনে নেয়া যাক-

ঘোল একটি হালকা পানীয়। এটি আপনি দুপুরের খাবারের সময় পান করতে পারেন। এতে ক্যালরির পরিমাণ অনেক কম। এটি টকযুক্ত এবং অ্যাসিড কম। ঘোলের স্বাদ বাড়াতে আপনি এতে জিরা গুঁড়া, বিট লবন বা ধনিয়া পাতা যুক্ত করতে পারেন। খাবারের পর ঘোল পান করলে হজমশক্তি বাড়ায়, অ্যাসিড রিফ্লাক্স প্রতিরোধ করে এবং ফ্যাট কমায়।

লাচ্ছি ঘোলের চেয়ে ভারী পানীয়। এতে বেশি ফ্যাট থাকে এবং স্বাদে মিষ্টি হওয়ায় ক্যালোরি বেশি থাকে। লাচ্ছির স্বাদ বাড়াতে এর ওপরে গোলাপের সিরাপ, আম বা কেশার যুক্ত করা যেতে পারে। লাচ্ছি ঘোলের চেয়ে ভারী হওয়ায় আপনাকে আরও দীর্ঘ সময় খিদে রোধ করতে পারে। প্রোবায়োটিক সমৃদ্ধ হওয়ায় লাচ্ছি ফোলাভাব এবং কোষ্ঠকাঠিন্যের মতো হজম সমস্যা সমাধানে সহায়তা করে।

আমরা সকলেই জানি যে, ওজন হ্রাস মানে হলো শরীরে ক্যালোরির পরিমাণ কমানো। এজন্য ওজন কমাতে গেলে ক্যালোরি খরচ করতে হয় এবং এটি গ্রহণের পরিমাণও কমাতে হয়। এজন্য ওজন কমানোর ক্ষেত্রে ঘোল লাচ্ছির চেয়ে ভাল। কারণ এতে কম ফ্যাট এবং কম ক্যালোরি রয়েছে। ঘোলে লাচ্ছির চেয়ে ৫০ শতাংশ কম ক্যালোরি এবং ৭৫ শতাংশ কম ফ্যাট থাকে।

তবে পুষ্টিগুণে এবং স্বাস্থ্য উপকারিতাই দুটি পানীয়ের গুণাগুণ প্রায় একই। এটি ভিটামিন সি সমৃদ্ধ এবং প্রতিরোধ ক্ষমতা জোরদার করতে সহায়তা করে।








Leave a reply