এক টুকরো আদা বদলে দিতে পারে আপনার জীবন!

|

আদা মসলা হিসেবে ব্যবহৃত হলেও ভিন্নভাবে আদা খাওয়ার রয়েছে নানা উপকারিতা। নিয়মিত আদা-পানি পানে অনেক সুফল পাওয়া যায়। গরম পানিতে আদার টুকরা দিয়ে ফুটিয়ে ছেঁকে নিন। চাইলে লেবুর রস ও মধু মেশাতে পারেন। এটি নিয়মিত পান করলে দূরে থাকতে পারবেন বিভিন্ন রোগ থেকে। আসুন জেনে নেই আদা-পানি আপনার কি উপকারে লাগে।আদাতে রয়েছে বেশিরভাগ ঠাণ্ডা-সর্দিজনিত রোগের পেছনে দায়ী রাইনো ভাইরাস দমনের শক্তিশালি রাসায়নিক উপাদান। এছাড়া এতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণ অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং এটি একটি প্রাকৃতিক ব্যাথা-নাশক এবং জর প্রতিরোধী হিসেবেও কাজ করে। জেনে নিন নিয়মিত আদা খেলে কী কী শারীরিক সমস্যার সমাধান পাওয়া যায়—

– বমিভাব বা বমি হলে আদা কুচি চিবিয়ে খান। অথবা আদার রসের সঙ্গে সামান্য লবণ মিশিয়ে পান করুন। তাৎক্ষণিক আরাম পাবেন।

– গ্যাস্ট্রিকের সমস্যায় ২ কাপ পানিতে এক টুকরো আদা ছেঁচে গরম করে চায়ের মতো তৈরি করে পান করুন।

– দুর্বল লাগছে? এক টুকরো আদা খেয়ে নিন। অনেকটা শক্তি পাবেন। পরে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। জানুন দুর্বলতার কারণ।

– আদার রস ব্যথা কমাতেও ওষুধের মতো কাজ করে। যেখানে আঘাত সেখানে লাগাতে পারেন আদার রস। এমনকি আদার রস পান করলেও ব্যাথা কমে।

– নিয়মিত আদা খেলে পুরুষের প্রজনন ক্ষমতা বাড়ে। স্পার্ম কাউন্ট বৃদ্ধি করে আদা।

– প্রাকৃতিক অ্যান্টিবায়োটিক উপাদানে ভরপুর আদা। তাই রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। নিয়মিত আদা খাওয়ার অভ্যাস করলে ছোটখাটো অনেক রোগের হাত থেকেই মুক্তি মেলে।

– ক্ষুধামান্দ্যে ভুগছেন? তা হলে চিবিয়ে অথবা রস করে আগে আদা খেয়ে নিন। আধ ঘণ্টার মধ্যেই ক্ষুধামান্দ্য দূর হবে এবং খাবারে রুচি ফিরে আসবে।

– আদা হজমের সমস্যায় খুব ভাল কাজ করে। প্রতিদিন সকালে ১ কাপ আদা চা পান করলে হজমের সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

– গলা খুশখুশ কমাতেও উপকারী আদা। ঠাণ্ডা লেগে কাশি হলেও আদা গলা স্বাভাবিক রাখতে কাজে লাগে।








Leave a reply