এই ৬টি অনুশীলন গৃহবধূদের সর্বদা পাতলা এবং ফিট রাখতে সহায়তা করবে

|

গৃহবধূরা সংসারের চাপের কারণে তাদের নিজস্ব স্বাস্থ্যের দিকে মনোযোগ দিতে পারে না না। তাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায় এবং ওজনও বৃদ্ধি পায়।
চাকরিজীবী হোক বা গৃহিণী, সবার জন্য সুস্থ ও ফিট থাকা গুরুত্তপুর্ন। গৃহবধূদের পুরো দিন বাড়ির কাজ এবং পরিবারের তত্ত্বাবধানে চলে যায়। এই কারণেই তিনি নিজের জন্য সময় খুঁজে পাচ্ছেন না।
বয়সের সাথে তাদের দেহে অনেক পরিবর্তন আসে বলে মহিলাদের নিজেকে ফিট রাখা আরও গুরুত্বপূর্ণ হয়ে ওঠে। সঠিক ডায়েটের পাশাপাশি সঠিক জীবনধারা অনুসরণ করাও জরুরি। ফিটনেস বজায় রাখার জন্য, জিমে যাওয়ার দরকার নেই। কাজের ফাঁকেও গৃহবধূ ছোট ছোট অনুশীলন করে নিজেকে ফিট রাখতে পারেন।

এখানে কিছু ব্যায়াম এবং অন্যান্য টিপস রয়েছে, যেগুলো সর্বদা আপনাকে ফিট রাখতে সহায়তা করবে:

সিঁড়ি আরোহণ: দ্রুত সিঁড়ি বেয়ে উপরে উঠুন। এটি জিমে স্টিপার মেশিন ব্যবহার করার মতো। দিনে চার থেকে পাঁচ বার সিঁড়ি বেয়ে উপরে উঠতে চেষ্টা করুন।

দ্রুত হাঁটার অভ্যাস: কাজের সময় দ্রুত হাঁটার অভ্যাস করুন। এটি করে প্রচুর পরিমাণে ক্যালোরি পাওয়া যায়।

কাজগুলির মধ্যে প্রসারিত হওয়া: কাজের বাকী সময় বা রান্না করার মধ্যে প্রসারিত হাওয়া। এটি কেবল পেশী শিথিলকরণ করে না, এটি শরীরে শক্তি জোগাতেও সহায়তা করে।

উঠা-বসা করা এবং নাচ: থাই এবং পেটের মেদ কমাতে সিট-আপগুলি এবং পুশ-আপগুলি করুন। নাচও প্রচুর মেদ কমাতে এবং শরীরকে ফিট রাখতে সহায়তা করে। আপনি যদি কোনও মিউজিক চালিয়ে নাচতে না চান, তবে একটি কানে হেডফোন রাখুন এবং সুযোগ পেলেই নাচ শুরু করুন।

বাতাসে সাইকেল চালানো: আপনি যদি বিশ্রাম নিতে চান তবে শুয়ে পড়ুন। পা উপরে তুলে নিন এবং সাইক্লিংয়ের মতো একইভাবে বৃত্তাকার গতিতে পা দুইটা ঘোরান। বাচ্চাদের মতো প্রায়ই মজা হিসাবে এ জাতীয় অনুশীলন করতে পারেন।

যোগব্যায়াম: এই ছোট ছোট অনুশীলনগুলি ছাড়াও গৃহকর্মীরা করতে পারে এমন আরও একটি বিষয় হল যোগব্যায়াম। এটি তাদের কেবল মানসিক চাপ কাটিয়ে উঠতে সাহায্য করবে না, পাশাপাশি শরীরকেও ফিট রাখতে সহায়তা করবে।








Leave a reply