এই ৫টি সমস্যায় গাঁদা ফুল ব্যবহার করা যেতে পারে, জেনে নিন

|

গাঁদা ফুল যে কাউকে মুগ্ধ করতে পারে। গাঁদা ফুল সবসময় পাওয়া যায়। বাড়ি সাজানোর জন্য এবং বিভিন্ন মালা গাঁথার জন্য উত্তর ভারতে গাঁদা ফুল প্রচুর ব্যবহৃত হয়। তবে গাঁদা ফুলের ফুলগুলিতেও অনেক ঔষধী গুণ ও রয়েছে। গাঁদা ফুলগুলি অনেক সমস্যা সমাধানের জন্য ব্যবহৃত হয়। ত্বকের সমস্যা দূর করতে গাঁদা ফুল ও পাতা খুব উপকারী। বাজারে ত্বকের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করার জন্য অনেক পণ্য পাওয়া যায়, যেগুলো গাঁদা ফুলের নির্যাস থেকে তৈরি হয়। প্রতিদিনের কিছু সমস্যায় গাঁদা ফুল কীভাবে ব্যবহার করতে পারেন, জেনে নিন-

ওয়ার্টস এবং ডিলগুলি অপসারণ করার জন্য
গাঁদা ফুলের সাহায্যে, আপনি সহজেই ত্বকের দাগগুলো দূর করতে পারেন। তাজা গাঁদা ফুলের কয়েকটি পাপড়ি পিষে একটি পেস্ট তৈরী করুন এবং এটি ত্বকে দাগযুক্ত জায়গায় লাগান। কানের সমস্যা দূর করতেও এটি ব্যাবহার করা যেতে পারে। তাৎক্ষণিক ফলাফল পেতে আপনাকে এটি কমপক্ষে ২ সপ্তাহ ব্যবহার করতে হবে।

মুখের তেল অপসারণ করতে
কখনও কখনও তৈলাক্ত মুখের কারণে আপনার মুখের সৌন্দর্য নষ্ট হয়। এক কাপ উষ্ণ পানিতে গাঁদা ফুলের কয়েকটি পাপড়ি রেখে ১০ মিনিটের জন্য রেখে দিন। এবার নরম কাপড়ের সাহায্যে আপনার মুখ পরিষ্কার করুন। এটি আপনার ত্বকের জন্য সেরা এবং নিরাপদ। এই জল দিয়ে আপনার মুখ ধুয়ে ফেললে, মুখের দাগ দূর হয়।

ক্ষত পরিষ্কার করতে
অ্যান্টিবায়োটিক মলম বা অ্যালকোহলযুক্ত পদার্থগুলি সাধারণত ক্ষতটি পরিষ্কার করার জন্য ব্যবহৃত হয়, যাতে সংক্রমণটি ছড়িয়ে না যায়। তবে ফুলের সাহায্যে ছোটখাটো আঘাত বা ক্ষত পরিষ্কার করা যায়, কারণ এতে অ্যান্টিবায়োটিক বৈশিষ্ট্য রয়েছে। এর জন্য গাঁদা পাপড়ি পিষে একটি পেস্ট বা রস তৈরি করুন। তারপরে নরম কাপড়ের সাহায্যে ক্ষতটি পরিষ্কার করুন। এই রস আপনার ক্ষত দ্রুত নিরাময় করতে সহায়তা করবে।

বদহজমের সমস্যা
খুব বেশি তেল-মশলাদার খাবার খাওয়ার ফলে যদি বদহজমের মত সমস্যা হয়, তবে গাঁদা ফুল আপনাকে এই ক্ষেত্রে সহায়তা করতে পারে। গরম জলে কিছুটা তাজা বা শুকনো গাঁদা ফুলের পাপড়ি যুক্ত করুন। এটি ৫ মিনিটের জন্য ঢেকে রাখুন। তারপরে এটি চা এর মতো ফিল্টার করুন এবং এটি পান করুন। পেটের সাথে সম্পর্কিত প্রতিটি সমস্যা এটা দিয়ে সমাধান করা যায়।

খুশকি দূর করতে
চুলের অনেক সমস্যায়ও গাঁদা ফুল ব্যবহার করা হয়। যদি আপনার খুশকির সমস্যা থাকে তবে উপরে বর্ণিত হিসাবে গাঁদা পাপড়ি দিয়ে পেস্ট তৈরি করে মাথায় লাগান। কিছু সময় পরে শীতল পানি দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন। এর পর তোয়ালে দিয়ে চুল শুকিয়ে নিন। এভাবে ২-৩ বার ব্যবহার করলে মাথা থেকে খুশকি দূর হয়।








Leave a reply