অ্যালার্জি ? অবশ্যই মেনে চলুন এই পাঁচটি বিষয়, অ্যালার্জি কে একেবারে গুড বাই জানান

|

এমন অনেকেই আছেন যাদের অ্যালার্জির সমস্যা রয়েছে। এই অ্যালার্জি এতটাই বিরক্তিকর যে তার কারণে আমাদের অনেকেরই স্বাভাবিক জীবনেষ নরক হয়ে ওঠে। কিন্তু যাঁদের এই সমস্যা নেই, তাঁদের হয়তো মনে হতেই পারে যে, এই অ্যালার্জি তেমন একটা গুরুতর ব্যাপারই নয়, কিন্তু যাঁরা ভুক্তভুগী শুধুমাত্র তাঁরাই জানেন যে, শরীর আর মন এই দুটোই এই অ্যালার্জির জ্বালায় রীতিমত বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে । আবার এই অ্যালার্জির সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য বেশিরভাগ মানুষই মারাত্মক ভুল কিছু কাজ করে বসে, যা কিছু কিছু কিছু ক্ষেত্রে আমাদের বিপদ আরও বাড়িয়ে দিতে পারে। কিন্তু জানেন কি? সেইসব ভুলগুলো আসলে ঠিক ই? জানেন না তাই তো? তবে আসুন জেনে নেওয়া যাক।

১) আপনার ঘরে যদি যথেষ্ট আলো-বাতাস ঢোকে তাহলে আপনার ঘর সবসময় জীবানুমুক্ত থাকবে। এমন ধারণার মনের মধ্যে পুষে রাখার কারনেই যারা অ্যালার্জির রোগী তারাও বাড়ি-ঘরের জানালা হাট করে খুলে রেখে দেন। কিন্তু আপনি ভুল আরছেন, আপনি হয়তো জানেন না, যে জানালা খোলা থাকার ফলে বিভিন্ন ফুলের পরাগরেণু বা ধুলোবালি ঢুকে কিন্তু অ্যালার্জির সমস্যা আরও বাড়িয়ে দিতে পারে।
২) অনেকেই এমন আছেন যারা এই অ্যালার্জির কবল থেকে বাঁচার জন্য জ্বালায় অতিষ্ঠ হয়ে ফার্মেসিতে গিয়ে নানা রকম ওষুধ কিনে খান। কিন্তু ঠিক কি কারণে আপনার এই অ্যালার্জি হচ্ছে তা যদি না জেনেই আপনি যদি ওষুধ খান, তাহলে কিন্তু ভাল হওয়ার পরিবর্তে ক্ষতির সম্ভাবনাই বেশি। তাই অ্যালার্জি হলে একদম শুরুতেই চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। তাই সবথেকে ভাল অপশন হলো, নিজের পরীক্ষা করিয়ে আগে নিশ্চিত হয়ে নিন যে, আপনার অ্যালার্জি ঠিক কি ধরণের। এর পর ঠিক সেই অনুযায়ী ব্যবস্থা নিতে হবে।
৩) আপনি যখন বাইরে বেরোন তখন কিন্তু আপনার জুতো, কাপড়, চুলে লেগে এই অ্যালার্জি সৃষ্টিকারী ধুলো-বালি প্রতিনিয়তই ঘরে ঢুকে যায়। আপনার ঘরের যে পোষ্যটি আছে তার জন্য ও কিন্তু সারা দিনের মধ্যে একশ বার একই ঘটনা ঘটে থাকে। এসব কারণেই যতটা সম্ভব পরিষ্কার থাকার জন্য তোর উপযুক্ত সতর্কতা নেওয়া উচিৎ । শুধু তাই নয়, সবসময় মনে রাখবেন যে বাইরে থেকে এসে মাথার চুল ধুয়ে ফেলবেন। নয়তো চুলে লেগে থাকা ধুলাবালি শোয়ার সময় আপনার বালিশেও লেগে যাবে এবং আপনি যদি রাতভর সেই ধুলো লাগা বালিশে ঘুমোন তাহলে অ্যালার্জির সমস্যা আরও বেড়ে যেতে পারে।

8) অ্যালার্জির সমস্যা যাঁদের আছে তারা কিন্তু বিশেষ কিছু ফল বা সবজি খেলে তাঁদের অ্যালার্জির সমস্যা অনেকটাই বেড়ে যায়। মুখে এবং গলায় চুলকানি হয় , অস্বস্তি দেখা দেয়। কখনও বা সব খাবার কাটাকাটি করেন, ধুতে গেলে বা রান্না করতে গেলেও অ্যালার্জির সমস্যা বাড়তে পারে। আপনার যদি যেসব জানা থাকে যে, কোন কোন খাবারে আপনার অ্যালার্জি বেড়ে যায়, তাহলে সেই সব খাবার থেকে দূরে থাকাই ভাল।
৫) অনেকে আছেন দেখবেন যাঁরা অ্যালার্জির সমস্যায় চিকিৎসকের দেওয়া নাজাল স্প্রে ব্যবহার করেন। কিন্তু এই নাজাল স্প্রে কিভাবে ব্যবহার করতে হয় তাও ব্যবহারের ক্ষেত্রে অনেকেই নিয়ম মেনে চলেন না। যদি আপনি এই নাজাল স্প্রে বেশি ব্যবহার করেন তাহলে কিন্তু নাকের ভেতরের অংশে এবং সাইনাসে মারাত্মক ক্ষতি হতে পারে।








Leave a reply